নাজমা চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
নাজমা চৌধুরী
ড. নাজমা চৌধুরী
পূর্ণ নামনাজমা চৌধুরী
জন্ম (১৯৪২-০২-২৬) ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৪২ (বয়স ৭৬)
সিলেট, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি (বর্তমান বাংলাদেশ)

নাজমা চৌধুরী একজন বাংলাদেশী শিক্ষাবিদ। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা।[১] ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। ২০০৮ সালে একুশে পদক পেয়েছেন এই প্রবীণ শিক্ষাবিদ।[২]

প্রারম্ভিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

১৯৪২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি সিলেটে জন্ম নেয়া অধ্যাপক ড: নাজমা চৌধুরী ছিলেন তার বাবা চৌধুরী ইমামুজ্জামান ও আমিরুন্নেসা খাতুনের তৃতীয় সন্তান। তার শিক্ষাজীবন শুরু হয়েছিলো ভারতের আসামে। পরে পিতার কর্মস্থল পরিবর্তনের কারণে ঢাকা ও রাজশাহীতে স্থানান্তর হয় তাদের পরিবার।

নাজমা চৌধুরী স্কুল জীবন কেটেছে ঢাকা ও রাজশাহীতে। পূর্ব পাকিস্তান মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে মেয়েদের মধ্যে অষ্টম স্থান পেয়েছিলেন তিনি। পরে হলিক্রস কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করেন এবং মেধা তালিকায় তার অবস্থান ছিলো নবম।

পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৬৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে প্রভাষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন নাজমা চৌধুরী। ১৯৬৬ সালে কমনওয়েলথ স্কলারশিপ নিয়ে ইউনিভার্সিটি অফ লন্ডনে যান পিএইচডি করতে এবং পিএইচডি শেষে ১৯৭২ সালে দেশে ফিরে আসেন। ১৯৮৪ সাল থেকে পরবর্তী তিন বছর রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন এবং বিভাগে নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়ন বিষয়ক নানা কোর্স অন্তর্ভুক্ত করেন।

১৯৮৮ সালে ভিজিটিং স্কলার হিসেবে ফুলব্রাইট স্কলারশিপ নিয়ে মিনেসোটা বিশ্ববিদ্যালয়ে যান তিনি।

পরে ২০০০ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন উইমেন অ্যান্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগ প্রতিষ্ঠার পর তিনি বিভাগীয় সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। অবসরের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমিরেটাস অধ্যাপক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

এর আগে ১৯৭৮ ও ১৯৮৬ সালে তিনি বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সদস্য হিসেবে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ অধিবেশনে যোগ দেন। এছাড়া তিনি বেলগ্রেডে ইউনেস্কো সাধারণ সম্মেলন এবং নাইরোবিবেইজিংয়ে বিশ্ব নারী সম্মেলনেও অংশ নিয়েছেন।

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

নাজমা চৌধুরী ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করেছেন। এসময় তিনি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

প্রকাশিত গ্রন্থ[সম্পাদনা]

ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নাজমা চৌধুরী ও বারবারা নেলসন সম্পাদিত উইমেন অ্যান্ড পলিটিক্স ওয়ার্ল্ডওয়াইড প্রকাশিত হয়েছে ১৯৯৪ সালে। বইটি ভিক্টোরিয়া চাক পুরস্কার অর্জন করে।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

নাজমা চৌধুরী ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত এবং তার স্বামী মাইনুর রেজা চৌধুরী বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি। তারা ১৯৬১ সালে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন এবং এই দম্পতির দুটি সন্তান রয়েছে। মাইনুর রেজা চৌধুরী ২০০৪ সালে মারা যান।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Workshop on gender begins"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৭। সংগ্রহের তারিখ ১০ অক্টোবর ২০১৬ 
  2. "9 get Ekushey Padak 2008"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০০৮।