গ্রাহাম শ্যাভলিয়ের

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গ্রাহাম শ্যাভলিয়ের
গ্রাহাম শ্যাভলিয়ের.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামগ্রাহাম অ্যান্টন শ্যাভলিয়ের
জন্ম(১৯৩৭-০৩-০৯)৯ মার্চ ১৯৩৭
কেপ টাউন, কেপ প্রদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা
মৃত্যু১৪ নভেম্বর ২০১৭(2017-11-14) (বয়স ৮০)
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনস্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ২৩১)
২২ জানুয়ারি ১৯৭০ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৪৩
রানের সংখ্যা ৮৪
ব্যাটিং গড় ০.০০ ৪.৯৪
১০০/৫০ ০/০ -/-
সর্বোচ্চ রান ০* ১৩*
বল করেছে ২৫৩ ৯৪৩৫
উইকেট ১৫৪
বোলিং গড় ২০.০০ ২৩.৭২
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৬৮ ৭/৫৭
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ১৫/-

গ্রাহাম অ্যান্টন শ্যাভলিয়ের (ইংরেজি: Grahame Chevalier; জন্ম: ৯ মার্চ, ১৯৩৭ - মৃত্যু: ১৪ নভেম্বর, ২০১৭) কেপ প্রদেশের কেপ টাউনে জন্মগ্রহণকারী দক্ষিণ আফ্রিকান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭০ সালে সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের সৌভাগ্য হয় তার।[১][২]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের প্রতিনিধিত্ব করেছেন তিনি। দলে তিনি মূলতঃ স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স বোলিংয়ে পারদর্শীতা দেখিয়েছেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন গ্রাহাম শ্যাভলিয়ের

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ওয়েস্টার্ন প্রভিন্সের সদস্য ছিলেন গ্রাহাম শ্যাভলিয়ের। এ দলটিতে ১৯৬৬-৬৭ মৌসুম থেকে ১৯৭৩-৭৪ মৌসুম পর্যন্ত খেলেন। তন্মধ্যে, ১৯৭০-৭১ মৌসুমে ট্রান্সভালের বিপক্ষে ৭/৫৭ লাভের মাধ্যমে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিজস্ব সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন।[৩]

একই মৌসুমের শেষার্ধ্বে দক্ষিণ আফ্রিকার বহিঃএকাদশের সদস্যরূপে ট্রান্সভালের বিপক্ষে পরবর্তী মৌসুমের জন্য প্রস্তুতিমূলক খেলায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে খেলেন। খেলায় তিনি ৭/১০৭ ও ৩/৬৬ পান।[৪]

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন থামি সোলকিল। ২২ জানুয়ারি, ১৯৭০ তারিখে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।

১৯৬৯-৭০ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়া দল দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে আসে। কেপ টাউনে অনুষ্ঠিত সিরিজের প্রথম টেস্টে অভিষেক পর্ব সম্পন্ন হয় গ্রাহাম শ্যাভলিয়েরের। খেলায় তিনি পাঁচ উইকেট লাভ করে দলের জয়ে প্রভূতঃ ভূমিকা রাখেন।[৫]

তবে, সিরিজের বাদ-বাকী খেলাগুলো থেকে তাকে বিরত রাখা হয়। এছাড়াও, ঐ সিরিজের পরপরই দক্ষিণ আফ্রিকাকে বর্ণবাদী আচরণের প্রেক্ষিতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়েছিল। এরপর আর তাকে টেস্ট আঙ্গিনায় দেখা যায়নি। ১৯৭০ ও ১৯৭১-৭২ মৌসুমে যথাক্রমে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য তাকে দলে রাখা হলেও উভয় সফরই বাতিল হয়ে যায়।

খেলার ধরন[সম্পাদনা]

শ্যাভলিয়ের মূলতঃ স্লো লেফট-আর্ম অর্থোডক্স স্পিন বোলার হিসেবে দলে অবদান রাখতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতে পারতেন তিনি। প্রকৃতপক্ষেই তিনি ১১ নম্বর ব্যাটসম্যানের আদর্শরূপ ছিলেন। সকল প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে কেবলমাত্র একবার দুই অঙ্কের কোঠায় রানকে নিয়ে যেতে সক্ষম হন। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রান তুলেন অপরাজিত ১১।

দেহাবসান[সম্পাদনা]

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত ছিলেন তিনি। নুন শ্যাভলিয়ের নাম্নী এক রমণীর পাণিগ্রহণ করেন। পরবর্তীতে রন বুইসিন, স্টিভেন করস্টেন, আলিডা শ্যাভলিয়েরকে বিয়ে করেন। জুলি বুইসিন, জেনেভিভ করস্টেন, বাইরন শ্যাভলিয়ের সন্তান ও মাইকেলা করস্টেন, টিমোথি করস্টেন, কেরি বুইসিন, ক্রিস্টি বুইসিন, ম্যাথু শ্যাভলিয়ের নাতি-নাতনি রয়েছে।

১৪ নভেম্বর, ২০১৭ তারিখে ৮০ বছর বয়সে গ্রাহাম শ্যাভলিয়েরের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Grahame Chevalier"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 
  2. "In Memoriam 2017"International Cricket Council। সংগ্রহের তারিখ ২ জানুয়ারি ২০১৮ 
  3. "Western Province v Transvaal 1970-71"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৬ 
  4. "The Rest v Transvaal XI 1970-71"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৬ 
  5. "South Africa v Australia, Cape Town 1969-70"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজনCricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২৩ জুন ২০১৬ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]