দশরথ মৌর্য্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
দশরথ মৌর্য্য
মৌর্য্য সম্রাট
রাজত্বকালখ্রিস্টপূর্ব ২৩২- খ্রিস্টপূর্ব ২২৪
রাজ্যাভিষেকখ্রিস্টপূর্ব ২৩২
উপাধিদেবনামপ্রিয়
পূর্বসূরিঅশোক
উত্তরসূরিসম্প্রতি
রাজবংশমৌর্য্য সাম্রাজ্য
পিতাসুযশস (?কুণাল)
ধর্মবিশ্বাসবৌদ্ধ ধর্ম

দশরথ মৌর্য্য (সংস্কৃত: दशरथ) (রাজত্বকাল: খ্রিস্টপূর্ব ২৩২ -খ্রিস্টপূর্ব ২২৪) চতুর্থ মৌর্য্য সম্রাট ছিলেন। তাঁর রাজত্বকালে মৌর্য্য সাম্রাজ্যের পতন শুরু হয় এবং বিভিন্ন অঞ্চলে কেন্দ্রীয় শাসন ভেঙে বেরিয়ে আসতে থাকে। দশরথ তাঁর পিতামহ ও পূর্বসূরী অশোকের সামাজিক ও ধর্মীয় নীতি বজায় রাখেন।

পরিবার[সম্পাদনা]

দশরথ মৌর্য্য তৃতীয় মৌর্য্য সম্রাট অশোকের পৌত্র ছিলেন।[১][২] বিষ্ণু পুরাণে দশরথকে অশোকের পুত্র সুযশসের সন্তান হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।[২] অশোকের পুত্র কুণাল ও সুযশস যে একই ব্যক্তি ছিলেন, তা মনে করা হয়ে থাকে।[২]

অশোকের উত্তরাধিকারী[সম্পাদনা]

ঐতিহাসিক ভিনসেন্ট স্মিথরোমিলা থাপারের মতে, অশোকের মৃত্যুর পর তাঁর সাম্রাজ্য তাঁর পুত্র কুণাল ও পৌত্র দশরথের মধ্যে ভাগ করা হয়।[৩] যদিও অনেক ঐতিহাসিক মনে করেন, কুণাল নয়, অশোকের দুই পৌত্র দশরথ ও সম্প্রতির মধ্যে সাম্রাজ্য বিভক্ত হয়; দশরথ পাটলিপুত্র নগরীকে রাজধানী করে সাম্রাজ্যের পূর্বভাগ এবং সম্প্রতি উজ্জয়িনী নগরীকে রাজধানী করে সাম্রাজ্যের পশ্চিম ভাগ রাজত্ব করেন,[৪] যদিও স্মিথের মতে এই তত্ত্বের কোন ঐতিহাসিক প্রমাণ এখনো পাওয়া যায়নি।[৫]

উপাধি[সম্পাদনা]

অশোকের মতোই দশরথ বৌদ্ধ ধর্ম গ্রহণ করে দেবনামপ্রিয় উপাধি গ্রহণ করেন।[৬][৭] সিংহাসনে আরোহণ করার পর নাগার্জুনি পাহাড়ের তিনটি গুহা তিনি আজীবিক সম্প্রদায়ের জন্য উৎসর্গ করেন। এই গুহায় প্রাপ্ত লিপিতে তাঁকে দেবনামপ্রিয় হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।[৮]

সাম্রাজ্যে ভাঙ্গন[সম্পাদনা]

বায়ু পুরাণ[১]ব্রহ্মাণ্ড পুরাণে অশোকের পর বন্ধুপালিত, ইন্দ্রপালিত ও দসোন নামক তিনজন মৌর্য্য শাসকের উল্লেখ পাওয়া যায়, যাদের পরিচয় চিহ্নিত করা সম্ভব হয়নি।[২] মনে করা হয়ে থাকে তাঁরা মৌর্য্য রাজবংশের কোন একটি শাখার সদস্য, যাদেরকে দশরথ প্রাদেশিক শাসনকর্তা হিসেবে নিযুক্ত করেন।[২] সুভগসেন নামক একজন শাসকের দ্বারা সাম্রাজ্যের উত্তর-পশ্চিম প্রদেশগুলি শাসনের কথা গ্রিক উৎসগুলি থেকে জানা যায়।[২] মধ্য-পূর্ব ভারতের কলিঙ্গ রাজ্য ও পশ্চিম ভারতের বিদর্ভ মৌর্য্য শাসন থেকে পৃথক হয়ে যায়।[৫] যাই হোক, দশরথ মগধ সহ মধ্য ও উত্তর ভারতের ধিকাংশ স্থানে তাঁর শাসন বজায় রাখেন।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Asha Vishnu; Material Life of Northern India: Based on an Archaeological Study, 3rd Century B.C. to 1st Century B.C. Mittal Publications. 1993. আইএসবিএন ৯৭৮-৮১৭০৯৯৪১০৭. pg 3.
  2. Sailendra Nath Sen; Ancient Indian History And Civilization. New Age International. 1999. আইএসবিএন ৯৭৮-৮১২২৪১১৯৮০. pg 152-154.
  3. Buddha Prakash; Studies in Indian history and civilization. Shiva Lal Agarwala. 1962. pg 148-154.
  4. Rama Shankar Tripathi; History Of Ancient India. Motilal Banarsidass Publishers. 1942. pg 179.
  5. Vincent A. Smith; The Early History of India. Atlantic Publishers & Dist. 1999. আইএসবিএন ৯৭৮-৮১৭১৫৬৬১৮১. pg 193-207.
  6. Ram Sharan Sharma; Perspectives in social and economic history of early India. Munshiram Manoharlal Publishers. 1995. আইএসবিএন ৯৭৮-৮১২১৫০৬৭২৪. pg 107.
  7. Lal Mani Joshi; Studies in the Buddhistic Culture of India During the 7th and 8th Centuries A.D. Motilal Banarsidass Publishers. 1977. আইএসবিএন ৯৭৮-৮১২০৮০২৮১০. pg 362.
  8. Romila Thapar; Aśoka and the Decline of the Maurya. Oxford University Press. 2001. আইএসবিএন ০-১৯-৫৬৪৪৪৫-X. pg 186.
  9. Kenneth Pletcher; The History of India. The Rosen Publishing Group. 2010. আইএসবিএন ৯৭৮-১৬১৫৩০২০১৭. pg 70.
দশরথ মৌর্য্য
রাজত্বকাল শিরোনাম
পূর্বসূরী
অশোক
মৌর্য্য সম্রাট
খ্রিস্টপূর্ব ২৩২- খ্রিস্টপূর্ব ২২৪
উত্তরসূরী
সম্প্রতি