জিমি বিঙ্কস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জিমি বিঙ্কস
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজেমস গ্রাহাম বিঙ্কস
জন্ম (1935-10-05) ৫ অক্টোবর ১৯৩৫ (বয়স ৮৫)
কিংস্টন আপোন হাল, ইয়র্কশায়ার, ইংল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৪১৯)
২১ জানুয়ারি ১৯৬৪ বনাম ভারত
শেষ টেস্ট২৯ জানুয়ারি ১৯৬৪ বনাম ভারত
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৫০২
রানের সংখ্যা ৯১ ৬,৯১০
ব্যাটিং গড় ২২.৭৫ ১৪.৭৩
১০০/৫০ -/১ -/১৮
সর্বোচ্চ রান ৫৫ ৯৫
বল করেছে - ৮৪
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/- ৮৯৫/১৭৬
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো .কম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৭

জেমস গ্রাহাম বিঙ্কস (ইংরেজি: Jimmy Binks; জন্ম: ৫ অক্টোবর, ১৯৩৫) ইয়র্কশায়ারের হাল এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১] ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৬০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ইংল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে ইয়র্কশায়ারের প্রতিনিধিত্ব করেছেন জিমি বিঙ্কস।[২] দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষকের দায়িত্ব পালন করতেন। ক্রিকেটবোদ্ধাদের অভিমত, তিনি তার সময়কালের সেরা উইকেট-রক্ষক ছিলেন। তাস্বত্ত্বেও সীমিত আকারের ব্যাটিংশৈলী উপস্থাপনার কারণে মাত্র দুই টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ ঘটে তার।

১৯৬৩-৬৪ মৌসুমে ভারতের বিপক্ষে দুই টেস্ট খেলেছিলেন। দলের অন্যান্য খেলোয়াড়ের আঘাতপ্রাপ্তির কারণে চার ইনিংসের তিনটিতেই ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমেছিলেন তিনি।[৩]

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

বিঙ্কসের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপের খেলোয়াড়ী জীবন অসাধারণ ছিল। জুন, ১৯৫৫ সালে ইয়র্কশায়ারের সাথে যুক্ত হন। এরপর থেকে প্রত্যেক মৌসুমেই চ্যাম্পিয়নশীপের খেলায় নিজেকে জড়িয়ে রেখেছেন। ১৯৬৯ মৌসুম শেষে এ ক্লাব থেকে অবসরগ্রহণ করেন। এ সময়কালে ইয়র্কশায়ার সাতবার কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশীপের শিরোপা জয় করে।

অর্জনসমূহ[সম্পাদনা]

সর্বকালের সেরা উইকেট-রক্ষকের তালিকায় বিঙ্কস ১৯শ স্থান দখল করে আছেন। নিজের নামের পাশে ১০৭১টি প্রথম-শ্রেণীর ডিসমিসাল লিখিয়েছেন। এক ইংরেজ মৌসুমে সর্বাধিক ক্যাচ তালুবন্দী করার রেকর্ড ধারন করে আছেন। ১৯৬০ সালে ৯৬ ক্যাচ নেয়ার পাশাপাশি আরো ১১ স্ট্যাম্পিংয়ের সাথে নিজনাম যুক্ত করেছেন।

১৯৬৭ সালে আর্থিক সুবিধাগ্রহণের বছর লাভ করেন যা ইয়র্কশায়ারের বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ২৪, ২৬ ও ২৭ জুন তারিখে হেডিংলিতে আর্থিক সুবিধাগ্রহণের খেলায় অংশ নেন তিনি।

১৯৬৯ সালে উইজডেন কর্তৃক বর্ষসেরা ক্রিকেটার মনোনীত হন তিনি।[৪]

মূল্যায়ণ[সম্পাদনা]

বিঙ্কসের স্বল্পকালীন আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়ী জীবন প্রসঙ্গে বিশিষ্ট ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার কলিন বেটম্যান মন্তব্য করেন যে, ইয়র্কশায়ারে অবস্থানকালে বিঙ্কস তার উদ্দামতাকে উপস্থাপন করতে ব্যর্থ হয়েছেন। এছাড়াও তিনি জরুরি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন।

ইয়র্কশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের সভাপতি স্যার উইলিয়াম ওরস্লি মন্তব্য করেন যে, ইয়র্কশায়ারের ক্রিকেটের ইতিহাসে কোন খেলোয়াড়ই জিমি বিঙ্কসের তুলনায় অধিক সময় দিতে পারেননি।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Warner, David (২০১১)। The Yorkshire County Cricket Club: 2011 Yearbook (English ভাষায়) (113th সংস্করণ)। Ilkley, Yorkshire: Great Northern Books। পৃষ্ঠা 363। আইএসবিএন 978-1-905080-85-4 
  2. "Jimmy Binks" (English ভাষায়)। www.cricketarchive.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৭ 
  3. Bateman, Colin (১৯৯৩)। If The Cap Fits (English ভাষায়)। Tony Williams Publications। পৃষ্ঠা 21। আইএসবিএন 1-869833-21-X 
  4. "Wisden Cricketers of the Year" (English ভাষায়)। CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২০০৯-০২-২১ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]