বেগুনফুলি আম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
বেগুনফুলি
Guntur Mango.jpg
ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের গুন্টুর সিটিতে সাইকেল চালিয়ে বেগুনফুলি আম বিক্রি হচ্ছে।
প্রজাতিMangifera indica
চাষকৃত উদ্ভিদ'বেগুনফুলি'
উৎসবাঙ্গানাপল্লী, অন্ধ্র প্রদেশ, ভারত
বেগুনফুলি আম
ভৌগোলিক নির্দেশক
Guntur Mango.jpg
ভারতের অন্ধ্র প্রদেশের গুন্টুর সিটিতে সাইকেল চালিয়ে বঙ্গপল্লি আম বিক্রি হচ্ছে
বর্ণনাঅন্ধ্র প্রদেশের কর্নুল জেলায় একটি আমের জাত পাওয়া যায়।
ধরনকৃষিজ
অঞ্চলকুর্ণুল জেলা,অন্ধ্র প্রদেশ
দেশভারত
উপাদান

বেগুনফুলি আম (বেনিশান নামেও পরিচিত) হলো একটি আমের জাত যা ভারতের অন্ধ্র প্রদেশ রাজ্যের কার্নুল জেলার বনগানপলে উৎপাদিত হয়। এটি একাই রাজ্যের মোট আমের আবাদযোগ্য জমির ৭০ শতাংশ দখল করে এবং বেগুনফুলির কৃষকরা প্রথম এর প্রবর্তন করেছিলেন। [১] এটি ভৌগোলিক সূচক রেজিস্ট্রি দ্বারা উদ্যানতাত্ত্বিক পণ্যগুলির আওতায় ৩রা মে ২০১৭ এ অন্ধ্র প্রদেশ থেকে ভৌগোলিক সূচকগুলোর অন্যতম হিসাবে নিবন্ধিত হয়েছিল। [২][৩] এটি ভারতপাকিস্তানের[৪][৫][৬] অন্যান্য অঞ্চলেও জন্মে। ফলটিকে ওভাল বা ডিম্বাকৃতির হিসাবে বর্ণনা করা হয়। এটি লম্বায় ১৪ সেমি, হলুদ মাংস এবং একটি পাতলা, মসৃণ হলুদ ত্বকবিশিষ্ট। এটি দৃঢ় মাংসযুক্ত টেক্সচারের এবং মিষ্টি স্বাদের এবং এতে ফাইবারের অভাব রয়েছে।[৫][৭][৮][৯] একে অন্ধ্র প্রদেশে সর্বাধিক চাওয়া হয়। [১০] এটি একটি মধ্য-মৌসুমের জাত যা কৌটাজাতকরণের জন্য ভাল। এটি ভিটামিন এ ও সি- তে সমৃদ্ধ। এটিকে আমের রাজাও বলা হয়।

ব্যুৎপত্তি[সম্পাদনা]

অন্ধ্র প্রদেশের বনগানপল্লী গ্রাম ও আশেপাশে প্রচুর পরিমাণে চাষ হওয়ায় এটি বঙ্গপল্লি আম নামেও পরিচিত। বেনিশান, ছাপ্পাটাই, সাফেদা(দিল্লি, ইউপি ও অন্যান্য উত্তরাঞ্চলের যুক্তরাষ্ট্র), বাদাম আম (রাজস্থান এমপি, মালওয়া, মেওয়ার ও মধ্য ভারত অন্যান্য এলাকায়) হলো এর কিছু অন্যান্য নাম। পানিশের জমিদার এবং বঙ্গপাল নবাবের নামানুসারে এর 'বেনিশান' নামকরণ করা হয়েছে। [১১]

চাষাবাদ[সম্পাদনা]

প্রধানত বেগুনফুলিতে, এর চাষ করা হয়। এছাড়াও কুরনুল জেলার পানিয়াম এবং নাদায়াললেও এর চাষ হয় । এগুলি ছাড়াও উপকূলীয় এবং রায়লসিমা অঞ্চলগুলিও চাষ করে। তেলেঙ্গানা রাজ্যের খম্ম্ম, মহাবুবনগর, রাঙ্গারডি, মেডাক এবং তেলঙ্গানার আদিলবাদ জেলায় কয়েকটি জেলায়ও এর চাষ হয়েছে। [১২]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Correspondent, Special। "Banginapalli mango to get geographical indication"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭ 
  2. ":::GIR Search:::"ipindiaservices.gov.in। ৮ মে ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭ 
  3. "Banaganapalle mangoes finally get GI tag"Deccan Chronicle (ইংরেজি ভাষায়)। ৪ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭ 
  4. Mukherjee, S.K.; Litz, R.E. (২০০৯), "Introduction: Botany and Importance", Litz, Richard E., The Mango: Botany, Production and Uses, Wallingford, Oxon, UK: CAB International, পৃষ্ঠা 1–18 
  5. "The Mango – King of Fruits", Tropical Fruits Newsletter, 20: 15, সেপ্টেম্বর ১৯৯৬ 
  6. Chauhan, O.P.; Raju, P.S.; Bawa, A.S. (২০১০), "Mango Flavor", Hui, Y.H., Handbook of Fruit and Vegetable Flavors, Hoboken, NJ, USA: Wiley 
  7. Pradeepkumar, T.; Suma Jyothibhaskar, B.; Satheesan, K.N. (২০০৮), Management of Horticultural Crops, New Delhi, India: New India Publishing Agency, পৃষ্ঠা 96–97 
  8. All About Mangoes. Portal of the International Mango Industry.  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  9. "The Hindu Business Line : Steep fall in mango harvest; prices up"www.thehindubusinessline.com। ২৫ এপ্রিল ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৯ 
  10. "The Hindu Business Line : Steep fall in mango harvest; prices up"www.thehindubusinessline.com। ২৫ এপ্রিল ২০০২। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৯ 
  11. "Banganapalle mango gets GI tag"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭ 
  12. "Andhra Pradesh's Banaganapalle mango gets GI tag"Deccan Chronicle (ইংরেজি ভাষায়)। ৩ মে ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৫ মে ২০১৭