বার্বাডোস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Barbados থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

স্থানাঙ্ক: ১৩°১০′১২″ উত্তর ৫৯°৩৩′৯″ পশ্চিম / ১৩.১৭০০০° উত্তর ৫৯.৫৫২৫০° পশ্চিম / 13.17000; -59.55250

বার্বাডোস
বার্বাডোসের জাতীয় পতাকা
পতাকা
বার্বাডোসের জাতীয় মর্যাদাবাহী নকশা
জাতীয় মর্যাদাবাহী নকশা
নীতিবাক্য: "Pride and Industry"
সঙ্গীত: In Plenty and In Time of Need
বার্বাডোসের অবস্থান
রাজধানী
ও বৃহত্তর শহর
ব্রিজটাউন
সরকারি ভাষাইংরেজি
জাতীয়তাসূচক বিশেষণবার্বাডিয়ান (Official), বাজান (Slang)
সরকারসংসদীয় গণতন্ত্র এবং সাংবিধানিক রাজতন্ত্র
এলিজাবেথ II
ক্রিফোড হাজবেন্ডস
ডেভিড টোমসেন
স্বাধীনতা 
• তারিখ
৩০শে নভেম্বর ১৯৬৬
• পানি (%)
সামান্য
জনসংখ্যা
• 2010 আদমশুমারি
277,821[১] (181st)
• ঘনত্ব
৬৬০ প্রতি বর্গকিলোমিটার (১,৭০৯.৪ প্রতি বর্গমাইল) (15th)
জিডিপি (পিপিপি)2016 আনুমানিক
• মোট
$4.663 billion[২]
• মাথাপিছু
$16,669[২] (73rd)
জিডিপি (মনোনীত)2016 আনুমানিক
• মোট
$4.385 billion[২]
• মাথাপিছু
$15,677[২]
এইচডিআই (2015)অপরিবর্তিত 0.795[৩]
উচ্চ · 54th
মুদ্রাবার্বাডোসীয়ান ডলার ($) (BBD)
সময় অঞ্চলইউটিসি-৪
কলিং কোড১-২৪৬
ইন্টারনেট টিএলডি.bb

বার্বাডোস ক্যারিবীয় সাগরে পশ্চিম ভারতীয় দ্বীপপুঞ্জের একটি দ্বীপ রাষ্ট্র। ক্যারিবীয় সাগরের দ্বীপগুলির মধ্যে এটি সবচেয়ে পূর্বে অবস্থিত। বার্বাডোস প্রায় তিন শতাব্দী ধরে একটি ব্রিটিশ উপনিবেশ ছিল। ১৯৬৬ সালে এটি যুক্তরাজ্যের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভ করে। অ্যাংলিকান গির্জা থেকে শুরু করে জাতীয় খেলা ক্রিকেট পর্যন্ত দেশটির সর্বত্র ব্রিটিশ ঐতিহ্যের ছাপ সুস্পষ্ট। বার্বাডোসের বর্তমান অধিবাসীদের বেশির ভাগই চিনির প্ল্যান্টেশনে কাজ করানোর জন্য নিয়ে আসা আফ্রিকান দাসদের বংশধর। দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত ব্রিজটাউন দেশটির বৃহত্তম শহর, প্রধান বন্দর ও রাজধানী।

বার্বাডোসের শুভ্র বালুর সৈকত ও দ্বীপের চারদিক ঘিরে থাকা প্রবাল প্রাচীর বিখ্যাত। বহু বছর ধরে আখ ছিল অর্থনীতির প্রধান পণ্য। ১৯৭০-এর দশকে পর্যটন শিল্প প্রধান শিল্পে পরিণত হয়। দ্বীপটি এই অঞ্চলের সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটক গন্তব্যস্থলের একটি। দ্বীপের সরকার বার্বাডোসলে অফশোর ব্যাংকিং এবং তথ্যপ্রযুক্তির একটি কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলেছেন।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রাজনীতি[সম্পাদনা]

প্রশাসনিক অঞ্চলসমূহ[সম্পাদনা]

ভূগোল[সম্পাদনা]

অর্থনীতি[সম্পাদনা]

জনসংখ্যা[সম্পাদনা]

সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Barbados – General Information"। GeoHive। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০১৩ 
  2. Barbados, International Monetary Fund.
  3. "2016 Human Development Report" (PDF)। United Nations Development Programme। ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ২৩ মার্চ ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]