তাফহীমুল কুরআন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

তাফহীমুল কুরআন হলো কোরআন সম্পর্কে মুসলিম দার্শনিক ও ইসলাম ধর্মের পণ্ডিত সাইয়েদ আবুল আলা মওদুদীর ভাষ্য অনুযায়ী ৬ খণ্ডে কোরআনের ব্যাখ্যামূলক অনুবাদমাওলানা মওদুদী এ তাফসীর লেখার জন্যে ৩০ বছর সময় ব্যয় করেন। তিনি ১৯৪২ সালে উর্দু ভাষায় শুরু করেন এবং ১৯৭২ সালে এটি সম্পন্ন করেন। [১]

বিবরণ[সম্পাদনা]

তাফহীম আধুনিকতাবাদী সংবিধানের সমন্বয় এবং আধুনিক ইসলামী চিন্তাধারাকে গভীরভাবে প্রভাবিত করেছে। এটা বিভিন্ন উপায়ে ঐতিহ্যগত তাফসীর থেকে থেকে ভিন্ন। এটি ধর্মগ্রন্থের উপর একটি ঐতিহ্যবাহী ভাষ্যের চেয়ে বেশি কারণ এতে অর্থনীতি, সমাজবিজ্ঞান, ইতিহাস এবং রাজনীতি সম্পর্কিত আলোচনা রয়েছে। তার পাঠ্যাংশে, মওদূদী কুরআনের দৃষ্টিকোণকে তুলে ধরেছেন এবং যুক্তি দিয়েছেন যে ইসলাম সকল গোলকের মধ্যে যথেষ্ট নির্দেশনা দেয়।

মওদুদীর আয়াতসমূহের পিছনে ঐতিহাসিক কারণ সহ মুহাম্মদের সুন্নাহ থেকে কুরআনের আয়াতের ব্যাখ্যা প্রদানের আদর্শ কৌশল ব্যবহার করেন। তাফহীম সাধারণভাবে আধুনিক বিশ্বের এবং বিশেষ করে মুসলিম সম্প্রদায়ের মুখোমুখি হওয়া সমস্যার সাথে ব্যাপকভাবে আলোচনা করে।[২]

নামকরণ[সম্পাদনা]

তাফহীম আরবী শব্দ ‘ফাহম’ থেকে এসেছে যার মানে "বোঝা"। [৩]

অনুবাদ[সম্পাদনা]

মওদুদী উর্দুতে তার রচনা লিখেছেন। এর পরে থেকে ইংরেজি, হিন্দি, বাংলা, মালয়ালাম, মারাঠি এবং পশতু সহ একাধিক ভাষায় এটি অনুবাদ করা হয়েছে। প্রথম ইংরেজী অনুবাদ করেছিলেন চৌধুরী আকবর খান।

২০০৬ সালে, ইসলামিক ফাউন্ডেশন কুরআনকে বোঝার পক্ষে শিরোনামের অধীনে জাফর ইসহাক আনসারী কর্তৃক একটি সংক্ষিপ্ত আকারের ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশ করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "অনুবাদকের কথা"www.banglatafheem.com (Bengali ভাষায়)। BanglaTafhim। ১০ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ 
  2. "Tafheem at ইসলাম.net.bd"www.islam.net.bd। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-০৭ 
  3. Al Maududi, chapter introductions

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]