স্টিভ কামাচো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্টিভ কামাচো
স্টিভ কামাচো.jpg
১৯৬৯ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে স্টিভ কামাচো
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম(১৯৪৫-১০-১৫)১৫ অক্টোবর ১৯৪৫
জর্জটাউন, ব্রিটিশ গায়ানা
মৃত্যু২ অক্টোবর ২০১৫(2015-10-02) (বয়স ৬৯)
এন্টিগুয়া, অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনলেগ ব্রেক গুগলি
সম্পর্কজর্জ লিয়ারমন্ড (দাদা)[১]
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক১৯ জানুয়ারি ১৯৬৮ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৬ মার্চ ১৯৭১ বনাম ভারত
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১১ ৭৬
রানের সংখ্যা ৬৪০ ৪,০৭৯
ব্যাটিং গড় ২৯.০৯ ৩৪.৮৬
১০০/৫০ -/৪ ৭/২৪
সর্বোচ্চ রান ৮৭ ১৬৬
বল করেছে ১৮ -
উইকেট -
বোলিং গড় - ২৭.০০
ইনিংসে ৫ উইকেট - -
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং - ৩/১০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৪/- ৪৭/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৫ অক্টোবর ২০১৫

জর্জ স্টিফেন (স্টিভ) কামাচো (ইংরেজি: Steve Camacho; জন্ম: ১৫ অক্টোবর, ১৯৪৫ - মৃত্যু: ২ অক্টোবর, ২০১৫) ব্রিটিশ গায়ানার জর্জটাউনে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ১৯৬৮ থেকে ১৯৭১ সময়কালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের পক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অংশ নিয়েছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানের দায়িত্ব পালন করতেন। এছাড়াও মাঝে-মধ্যে লেগ-স্পিন বোলিং করতেন স্টিভ কামাচো

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনি চারটি সিরিজের এগারো টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন। ১৯৭৩ সালে রোহন কানহাইয়ের নেতৃত্বাধীন ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের সদস্যরূপে ইংল্যান্ড গমন করেন। তবে, তিনি আঘাতপ্রাপ্ত হলে ওরচেস্টারশায়ার দল থেকে রন হ্যাডলিকে দলে নিয়ে আসা হয়েছিল।[২]

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে খেলোয়াড়ী জীবন থেকে অবসর নেন। এরপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডে দল নির্বাচকের দায়িত্ব পালন করেন। এরপর সচিব ও পরবর্তীকালে প্রধান নির্বাহী হিসেবে বোর্ডে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ২০০৭ সালে ‘ক্রিকেট অ্যাট বোর্দা: সেলিব্রেটিং দ্য জর্জটাউন ক্রিকেট ক্লাব’ শীর্ষক গ্রন্থ প্রকাশ করেন।[১] ২ অক্টোবর, ২০১৫ তারিখে ৬৯ বছর বয়সে অ্যান্টিগুয়ায় স্টিভ কামাচো’র দেহাবসান ঘটে।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Stephen Camacho"Guyana-Cricket। সংগ্রহের তারিখ জুন ১৭, ২০১৫ 
  2. "West Indies in England, 1973"। Wisden Cricketers' Almanack। Wisden। ১৯৭৪। পৃষ্ঠা 327–354। 
  3. http://www.espncricinfo.com/westindies/content/story/925593.html

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]