তিয়ানশি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
তিয়ানশি
বেসরকারি কোম্পানি
শিল্পএকীভূতএমএলএম
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৯৫; ২৬ বছর আগে (1995)
প্রতিষ্ঠাতালি জিনইউয়ান
সদরদপ্তরতিয়ানজিন, চীন
বাণিজ্য অঞ্চল
বিশ্বব্যাপী
প্রধান ব্যক্তি
পণ্যসমূহ
অধীনস্থ প্রতিষ্ঠানতিয়ানজিন তিয়ানশি বায়োলজিক্যাল ডেভেলপমেন্ট কোঃ লিমিটেড, তিয়ানশি ইহাই কোঃ লিমিটেড
ওয়েবসাইটwww.tiens.com

টিয়েন্স গ্রুপ বা তিয়ানশি (/ˈtɛns/, চীনা: 天狮; ফিনিন: তিয়ানশি; আক্ষরিক: "স্বর্গীয় সিংহ" থেকে) হল একটি চীনা বহুজাতিক একীভূত এমএলএম কোম্পানি, যার সদর দপ্তর চীনের তিয়ানজিনে অবস্থিত। টিয়েন্স গ্রুপ জৈবপ্রযুক্তি, শিক্ষা,খুচরা পণ্য বিক্রয়, পর্যটন, অর্থসংস্থান ও ই-বাণিজ্য নিয়ে কাজ করে থাকে।[১] প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশে প্রতারণামূলক এমএলএম ব্যবসার জন্য ব্যপকভাবে সমালোচিত।[২][৩][৪]

সমালোচনা ও বাংলাদেশে নিষেধাজ্ঞা[সম্পাদনা]

তিয়ানশি বাংলাদেশে ব্যাপকভাবে সমালোচিত একটি প্রতিষ্ঠান। বলা হয়, তিয়ানশির ব্যাবসায়িক চক্রে যুক্ত হয়ে বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলার বহু মানুষ প্রতারিত, ক্ষতিগ্রস্ত ও সর্বশান্ত হয়েছে, বিশেষত কুমিল্লা, ঢাকার স্বল্পোন্নত অঞ্চলসমূহ, বরিশাল, মানিকগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, রাজশাহী, ফেনী, চাঁদপুরসহ আরও বিভিন্ন জেলা এবং বহু ব্যবহারকারী দাবি করেছেন, এর পণ্যের কোন কার্যকারিতা নেই এবং এর পণ্যগুলোর দাম বাজারে প্রাপ্ত বিখ্যাত কোম্পানিগুলোর পণ্যের তুলনায় ৪ থেকে ২০ গুণ বেশি।[২][৩][৪][৫][৬][৭][৮][৯][১০][১১] ২০১৫ সালে বাংলাদেশ সরকার বাংলাদেশে তিয়ানশি সহ দেশী-বিদেশী সকল প্রকার এমএলএম বাণিজ্য নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।[১২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "China's Tiens Group to enter Indian e-commerce market"। Economic Times। সংগ্রহের তারিখ ২২ মে ২০১৬ 
  2. "বরিশালে ডিভাইস দিয়ে সর্বরোগের চিকিৎসা! || দেশের খবর"জনকন্ঠ The Daily Janakantha (ইংরেজি ভাষায়)। ৬ অক্টোবর ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "কিশোরগঞ্জে চীনা সামগ্রী বিক্রি, চিকিৎসার নামে 'প্রতারণা'"bdnews24.com। ৭ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  4. "'তিয়ানশির' এক ওষুধেই সব রোগের চিকিৎসা! | অন্যান্য | The Daily Ittefaq"archive1.ittefaq.com.bdThe Daily Ittefaq। ১৬ জুন ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  5. "ডিগ্রি ছাড়াই চিকিৎসক, ফি ৫০০ টাকা!"archive.prothom-alo.comProthom Alo। ১৪ মে ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  6. Abul Kalam Azad (১৯ জুন ২০১৫)। "লাইসেন্সবিহীন এমএলএম কোম্পানির রমরমা ব্যবসা"প্রথম আলো Prothom AloRajshahi। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  7. Mohiuddin Molla (২৪ ডিসেম্বর ২০১৭)। "ডিসি এসপি হওয়ার দরকার নেই, মাসেই কোটিপতি! | বাংলাদেশ প্রতিদিন"Bangladesh PratidinCumilla। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  8. "নবাবগঞ্জে মানুষের জীবন নিয়ে খেলছে তিয়ানশি | মহানগর | Jugantor"jugantor.comThe Daily Jugantor। ২৯ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৯ নভেম্বর ২০১৯ 
  9. আব্দুর রাজ্জাক (২২ অক্টোবর ২০১৬)। "অষ্টধাতু আর অপচিকিৎসায় প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ | daily nayadiganta"The Daily Nayadigantaঘিওর, মানিকগঞ্জ। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ 
  10. "লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে কুমিল্লা থেকে আউট ফরেক্স আউটসোর্সিং"আমাদের সময়.কম - AmaderShomoy.comআমাদের সময়। ২৮ জুলাই ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  11. "হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে দুুুই বছরে লাপাত্তা ২ ডজন কোম্পানি || প্রথম পাতা"জনকন্ঠ (ইংরেজি ভাষায়)। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১০ নভেম্বর ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  12. ফখরুল ইসলাম (১১ এপ্রিল ২০১৫)। "সব এমএলএম অবৈধ"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মে ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]