ক্যাল অর্কো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ক্যাল অর্কোয় সুরোপদোমর্ফার পদচিহ্ন

ক্যাল অর্কো (স্পেনীয়: Cal Orcko) প্রাগৈতিহাসিক যুগের জীবন গাঁথায় জীবাশ্ম প্রমাণে ব্যবহৃত জীবাশ্মবিজ্ঞান সম্পর্কীয় বলিভিয়ার একটি স্থান। ধারনার অতীত হাজার হাজার ডাইনোসরের পায়ের ছাপে ভরা এ স্থানটি সুদৃঢ় দেয়াল দিয়ে ঘিরে রাখা হয়েছে।[১] সাক্রে নগরীর কাছেই এলাকাটির অবস্থান। পর্বতসঙ্কুলময় বিস্তৃত এলাকাটি ৭৩ ডিগ্রী ঢালু অবস্থানে রয়েছে। স্থানটি ৮০ মিটার (২৬০ ফুট) উঁচু ও ১,২০০ মিটার (৩,৯০০ ফুট) লম্বা। অদ্যাবধি খড়ির পাহাড় যুগ বা ক্রেটাসিয়াস যুগের ২৯৩ প্রজাতির ডাইনোসরের ৫,০০০-এর অধিক পায়ের ছাপ চিহ্নিত করা হয়েছে।[২] খনি আবিষ্কার হওয়ায় সিমেন্ট কারখানা এখানে গড়ে উঠেছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৯৮৫ সালে প্রথমবারের মতো এ স্থানের সন্ধান মেলে। তবে, ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৮ সময়কালে বলিভীয়, ইউরোপীয় ও আমেরিকান জীবাশ্মবিদদেরকে ক্রিস্টিয়ান মেয়ের নেতৃত্ব দেন ও এ সংরক্ষণাগারের কথা ঘোষণা করেন।

কর্মীরা দীর্ঘদিন ধরে এর খনন কার্য পরিচালনা করলেও খুব কমই আশ্চর্যান্বিত হয়েছিল। তবে, ১৯৯৪ সালে স্থানীয় সরীসৃপ বিশেষজ্ঞের চোখে প্রথমবারের মতো এর অস্তিত্ব ধরা পড়ে। তাস্বত্ত্বেও তিনি ঐ স্থানে কোন বিদেশী বিশেষজ্ঞের কাছে ঐ এলাকা সম্পর্কে কোন তথ্য প্রদান করেননি। তবে, পর্যটনের বিষয়ে প্রামাণ্যচিত্র সুইজারল্যান্ডে প্রকাশ করা হলে প্রাগৈতিহাসিক বিষয়ে গবেষক ক্রিস্টিয়ান মেয়েরের হৃদস্পন্দনকে আন্দোলিত করে। ডাইনোসরের পদচিহ্ন বিষয়ে বিশেষজ্ঞ মেয়ের সাক্রে ভ্রমণে যান ও তা দেখে মুগ্ধ হয়ে যান। ‘এটি এমন এক দৃশ্যমালা যা আপনার শ্বাস-প্রশ্বাসকে আটকে দেবে।’ - মেয়েরের মন্তব্য। ঐ গবেষক ব্যক্তিগতভাবে কানাডা থেকে শুরু করে সিসিলি দ্বীপপুঞ্জ, তুর্কমেনিস্তানসহ বিশ্বের যাবতীয় গুরুত্বপূর্ণ সংরক্ষণাগার সম্পর্কে অবগত ছিলেন। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আরও আটটি সংরক্ষণাগারের সন্ধান পাওয়া গেছে যা নিয়ে গবেষণাকর্ম অব্যাহত রয়েছে।

প্রভাব[সম্পাদনা]

এ স্থানটি আবিষ্কারের ফলে ইতিহাস ও বিজ্ঞানে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। খড়ির পাহাড় যুগ বা ক্রেটাসিয়াস যুগের শেষে ও প্রায় ৬৬ মিলিয়ন বছর আগেকার টারশিয়ারী যুগের শুরুতে ঘটে যাওয়া ঐ সময়ের চিত্রের সাথে সম্পর্কযুক্ত হওয়ায় নতুন দিগন্তের উন্মোচন ঘটায়। এ তথ্য প্রকাশিত হওয়ায় ডাইনোসরের জীববৈচিত্র্যের সংখ্যাগত দলিল পৃথিবীর অন্য যে-কোন স্থানের তুলনায় বেশীরূপে আখ্যায়িত হয়েছে। ২৯৩ প্রজাতির ডাইনোসরের পায়ের ছাপ চিহ্নিত করা হয়েছে। এ স্থান আবিষ্কারের পূর্বে সর্ববৃহৎ ও সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে তুর্কমেনিস্তানের খোদা-পিল-আটা এবং পর্তুগাল, গ্রেট ব্রিটেন, স্পেনসুইজারল্যান্ডই ভূমিকা রাখতো। ঐগুলোর তুলনায় ক্যাল অর্কো বেশ কয়েকগুণ বড়। এছাড়াও কেবলমাত্র দুইটি প্রজাতির ২২০টি পদচিহ্ন বিশ্বের অন্যত্র পাওয়া গেছে।

অন্যতম আবিষ্কার হিসেবে ছিল অ্যাঙ্কুইলোসুরিও নামীয় তৃণভোজী চতুষ্পদী প্রাণীর পদচিহ্ন যা দক্ষিণ আমেরিকা থেকে বিলুপ্ত হয়েছে বলে বিশ্বাস করা হয়ে থাকে। ঐ প্রাণীটি প্রায় আট টন ওজনের ছিল। কিন্তু পদচিহ্নের মাধ্যমে দেখা যায়, এটি বেশ লম্বা ছিল। দীর্ঘ পা ও হাল্কা গড়নের সরীসৃপ ছিল এটি।

ক্রেটাসিয়াস উদ্যান[সম্পাদনা]

ক্যাল অর্কো’র সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে মার্চ, ২০০৬ সালে দর্শনীয় ক্রেটাসিয়াস উদ্যান প্রতিষ্ঠা করা হয়। এতে ঐ সময়ে বিলুপ্ত প্রাণীদের বিভিন্ন প্রজাতির একই প্রতিকৃতি অঙ্কন করে স্থানটিতে তাদের পদচিহ্ন দেখানো হয়েছে। এছাড়াও, শব্দ ও দৃশ্যচিত্র সহযোগে প্রাক-ঐতিহাসিক যুগকে তুলে ধরতে দর্শককে ধারনা দেয়া হয়। বিআইডি, ফানসেসা, সবোসে’র ন্যায় বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় বলিভীয় উদ্ভূত ভাস্করদের সহায়তায় এ উদ্যান সৃষ্টি করা হয়েছে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Avakian, Talia (২৬ জুন ২০১৫)। "There's a wall in Bolivia that's covered in thousands of dinosaur footprints, and it's becoming a major tourist attraction" 
  2. Belcher, Ian (১৫ জুলাই ২০১১)। "Dinosaur tracking in Bolivia" – The Guardian-এর মাধ্যমে। 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ১৯°০০′১০″ দক্ষিণ ৬৫°১৪′১৪″ পশ্চিম / ১৯.০০২৮° দক্ষিণ ৬৫.২৩৭২° পশ্চিম / -19.0028; -65.2372