গিরিডি লোকসভা কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গিরিডি লোকসভা কেন্দ্র
Jharkhand Wahlkreise Lok Sabha.svg
ঝাড়খণ্ডএর লোকসভা কেন্দ্র
অস্তিত্ব১৯৬২-বর্তমান
সংরক্ষণনা
বর্তমান সাংসদচন্দ্র প্রকাশ চৌধুরী
রাজনৈতিক দলঅল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়ন
নির্বাচনের বছর২০১৯
রাজ্যঝাড়খণ্ড

গিরিডি লোকসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ১৪ টি লোকসভা কেন্দ্রের একটি এবং ১৯৬২ সালের লোকসভা কেন্দ্রটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয় এবং মোট ৬ টি বিধানসভা কেন্দ্র নিয়ে গঠিত। এই লোকসভা কেন্দ্রটি গিরিডি, বোকারো এবং ধানবাদ জেলাগুলির কিছু অংশ দ্বারা গঠিত এবং সদর দফতর গিরিডি শহরে অবস্থিত। লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত এলাকার সরকারি ভাষা হল হিন্দি।

এই লোকসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত সদস্য ভারতীয় সংসদের লোকসভাতে প্রতিনিধিত্ব। প্রতি ৫ বছর অন্তঃর কেন্দ্রটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিশেষ করণে ৫ বছরের পূর্বেই নির্বাচন হয়, যা উপনির্বাচন নামে পরিচিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

এই লোকসভা কেন্দ্রে ১৯৬২ সালে প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় এবং ২০১৯ সালে সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিধানসভা কেন্দ্র গুলি[সম্পাদনা]

লোকসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের ৮১ টি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে ৬ টি বিধানসভা কেন্দ্র নিয়ে গঠিত।[১] বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচিত সদস্য ঝাড়খণ্ড বিধানসভাতে প্রতিনিধিত্ব করে। প্রতি ৫ বছর অন্তঃর কেন্দ্রটিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এই ৬ টি বিধানসভা কেন্দ্র সর্বশেষ ২০১৪ সালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ৬ টি কেন্দ্রের মধ্যে কোন বিধানসভা কেন্দ্রই তফসিলী জাতি অথবা তফসিলী উপজাতিদের সংরক্ষিত নয়। এই ৬ টি বিধানসভাতে প্রথম ২০০৫ সালে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ঝাড়খণ্ড বিধানসভা গঠনের জন্য।

গিরিডি বিধানসভা কেন্দ্র়়

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৩২ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

গোমিয়া বিধানসভা কেন্দ্র

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৩৪ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

তুন্ডি বিধানসভা কেন্দ্র

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৪২ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

ডুমরি বিধানসভা কেন্দ্র

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৩৩ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

বেরমো বিধানসভা কেন্দ্র

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৩৫ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

বাঘমারা বিধানসভা কেন্দ্র

এই বিধানসভা কেন্দ্রটি ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা কেন্দ্রগুলির মধ্যে ৪৩ নং বিধানসভা কেন্দ্রের। এই কেন্দ্রটি তফসিলী জাতি ও তফসিলী উপজাতিদের জন্য সংরক্ষিত নয়।

বর্তমান ও প্রাক্তন বিজয়ী সাংসদদের তালিকা[সম্পাদনা]

নিচের সারণীটি শুরু থেকে শেষ নির্বাচন পর্যন্ত এই সংসদীয় আসনের সকল বিজয়ী ও প্রাক্তন সংসদ সদস্যের নাম উপস্থাপন করে। আসনটির বর্তমান সংসদ সদস্য হলেন অল ঝাড়খণ্ড স্টুডেন্টস ইউনিয়ন-এর শ্রী চন্দ্র প্রকাশ চৌধুরী।[২]

বছর নাম দল
১৯৬২ বাটেশ্বর সিংহ স্বতন্ত্র পার্টি
১৯৬৭ ইমতিয়াজ আহমেদ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস
১৯৭১ চাপলেন্দু ভট্টাচারিয়া ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস
১৯৭৭ রামদাস সিং জনতা পার্টি
১৯৮০ বিন্দেশ্বরী দুবে ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস
১৯৮৪ সরফরাজ আহমেদ ভারতীয় জাতীয় কংগ্রেস
১৯৮৯ রামদাস সিং ভারতীয় জনতা পার্টি
১৯৯১ বিনোদ বিহারী মাহাতো ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা
১৯৯৬ রবীন্দ্র কুমার পান্ডে ভারতীয় জনতা পার্টি
১৯৯৮ রবীন্দ্র কুমার পান্ডে ভারতীয় জনতা পার্টি
১৯৯৯ রবীন্দ্র কুমার পান্ডে ভারতীয় জনতা পার্টি
২০০৪ টেক লাল মাহাতো ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা
২০০৯ রবীন্দ্র কুমার পান্ডে ভারতীয় জনতা পার্টি
২০১৪ রবীন্দ্র কুমার পান্ডে ভারতীয় জনতা পার্টি
২০১৯ চন্দ্র প্রকাশ চৌধুরী সমগ্র ঝাড়খণ্ড ছাত্র ইউনিয়ন

নির্বাচনের ফলাফল[সম্পাদনা]

সাধারণ নির্বাচন, ২০১৯
দল প্রার্থী ভোট % ±%
এজেএসইউ চন্দ্র প্রকাশ চৌধুরী ৬,৪৮,২৭৭ ৫৮.৫৭
জেএমএম জাগরনাথ মাহাতো ৩,৯৯,৯৩০ ৩৬.১৩
সংখ্যাগরিষ্ঠতা ২,৪৮,৩৪৭ ২২.৪৪
ভোটার উপস্থিতি ১১,০৭,১৫৬ ৬৭.১২
মোট ভোট ১৬,৪৯,৪১৩
জেএমএম থেকে এজেএসইউ অর্জন করেছে সুইং

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://www.elections.in/jharkhand/parliamentary-constituencies/giridih.html?utm_source=from_pctrack
  2. "All Members of Lok Sabha (Since 1952)"New Delhi: Lok Sabha Secretariat। ১৬ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৭ আগস্ট ২০১৫ 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Surjit S. Bhalla. Citizen Raj: Indian Elections 1952-2019 (2019 [১]
  • Prannoy Roy, Dorab R. Sopariwala . he Verdict:Decoding India's Elections (2019) [২]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]