মাহমুদুল করিম চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাহমুদুল করিম চৌধুরী
মাহমুদুল করিম চৌধুরী.jpg
চট্টগ্রাম-১৬ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য
(বর্তমান কক্সবাজার-১ আসন)
কাজের মেয়াদ
১৯৭৯ – ১৯৮২
পূর্বসূরীশামশুদ্দিন আহমদ চৌধুরী
উত্তরসূরীএ এইচ সালাহউদ্দিন মাহমুদ
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৩৮
মগনামা, পেকুয়া, কক্সবাজার, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ভারত
(বর্তমান বাংলাদেশ)
মৃত্যু২৭ ডিসেম্বর ২০০৫
চট্টগ্রাম
নাগরিকত্বব্রিটিশ ভারত (১৯৪৭ সাল পর্যন্ত)
পাকিস্তান (১৯৭১ সালের পূর্বে)
বাংলাদেশ
রাজনৈতিক দলন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি
(১৯৭৯ সালের পূর্বে)
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল
সন্তানশাফায়েত আজিজ রাজু
(পেকুয়া উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান)
প্রাক্তন শিক্ষার্থীচট্টগ্রাম সরকারি কলেজ

মাহমুদুল করিম চৌধুরী (১৯৩৮ - ২০০৫) বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধা, রাজনীতিবিদ ও সাবেক সাংসদ। তিনি ১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবেক চট্টগ্রাম-১৬, চকরিয়া-কুতুবদিয়া (বর্তমান কক্সবাজার-১, চকরিয়া-পেকুয়া) আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য।[১][২][৩]

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

মাহমুদুল করিম চৌধুরী ১৯৩৮ সালে ব্রিটিশ ভারতের বেঙ্গল প্রেসিডেন্সির (বর্তমান বাংলাদেশ) কক্সবাজার জেলার (ততকালীন চকরিয়া) বর্তমান পেকুয়া উপজেলার মগনামা গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম জমিদার পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মৃত ঠান্ডামিয়া। তার বড় ছেলে শেফায়েত আজিজ রাজু পেকুয়া উপজেলার পরপর দুইবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান।[৪]

রাজনৈতিক ও কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মাহমুদুল করিম চৌধুরী ১৯৫৬ সালে চট্টগ্রাম সরকারী কলেজ ছাত্র সংসদের নির্বাচিত ক্রীড়া সম্পাদক ছিলেন । আব্দুল হামিদ খাঁন ভাসানীর ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির রাজনীতির করতেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৩ সালে অবিভক্ত চকরিয়া থানার মগনামা ইউনিয়নের নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে পেকুয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি জেনারেল জিয়াউর রহমানের বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলে যোগদিয়ে কক্সবাজার জেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক ও জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির প্রতিষ্ঠাতা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে কক্সবাজার জেলা জাগ দলের সভাপতি ছিলেন তিনি। ১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবেক চট্টগ্রাম-১৬ (বর্তমান কক্সবাজার-১, চকরিয়া-পেকুয়া) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[১][৫] ১৯৯১ সালের পঞ্চম জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচনে একই আসন হতে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্ধিতা করে পরাজিত হন। এছাড়াও তিনি বাংলাদেশ মৎস্যজীবী সমিতির কেন্দ্রেীয় সভাপতি ছিলেন।[৪]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

মাহমুদুল করিম চৌধুরী ২৭ ডিসেম্বর ২০০৫ সালে মৃত্যুবরণ করেন।[৪]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "২য় জাতীয় সংসদে নির্বাচিত মাননীয় সংসদ-সদস্যদের নামের তালিকা" (PDF)জাতীয় সংসদবাংলাদেশ সরকার। ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. "আলোচিত আসন কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) : সালাহউদ্দিনের প্রতীক্ষায় বিএনপি, মনোনয়ন দুশ্চিন্তায় আ.লীগ-জাপা"www.bhorerkagoj.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-৩১ 
  3. BanglaNews24.com। "কক্সবাজার-১ আসনে স্বামীকে ছাড়িয়েই খালাস হাসিনা"banglanews24.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-৩১ 
  4. "কিংবদন্তী প্রয়াত মাহমুদুল করিম চৌধুরীর ১২তম মৃত্যু বার্ষিকী"coxsbazarnews.com। ২৭ ডিসেম্বর ২০১২। ৩১ অক্টোবর ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ অক্টোবর ২০১৯ 
  5. "৪৩ বছর পর আওয়ামী লীগের দখলে কক্সবাজার-১"Jugantor। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-৩১ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]