চৈত্রকোল ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

চৈত্রকোল বাংলাদেশের রংপুর বিভাগের রংপুর জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার অন্তর্গত একটি ইউনিয়ন। ইউনিয়নটির পুরো নাম ১নং চৈত্রকোল ইউনিয়ন।

ঐতিহাসিক পটভূমি[সম্পাদনা]

জনশ্রুতি অনুযায়ী জানা যায় যে, উনবিংশ শতাব্দী ও তার পুর্বে এই এলাকা মূলত হিন্দু অধিষ্ঠিত এলাকা ছিল। তৎকালীন ভারতবর্ষের প্রশাসনিক ব্যবস্থা অনুযায়ী বড়লাটের নিয়ন্ত্রণে জমিদাররাই তখন এই এলাকা শাসন করত। সেই আমলে হিন্দু ধর্মীয় প্রথা অনুযায়ী হিন্দুদের দেহদাহর উদ্দেশ্যে একটি গণদাহ চুল্লি নির্মাণ করা হয়েছিল। সংস্কৃত ভাষায় এই দাহ চুল্লিকে চিতা বা চিত্রা বলা হত। এর থেকেই এই এলাকার নাম হয়ে দাঁড়ায় 'চিত্রকোল'। নামটি ১৯৩০ সালে বৃটিশ সরকার থেকে যখন এই এলাকার জরিপ করা হয়, তখন চিত্রের নিকটস্থ বিলের নাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়। প্রশাসনিক দপ্তর বিলের নিকটে অবস্থিত হওয়ায় সেইসময় ঐ ইউনিয়নের নামও চিত্রকোল বলে অভিহিত হয়। ১৯৪০ সালে চুড়ান্ত জরিপের পর সংস্কৃত ভাষা অনুযায়ী নামটি সংশোধন করে চৈত্রকোল নামটি পরিচিতি লাভ করে।[১]

ভৌগলিক অবস্থান[সম্পাদনা]

পীরগাঞ্জ সদর উপজেলা থেকে উত্তর-পশ্চিম কর্নারে ০১ নং চৈত্রকোল ইউনিয়ন অবস্থিত । অত্র ইউনিয়নের পুর্বে ০২ নং ভেন্ডাবাড়ী ইউনিয়ন, দক্ষিণে ০৫ নং মদনখালী ইউনিয়ন,উত্তরে মিঠাপুকুর উপজেলার ১০নং বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়ন অবস্থিত এবং পশ্চিমে ১২ নং মিলন পুর ইউনিয়ন অবস্থিত। দক্ষিণ-পশ্চিমে পীরগাঞ্জ উপজেলার ০৬ নং টুকুরিয়া ইউনিয়ন অবস্থিত। অত্র ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে সোনামতি নদী প্রবাহিত হয়েছে এবং চৈত্রকোল বিল হতে টুকুরিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে জয়ন্তীপুর ঘাট পর্যন্ত একটি নালা প্রবাহিত হয়েছে।[২]

প্রশাসনিক এলাকা[সম্পাদনা]

চৈত্রকোল ইউনিয়নের অধীনে মোট ২১ টি গ্রাম আছে।[৩]। চৈত্রকোল ইউনিয়নের গ্রামসমূহ—

  • চৈত্রকোল
  • গোবিন্দপুর
  • ভরট্ট জানপুর
  • খালিশা
  • বাসুদেবপুর
  • উত্তর দুর্গাপুর
  • জলাইডাঙ্গা
  • ভাদুরাঘাট
  • অনন্তরামপুর
  • খাসতালুক
  • চকবরখোদা।
  • ঝাড়আমবাড়ী
  • ভাবুনচুড়া
  • পালগড়
  • ছিলিমপুর
  • শাল্টী
  • দানিশনগর
  • ঝাড়বিশলা
  • হাজীপুর
  • রামচন্দ্রপুর
  • চককৃঞ্চপুর

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

[৪] চৈত্রকোল ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা: ২৭১৭১ জন। নারী: ১৩৩৫৮ জন, পুরুষ: ১৩৮১৩ জন। [৫]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

ইউনিয়নটির বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা নিম্নরূপ— [৫]

  1. সরকারী প্রাথমিক বিদ্যায়ল: ০৭টি
  2. রেজি প্রাথমিক বিদ্যায়ল: ০৬ টি
  3. মাধ্যমিক বিদ্যায়ল: ০৫টি
  4. নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যায়ল: ০৪ টি
  5. মাদ্রাসা: ০৫ টি

অন্যান্য প্রতিষ্ঠান[সম্পাদনা]

ইউনিয়নটির অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা নিম্নরূপ— [৫]

  • মসজিদ : ৫৭ টি
  • মন্দির: ০৫ টি
  • গীর্জা : ০৩ টি
  • ঈদগাহ্ মাঠ: ১৬ টি
  • স্বাস্থ্য কেন্দ্র: ০১টি
  • দাতব্য চিকিতসালয় : ০১টি
  • কমিউনিটি ক্লিনিক: ০৩ টি
  • ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র: ০১ টি
  • কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র: ০২টি

হাট-বাজার[সম্পাদনা]

ইউনিয়নটিতে ৩টি বাজার আছে।যথা— [৬]

  1. কলোনী বাজার, অনন্তরামপুর, কলোনীবাজার, পীরগঞ্জ, রংপুর।
  2. পীরের হাট, দানিশনগর (রাঙ্গামাটি), পীরগঞ্জ, রংপুর।
  3. সাল্টী সমসদিঘী বাজার, শাল্টী, পীরগঞ্জ, রংপুর।

দর্শনীয় স্থান [৭][সম্পাদনা]

  1. সাধক কবি কাজি হেয়াত মামুদ এর মাজার শরীফ

কিভাবে যাওয়া যায়ঃ বড় দরগাহ মহা সড়ক হইতে এগার কি: মি: পশ্চিমে ভেন্ডাবাড়ী হয়ে ২কি.মি দক্ষিণে সোনামতি ব্রিজ হতে ১কিমি পশ্চিমে ঝাড়বিশলা গ্রামে প্রায়াত সাধক কবি কাজী হেয়াত মামুদ (র:) এর মাজার শরীফ অবস্থিত।

  1. ইকো পার্ক

কিভাবে যাওয়া যায়ঃ ভেন্ডাবাড়ী হয়ে ৩কি.মি. পশ্চিমে দানিশনগর গ্রামে ইকো পার্ক অবস্থিত।

  1. মারিয়া গীর্জা

কিভাবে যাওয়া যায়ঃ ভেন্ডাবাড়ী হয়ে ৩কি.মি. দক্ষিণে ঝাড়ামবাড়ী হয়ে ৪ কিমি পশ্চিমে ছিলিমপুর হয়ে ১ কি.মি. দক্ষিণে থালিশা গ্রামে মারিয়া গীর্জা অবস্থিত।

প্রখ্যাত ব্যাক্তিত্ব[সম্পাদনা]

কাজি হেয়াত মামুদ[৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]