গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্ব

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্ব মূলকথা হলো গণতান্ত্রিক রষ্ট্রসমুহ নিজেদের মধ্যে যুদ্ধে জড়ানোর সম্ভাবনা কম অন্যান্য সরকার ব্যবস্থার দেশসমুহ থেকে।তাছাড়া গণতান্ত্রিক দেশগুলো নিজেদের মধ্যে শান্তি সম্পর্ক রাখার চেষ্টা করে।জার্মান দার্শনিক ইমানুয়েল কান্ট সর্বপ্রথম এই তত্ত্ব প্রকাশ করেন এবং আধুনিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পরে এই তত্ত্বের আলোকে সারা বিশ্বকে গণতন্ত্রের জন্য নিরাপদ করার আস্থা ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্র ১৮৩২ সালে মনরো ডকট্রিনের মূলকথাই হলো গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্ব ।

মূলকথাগুলো[সম্পাদনা]

গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্ব মূলকথাগুলো কয়েকটি বিষয়ের উপর ভাগ করা যায়-

  • গণতন্ত্রে নাগরিকদের মতামতের প্রধান্য থাকায় সরকার চাইলেই যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারে না।
  • নির্বাচিত প্রতিনিধিরা সাধারণ ভোটারদের কাছে জবাবদিহি করতে হয় বলে তারা শান্তির উপর জোর দেয়।
  • সরকার অন্যদেশের সাথে সংঘাতে পরলে অভ্যন্তরীণ গনতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানের মতামত গ্রহণ করে থাকে।
  • গণতান্ত্রিক রষ্ট্রসমুহ একই রকম পলিসির দেশগুলোর সাথে সুসুম্পর্ক থাকে।
  • গণতান্ত্রিক রষ্ট্রসমুহ সম্পদের পরিমাণ যাতে কমে না যায় সেজন্য সবসময় যুদ্ধ পরিহার করতে চায়।

সমালোচনা[সম্পাদনা]

তবে অনেকে মনে করেন শান্তি কাঠামোগত কারণগুলোর উপরেই নির্ভরশীল, রাষ্ট্রের সরকার পদ্ধতির উপর নয়। গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্বের একজন সমালোচক সেবাশ্চিয়ান রসাটো এক্ষেত্রে গণতান্ত্রিক শান্তি তত্ত্বকে চ্যালেঞ্জ করার জন্য স্নায়ুযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে দক্ষিণ আমেরিকার বাম-প্রবণ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রসমূহের প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আচরণের দিকে আঙ্গুল তোলেন।

তবে উদারগণতান্ত্রিকরা মনে করেন অর্থনৈতিক আন্তঃনির্ভরশীলতার ফলে বাণিজ্যিক সম্পর্কে আবদ্ধ রাষ্ট্রসমূহের মধ্যে যুদ্ধের সম্ভাবনা কমে আসে। অন্যদিকে বাস্তববাদীগণ যারা এই তত্ত্ব মানেন না বলেন অর্থনৈতিক আন্তঃনির্ভরশীলতা সংঘাতের সম্ভাবনা কমায় না, বরং বাড়িয়ে দেয়।

[১]

  1. government, Robert Longley Robert Longley is a U. S.; since 1997, history expert with over 30 years of experience in municipal government He has written for ThoughtCo। "What Is the Democratic Peace Theory? Definition and Examples"ThoughtCo (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-০৭