দ্য লর্ড অব দ্য রিংস: দ্য ফেলোশিপ অব দ্য রিং

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দ্য লর্ড অফ দ্য রিংস:
দ্য ফেলোশিপ অফ দ্য রিং
দ্য লর্ড অফ দ্য রিংস- দ্য ফেলোশিপ অফ দ্য রিং চলচ্চিত্রের পোস্টার.jpg
চলচ্চিত্রের পোস্টার
পরিচালকপিটার জ্যাকসন
প্রযোজক
চিত্রনাট্যকার
উৎসজে. আর. আর. টলকিন কর্তৃক 
দ্য ফেলোশিপ অফ দ্য রিং
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারহাওয়ার্ড শোর
চিত্রগ্রাহকঅ্যান্ড্রু লেসনি
সম্পাদকজন গিলবার্ট
প্রযোজনা
কোম্পানি
পরিবেশকনিউ লাইন সিনেমা
মুক্তি
  • ১০ ডিসেম্বর ২০০১ (2001-12-10) (অডিয়ন লাইচেস্টার স্কয়ার)
  • ১৯ ডিসেম্বর ২০০১ (2001-12-19) (উত্তর আমেরিকা)
  • ২০ ডিসেম্বর ২০০১ (2001-12-20) (নিউজিল্যান্ড)
দৈর্ঘ্য১৭৮ মিনিট[১]
দেশ
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$ ৯ কোটি ৩০ লক্ষ[৩]
আয়$ ৮৭ কোটি ১৫ লক্ষ[৩]

দ্য লর্ড অফ দ্য রিংস: দ্য ফেলোশিপ অফ দ্য রিং (ইংরেজি ভাষায়: The Lord of the Rings: The Fellowship of the Ring) জে. আর. আর. টলকিন এর রূপকথার উপন্যাস ত্রয়ীর প্রথমটি থেকে করা চলচ্চিত্র। ২০০১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই সিনেমার পরিচালক হলেন পিটার জ্যাকসন। উপন্যাস ত্রয়ীর পরবর্তী দুটি থেকেও পিটার জ্যাকসন সিনেমা তৈরি করেছেন। প্রথম পর্বের কাহিনী ঘটেছে মিড্‌ল-আর্থে। এতে দেখা যায়, ডার্ক লর্ড "সাউরন" একটি রিং তথা আংটি খুঁজছে। এই আংটি পেলে সে সমগ্র বিশ্ব নিজের করতলে নিয়ে আসতে পারবে। ভাগ্যক্রমে এই আংটি পড়েছে হবিট গোত্রের কিশোর "ফ্রোডো ব্যাগিন্স"-এর হাতে। তাই সমগ্র বিশ্বের ভাগ্য নির্ভর করছে ফ্রোডোর উপর। ডার্ক লর্ডের হাত থেকে বাঁচার জন্য সকল গোত্রের নেতারা মিলে আংটি ধ্বংসের ব্যবস্থা করছেন। আংটি ধ্বংসের একমাত্র উপায় মর্ডরদের রাজত্বে গিয়ে মাউন্ট ডুমের আগুনে তা ফেলে দেয়া। মাউন্ট ডুম পর্যন্ত আংটি নিয়ে যাওয়ার জন্যই গঠিত হয় "ফেলোশিপ অফ দ্য রিং"। আংটি থাকে ফ্রোডোর কাছে। আর বাকি আট জন সঙ্গী তাকে রক্ষা করে চলে।

২০০১ সালের ১৯শে ডিসেম্বর ছবিটি মুক্তি পায়। মুক্তির পরপরই দর্শক ও সমালোচকদের কাছে বিপুল প্রশংসা অর্জন করে। মূল উপন্যাসকে বিকৃত না করায় প্রশংসার পরিমাণ আরও বেড়ে গেছে। বক্স অফিসে প্রভূত সফলতা অর্জন করে। বিশ্বব্যাপী এর মোট আয়ের পরিমাণ গিয়ে দাড়ায় ৮৭ কোটি মার্কিন ডলারে। ২০০১ সালের সব ছবির মধ্যে আয়ের দিক দিয়ে এর স্থান ছিল দ্বিতীয় (প্রথম হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন)। সে সময় ফেলোশিপ অফ দ্য রিং ছিল আয়ের দিক দিয়ে সবর্কালের সেরা সিনেমার তালিকায় পঞ্চম।

চলচ্চিত্রটি ৭৪তম একাডেমি পুরস্কার আয়োজনে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রশ্রেষ্ঠ পরিচালনাসহ তেরটি বিভাগে অস্কারের মনোনয়ন লাভ করে এবং দুইটি বিভাগে বাফটা পুরস্কার লাভ করে, যার মধ্যে সেরা চলচ্চিত্র ও সেরা পরিচালনাও ছিল। ২০০৭ সালে অ্যামেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউটের করা সর্বকালের সেরা ১০০ মার্কিন চলচ্চিত্রের তালিকায় একে ৫০তম স্থানে রাখা হয়। এছাড়া আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট ছবিটিকে সর্বকালের দ্বিতীয় সেরা রূপকথার সিনেমা হিসেবে আখ্যায়িত করেছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "The Lord of the Rings - The Fellowship of the Ring"ব্রিটিশ বোর্ড অব ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন। সংগ্রহের তারিখ ১৬ অক্টোবর ২০১২ 
  2. "The Lord of the Rings The Fellowship of the Ring (2001)"ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট। সংগ্রহের তারিখ ৬ ডিসেম্বর ২০১২ 
  3. "The Lord of the Rings: The Fellowship of the Ring (2001)"বক্স অফিস মোজো। সংগ্রহের তারিখ ৫ ফেব্রুয়ারি ২০০৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]