ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ইনফরমেশন টেকনোলজি, কল্যাণী

স্থানাঙ্ক: ২২°৫৭′৩৯.৮২″ উত্তর ৮৮°২৬′০.৪″ পূর্ব / ২২.৯৬১০৬১১° উত্তর ৮৮.৪৩৩৪৪৪° পূর্ব / 22.9610611; 88.433444
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি, কল্যাণী
ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কল্যাণী
Indian Institute of Information Technology, Kalyani.svg
নীতিবাক্যবিদ্যাধন সর্বধনপ্রধানম্
ধরনসরকারী-বেসরকারী অংশীদারিত্ব
স্থাপিত২০১৪
চেয়ারম্যানমনোজ কোহলি
পরিচালকসান্তনু চট্টোপাধ্যায়[১]
শিক্ষায়তনিক ব্যক্তিবর্গ
১৯ (২০২২)[২]
শিক্ষার্থী৩৯৯ (২০২২)[২]
স্নাতক৩৫৬ (২০২২)[২]
৪৩ (২০২২)[২]
অবস্থান, ,
ভারত

২২°৫৭′৩৯.৮২″ উত্তর ৮৮°২৬′০.৪″ পূর্ব / ২২.৯৬১০৬১১° উত্তর ৮৮.৪৩৩৪৪৪° পূর্ব / 22.9610611; 88.433444
শিক্ষাঙ্গনশহুরে
৫০ একর (০.২০ কিমি)
পোশাকের রঙ     নীল
     আকাশী
ওয়েবসাইটiiitkalyani.ac.in উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন

ইন্ডিয়ান ইনফরমেশন টেকনোলজি ইনস্টিটিউট, কল্যাণী (আইআইআইটি কল্যাণী) একটি ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যা পশ্চিমবঙ্গের কল্যাণীতে অবস্থিত। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি সরকারী বেসরকারী অংশীদারি (এন-পিপিপি) মানদন্ড ব্যবহার করে ভারত সরকারের কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক তথা বর্তমানে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রক, পশ্চিমবঙ্গ সরকার এবং শিল্প অংশীদার (কোল ইন্ডিয়া এবং রোল্টা) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।[৩] জেইই মেইনে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে আইআইআইটি কল্যাণীতে ভর্তিচ্ছুদের ভর্তি করা হয়।[৪] আইআইআইটি আইনের আওতায় ২০১৭ সালের মার্চ মাসে মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক আইআইআইটি কল্যাণীকে ইনস্টিটিউট অফ ন্যাশনাল ইম্পরটেন্ট (আইএনআই) বা রাষ্ট্রীয় মহত্বের প্রতিষ্ঠান মর্যাদা প্রদান হয়।[৫] প্রতিষ্ঠানটি আইআইআইটি কল্যাণীর পরিচালনা পর্ষদ পরিচালনা করেন, যার সদস্যদের মধ্যে ভারত সরকার (এমএইচআরডি), পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রতিনিধি, শিল্প অংশীদার এবং একাডেমিয়া, শিল্প ও নাগরিক সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।[৬] বীরেন্দ্র কুমার তেওয়ারি (পরিচালক, আইআইটি খড়গপুর) আইআইআইটি কল্যাণীর মেন্টর-পরিচালক এবং আইআইটি খড়গপুর এটির মেন্টর ইনস্টিটিউট।[৭] ২০২০ সালের ১৬ ডিসেম্বর প্রফেসর ড. সান্তনু চট্টোপাধ্যায় ইনস্টিটিউটের পরিচালক হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জেআইএস কলেজ অফ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে অবস্থিত অস্থায়ী ক্যাম্পাস থেকে আইআইইএসটি শিবপুরের সহায়তায়, জুলাই ২০১৪ এর প্রথম সপ্তাহ থেকে ক্লাস শুরু হয়। ১৯ আগস্ট ২০১৪ সালে আইআইইএসটি শিবপুরের পরিচালক ও প্রাক্তন পরামর্শদাতা পরিচালক অজয় কুমার রায় প্রতিষ্ঠানটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।[৮] ২০১৭ সালে আইআইটি খড়গপুরকে এটির পরামর্শদাতা নিয়োগ করা হয় এবং এরপর থেকে প্রতিষ্ঠানটি ওয়েবেল আইটি পার্কের ট্রানজিট ক্যাম্পাস থেকে কাজ করে আসছে।

ক্যাম্পাস[সম্পাদনা]

৩০শে জুন, ২০১৫ সালে মুখ্যমন্ত্রী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কল্যাণীতে ভারতীয় তথ্য প্রযুক্তি ইনস্টিটিউট (আইআইআইটি) ক্যাম্পাসের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। ক্যাম্পাসটি কল্যাণী শহরের উপকণ্ঠে কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়েতে ৫০ একর জায়গায় নির্মিত হবে।[৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "অধ্যাপক সান্তানু চট্টোপাধ্যায় ইনস্টিটিউটের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০ তারিখে."iiitkalyani.ac.in। ১৩ নভেম্বর ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারী ২০২১ 
  2. "এনআইআরএফ ডাটা ২০২২" (PDF)। আইআইআইটি কল্যাণী। 
  3. "আইআইটি সম্পর্কে কল্যাণী – ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি, কল্যাণী"iiitkalyani.ac.in। ২৬ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৮-২৯ 
  4. "ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি"iiitkalyani.ac.in। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২১ 
  5. "জাতীয় গুরুত্বের প্রতিষ্ঠান"mhrd.gov.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-১২-২৫ 
  6. "ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ইনফরমেশন টেকনোলজি"iiitkalyani.ac.in। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২১ 
  7. "আইআইটি কল্যাণী সম্পর্কে"iiitkalyani.ac.in 
  8. "জুলাই থেকে ক্লাস শুরু করবে বাংলার প্রথম আইআইটি"বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড। ২৪ জুন ২০১৪। 
  9. পোদ্দার, আশিস। "কল্যাণী আইটি ইনস্টিটিউটের জন্য জমি চিহ্নিত"দ্য টাইমস অফ ইন্ডিয়া জুলাই ১০, ২০১১, ০৫:০০ আইএসটি। নদিয়া। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৩, ২০২১ 
  10. "কল্যাণীতে আইআইটি-র শিলান্যাস করলেন মমতা"ইউনাইটেড নিউজ অফ ইন্ডিয়া জুন ৩০, ২০১৫ ৯:২৯ পিএম আইএসটি। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৩, ২০২১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]