জন হ্যারি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
জন হ্যারি
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজন হ্যারি
জন্ম১ আগস্ট, ১৮৫৭
বলারাত, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
মৃত্যু২৭ অক্টোবর, ১৯১৯
ক্যান্টারবারি, ভিক্টোরিয়া, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৭০)
১১ জানুয়ারি ১৮৯৫ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩২
রানের সংখ্যা ১৪৬৬
ব্যাটিং গড় ৪.০০ ২৫.৭১
১০০/৫০ ০/০ ২/৯
সর্বোচ্চ রান ১১৪
বল করেছে ১৪২২
উইকেট ২৬
বোলিং গড় - ২৩.৭৬
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং - ৪/১৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/০ ১৯/৩
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৩ এপ্রিল ২০২০

জন হ্যারি (ইংরেজি: John Harry; জন্ম: ১ আগস্ট, ১৮৫৭ - মৃত্যু: ২৭ অক্টোবর, ১৯১৯) ভিক্টোরিয়ার বলারাত এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন।[১] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৮৯৫ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটে ভিক্টোরিয়া ও ইংরেজ ক্রিকেটে মেরিলেবোন ক্রিকেট ক্লাবের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি ডানহাতে অফ ব্রেক বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন তিনি।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৮৮৩-৮৪ মৌসুম থেকে ১৮৯৭-৯৮ মৌসুম পর্যন্ত জন হ্যারি’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। জন হ্যারি প্রকৃতই কার্যকরী খেলোয়াড় হিসেবে ক্রিকেটে নিজেকে পরিচিত করেছিলেন। চমৎকার ডানহাতি ব্যাটসম্যান, উপযুক্ত অফ স্পিনার, দক্ষ উইকেট-রক্ষক ও মিড-অফ অঞ্চলের দিকে দৃষ্টিনিবদ্ধকারীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছিলেন।

১৮৯০ সালে স্বল্প কয়েকটি খেলায় অংশগ্রহণের পর ইস্ট মেলবোর্ন দলের বাইরে অবস্থান করেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন জন হ্যারি। ১১ জানুয়ারি, ১৮৯৫ তারিখে অ্যাডিলেডে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

বেশ কয়েকবার অস্ট্রেলিয়া দলের সংরক্ষিত খেলোয়াড় হিসেবে বিদেশ গমন করেন। অনেকটা অপ্রত্যাশিতভাবে ১৮৯৪-৯৫ মৌসুমে মেলবোর্নে সফরকারী ইংরেজ দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৮৯৬ সালে ইংল্যান্ড সফরের জন্যে তাকে রাখা হয়। সাধারণ জনগণ তাকে জাতীয় দল থেকে বাদ দেয়ার বিষয়টি হাঁটুর আঘাতের কারণে জানলেও গোপনে দলে ভোটাভুটিতে বাদ দেয়া হয়। অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের কাছ থেকে £১৮০ পাউন্ড-স্টার্লিং লাভের মাধ্যমে সমঝোতায় আসেন।

ইংল্যান্ডে অবস্থান[সম্পাদনা]

নিজ উদ্যোগে ইংল্যান্ডে চলে যান। সেখানে লর্ডসের মাঠ কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন। ঐ পর্যায়ে তার বয়স ছিল ৪০। তাসত্ত্বেও কিছুটা সফলতার স্বাক্ষর রাখেন। দেশে ফিরে আসার পর দেড় মৌসুম ভিক্টোরিয়ার পক্ষে খেলেছিলেন। ক্রিকেটের পাশাপাশি বেসবসল খেলোয়াড় হিসেবেও নিজেকে পরিচিতি ঘটিয়েছিলেন।

২৭ অক্টোবর, ১৯১৯ তারিখে ৬২ বছর বয়সে ভিক্টোরিয়ার ক্যান্টারবারি এলাকায় জন হ্যারি’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Australia – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ৩ এপ্রিল ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]