ল্যান্স পিয়েরে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ল্যান্স পিয়েরে
ল্যান্স পিয়েরে.jpg
১৯৫১ সালের সংগৃহীত স্থিরচিত্রে ল্যান্স পিয়েরে
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম(১৯২১-০৬-০৫)৫ জুন ১৯২১
পোর্ট অব স্পেন, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
মৃত্যু১৪ এপ্রিল ১৯৮৯(1989-04-14) (বয়স ৬৭)
পোর্ট অব স্পেন, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ৬২)
৩ মার্চ ১৯৪৮ বনাম ইংল্যান্ড
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৫
রানের সংখ্যা - ১২১
ব্যাটিং গড় - ৬.২৩
১০০/৫০ -/- ০/০
সর্বোচ্চ রান - ২৩
বল করেছে ৪২ ৫০৪৭
উইকেট ১০২
বোলিং গড় - ২৪.৭২
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং -/- ৮/৫১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ০/- ১৪/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭

ল্যান্সলট রিচার্ড পিয়েরে (ইংরেজি: Lance Pierre; জন্ম: ৫ জুন, ১৯২১ - মৃত্যু: ১৪ এপ্রিল, ১৯৮৯) ত্রিনিদাদ ও টোবাগোর পোর্ট অব স্পেনে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটার ছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য হিসেবে ১৯৪৮ সালে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করার সুযোগ পান। ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে ত্রিনিদাদের প্রতিনিধিত্ব করেন। মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলিংয়ে পারদর্শী ছিলেন ল্যান্স পিয়েরে। এছাড়াও নীচের সারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন তিনি।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

১৯৪০-৪১ মৌসুমে ত্রিনিদাদের পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এ দলে তিনি ফাস্ট বোলার হিসেবে ১৯৪৯-৫০ মৌসুম পর্যন্ত খেলেন।

১৯৪৭-৪৮ মৌসুমে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে অভিষিক্ত হন তিনি। জর্জটাউনে অনুষ্ঠিত ঐ টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জয় পেলেও পিয়েরে ব্যাট করার সুযোগ পাননি কিংবা কোন উইকেটও লাভ করতে পারেননি।[১]

১৯৫০ সালে ইংল্যান্ড সফরে যান। সেখানে ল্যাঙ্কাশায়ারের বিপক্ষে ৮/৫১ বোলিং পরিসংখ্যান দাঁড় করান যা তার প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে সেরা ছিল।

১৪ এপ্রিল, ১৯৮৯ তারিখে ৬৭ বছর বয়সে পোর্ট অব ল্যান্স পিয়েরের দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]