অঞ্জু ঘোষ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
অঞ্জু ঘোষ
জন্ম অঞ্জু ঘোষ
ভাঙ্গা,ফরিদপুর
পেশা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী
যে জন্য পরিচিত চলচ্চিত্র অভিনেত্রী

অঞ্জু ঘোষ একজন ভারতীয় ওবাংলাদেশী চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।চলচ্চিত্রে আগমনের আগে তিনি চট্টগ্রামের মঞ্চে বাণিজ্যিক নাটকের অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত ছিলেন।[১] তাঁর আসল নাম অঞ্জলি ঘোষ।

চলচ্চিত্রে আগমন[উৎস সম্পাদনা]

বাংলাদেশের স্বাধীনতার আগে অঞ্জু ঘোষ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভোলানাথ অপেরার হয়ে যাত্রায় নৃত্য পরিবেশন করতেন ও গানও গাইতেন। [২] ১৯৮২ সালে এফ, কবীর চৌধুরী পরিচালিত ‘সওদাগর’ সিনেমার মাধ্যমে তাঁর চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে।এই ছবিটি ব্যবসায়িকভাবে সফল ছিল। দর্শক অবাক বিস্ময়ে তাঁর অশালীন অঙ্গভঙ্গি এবং উম্মাতাল নৃত্য উপভোগ করেন।তিনি বাংলার নীলো নামে পরিচিত ছিলেন।তিনি রাতারাতি তারকা বনে যান।অনেকের মতে অঞ্জুর সাফল্য ছিল ভিত্তিহীন মৌলিক সাফল্য।অঞ্জু বাণিজ্যিক ছবির তারকা হিসেবে যতটা সফল ছিলেন সামাজিক ছবিতে ততটাই ব্যর্থ হন।১৯৮৬ সালে তাঁর ক্যারিয়ার বিপর্যয়ের মুখে পড়লেও তিনি ফিরে আসেন ভালোভাবে।১৯৮৭ সালে অঞ্জু সর্বাধিক ১৪টি সিনেমাতে অভিনয় করেন মন্দার সময়ে যেগুলো ছিল সফল ছবি।তাঁর অভিনীত ‘বেদের মেয়ে জোছনা’ অবিশ্বাস্য রকমের ব্যবসা করে এবং সৃষ্টি করে নতুন রেকর্ড।তিনি সুঅভিনেত্রীও ছিলেন।১৯৯১ সালে বাংলা চলচ্চিত্রে নতুনের আগমনে শাবনাজদের মতো নায়িকাদের দাপটে তিনি ব্যর্থ হতে থাকেন।তিনি এই দেশ ছেড়ে চলে যান এবং কলকাতার চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে থাকেন।[১] বর্তমানে তিনি ভারতে বিশ্বভারতী অপেরায় যাত্রাপালায় অভিনয় করছেন। [৩]

উল্লেখযোগ্য সিনেমা[উৎস সম্পাদনা]

  • সওদাগর
  • নরম গরম
  • আবে হায়াত
  • রাজ সিংহাসন
  • পদ্মাবতী
  • রাই বিনোদিনী
  • সোনাই বন্ধু
  • বেদের মেয়ে জোছনা
  • বড় ভালো লোক ছিল
  • আয়না বিবির পালা
  • আশা নিরাশা
  • নবাব সিরাজ-উদ-দৌলা
  • মালা বদল
  • আশীর্বাদ[৪]

তথ্যসূত্র[উৎস সম্পাদনা]

  1. রহমান, মোমিন; হোসেন, নবীন (১৯৯৮)। "বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে তারকা নায়িকাঃ পপি থেকে পপি"। অন্যদিন ,ঈদ সংখ্যা (মাজহারুল ইসলাম) (২৫): ৩৫২। 
  2. হক, জনি। "যাত্রায় আবার অঞ্জু ঘোষ"দৈনিক সমকাল। সংগৃহীত ১৭ই ফেব্রিয়ারি,২০১১ 
  3. http://omsnewsbd.com/?p=48988
  4. রহমান, মোমিন; হোসেন, নবীন (১৯৯৮)। "বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে তারকা নায়িকাঃ পপি থেকে পপি"। অন্যদিন ,ঈদ সংখ্যা (মাজহারুল ইসলাম) (২৫): ৩৫৩। 

বহিঃসংযোগ[উৎস সম্পাদনা]