উমা সরেন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উমা সরেন
ᱩᱢᱟ ᱥᱚᱨᱮᱱ
লোকসভা সদস্য
কাজের মেয়াদ
২৬ মে ২০১৪ – ২৩ মে ২০১৯
পূর্বসূরীপুলিন বিহারী বাস্কে
উত্তরসূরীকুনার হেমব্রম
সংসদীয় এলাকাঝাড়গ্রাম
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1984-05-09) ৯ মে ১৯৮৪ (বয়স ৩৬)
রাজনৈতিক দলসর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস
বাসস্থানঝাড়গ্রাম, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত
প্রাক্তন শিক্ষার্থীনীল রতন সরকার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল
জীবিকাডাক্তার

উমা সরেন (সাঁওতালি:ᱩᱢᱟ ᱥᱚᱨᱮᱱ) হলেন একজন ভারতীয় রাজনীতিবিদ, যিনি ঝাড়গ্রাম থেকে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে লোকসভা সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ভারতের প্রথম সাঁওতালি নারী লোকসভা সদস্য।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

উমা সরেন ১৯৮৪ সালের ৯ মে জন্মগ্রহণ করেন। ২০১২ সালে নীল রতন সরকার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি লাভ করেন তিনি। তিনি সাঁওতালি জাতিসত্তার অন্তর্গত।[১][২]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

২০১২ সালে উমা সরেন জঙ্গলমহল ভূমিপুত্র ও কন্যা মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনে যোগ দেন। সংগঠনটি পশ্চিমবঙ্গ-ঝাড়খণ্ড সীমান্তের দুর্গম অঞ্চলে বসবাসকারী পিছিয়ে পড়া জাতিসত্তার মানুষদের মাঝে চিকিৎসা সাহায্য প্রদান করত।[৩]

২০১৪ সালে ৫ মে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস ঘোষণা দেয় যে, উমা সরেন ঝাড়্গ্রাম থেকে ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে ঝাড়গ্রাম থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।[৪] তিনি সিপিআইএমের পুলিন বিহারী বাস্কের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।[৫] নির্বাচনে তিনি ৩,৫০,৭৫৬ ভোটের ব্যবধানে পুলিন বিহারী বাস্কেকে পরাজিত করেন, ব্যবধানটি ছিল সেবারের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে সর্বোচ্চ।[৬] তিনি ভারতীয় লোকসভায় প্রথম সাঁওতালি নারী হিসেবে নির্বাচিত হন।[২][৬]

২০১৮ সালে তিনি ভারতীয় পার্লামেন্টারি দলের সদস্য হিসেবে ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের ১৩৮ তম সম্মেলনে অংশ নিতে সুইজারল্যান্ডের জেনেভা গমন করেন। সাত সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধি দলের মাঝে তিনিই ছিলেন একমাত্র নারী।[৭][৮][৯] ২০১৮ সালের মে মাসের ২৮ তারিখে উমা সরেন প্রথম ব্যক্তি হিসেবে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নে সাঁওতালি ভাষায় বক্তৃতা প্রদান করেন।[৭]

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে তাকে মনোনয়ন না দেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস[১০] তার পরিবর্তে ঝাড়গ্রাম থেকে বীরবহ সরেনকে মনোনয়ন প্রদান করে সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস[১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "32 newly elected under-35 MPs & what they intend to do for their constituencies"The Economic Times। ২৫ মে ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  2. "If elected, Uma Soren would be the first woman Santhal MP of India"। Trinamool Congress। ৫ মে ২০১৪। ১৬ মার্চ ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  3. "'অচেনা' উমার টিকিট তৃণমূলে, হিসাব মেলাতে ধন্দে ঝাড়গ্রাম"। ৮ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  4. "Trinamool Congress list of candidates for Lok Sabha polls"Zee News। ৫ মার্চ ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  5. "Campaigning ends for penultimate round of Lok Sabha polls 2014"India Today। ৫ মে ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  6. Das, Madhuparna (২৩ মে ২০১৪)। "West Bengal's biggest winner put under party's leash"The Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  7. "Santhali to ring out at Inter Parliamentary Union in Geneva"Hindustan Times। ২৩ মার্চ ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  8. Mahato, Sukumar (২৮ মে ২০১৮)। "Santhal MP brings tribal issues in Geneva focus"The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  9. Bhattacharya, Snignendhu (৯ আগস্ট ২০১৮)। "Santhali becomes India's first tribal language to get own Wikipedia edition"Hindustan Times। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  10. "Trinamul MPs who were not renominated"The Telegraph। ১২ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৯ 
  11. "Mamata releases TMC list for all 42 WB seats; alleges attempt to bribe voters"The Economic Times। ১২ মার্চ ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১৭ মার্চ ২০১৯