বাহাদুর নারিমান কাভিনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বাহাদুর নারিমান কাভিনা
ডাকনামবিএন কাভিনা
জন্ম?
ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু৩০ জুন, ২০১৭ (৮০ বছর)
অ্যাডিলেড, অস্ট্রেলিয়া
আনুগত্য ভারত
সার্ভিস/শাখাভারতীয় নৌবাহিনী
পদমর্যাদাকমান্ডিং অফিসার
নেতৃত্বসমূহকমান্ডিং অফিসার নিপাত
যুদ্ধ/সংগ্রামভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ ১৯৭১
পুরস্কারবীরচক্র পদক

লেফটেন্যান্ট কমান্ডার বাহাদুর নারিমান কাভিনা (জন্ম:? - মৃত্যু: ৩০ জুন, ২০১৭) ব্রিটিশ ভারতে জন্মগ্রহণকারী বিশিষ্ট ভারতীয় নৌ-কর্মকর্তা ও আইএনএস নিপাতের কমান্ডিং অফিসার ছিলেন।[১] তিনি পাকিস্তানের করাচী বন্দর আক্রমণের প্রধান রূপকার ছিলেন তিনি। এছাড়াও, ৪ ডিসেম্বর, ১৯৭১ তারিখে পাকিস্তানী নৌবাহিনীর সদর দফতর আক্রমণের নেতৃত্ব দেন ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ নিপাতের কমান্ডিং অফিসার বিএন কাভিনা

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

১৯৭১ সালের যুদ্ধে ভারতীয় নৌবাহিনী তাদের কার্যক্রম পরিচালনায় নতুন মিসাইল বোটের প্রচলন ঘটায়। সামগ্রিক দিক বিবেচনায় এনে ও যুদ্ধকালীন খরচের সাথে এর অঙ্গাঙ্গী সম্পর্ক বিরাজমান ছিল। আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে আইএনএস বিক্রান্তের উপস্থিতিতে সফলভাবে এ ধরনের অভিযানগুলো পরিচালিত হয়েছিল। রুশ নির্মিত ভারতীয় নৌবাহিনীর মিসাইলবাহী রণতরীগুলো একে-অপরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে মিসাইল আক্রমণ পরিচালনায় অগ্রসর হয় ও পাকিস্তানী নৌবাহিনীকে বিভ্রান্তির দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়।[২]

১৯৭১ সালের পাক-ভারত যুদ্ধে ট্রাইডেন্ট অভিযান সাঙ্কেতিক নামের এই অভিযানে নিপাত, নির্ঘাটবীর - এ তিনটি বিদ্যুৎ শ্রেণীর মিসাইলবাহী নৌ-জাহাজের সমন্বয়ে ২৫তম মিসাইল স্কোয়াড্রন গঠিত হয়েছিল। করাচীতে অবস্থিত পাকিস্তান নৌবাহিনীর সদর দফতরে দ্রুতগতিতে নৌ অবরোধ পরিচালনা করে।[৩] ছোট ধরনের রণতরী পিএনএস খাইবার, এমভি ভেনাস চ্যালেঞ্জার, পিএনএস শাহ জাহান ও পিএনএস মুহাফিজকে ধ্বংস করে ভারতীয় রণতরী করাচী বন্দর থেকে ২৬ কিলোমিটার দূরে অবস্থান নেয়। আইএনএস নিপাতের রাডারে তৈলবাহী ট্যাঙ্ক ও শোধনাগার দেখা গেলে নিপাত দুইটি কাজে অগ্রসর হয়। তৈলবাহী ট্যাঙ্ক ও শোধনাগারে আঘাত হেনে ট্রাইডেন্ট অভিযান পূর্ণাঙ্গভাবে উজ্জ্বীবনীশক্তি নিয়ে বোম্বের উদ্দেশ্যে গমন করে। এরপর থেকেই ৪ ডিসেম্বর তারিখকে নৌদিবসরূপে পালন করে থাকে।[৪]

সম্মাননা[সম্পাদনা]

সফলভাবে এ অভিযান পরিচালনার স্বীকৃতিস্বরূপ এবং অসম্ভব সাহসিকতাপূর্ণ ও জীবনবাজী রেখে নৌ অভিযানের সাথে জড়িত তৎকালীন ক্যাপ্টেন ও পরবর্তীতে ভাইস এডমিরাল গুলাব মোহনলাল হিরণনন্দীকে নৌসেনা পদক, স্ট্রাইক গ্রুপ কমান্ডার যাদবকে মহাবীর চক্র পদক এবং তাকেসহ আইএনএস নির্ঘাট ও আইএনএস বীরের কমান্ডিং অফিসার যথাক্রমে ইন্দ্রজিৎ শর্মা ও ওম প্রকাশ মেহতাকে বীরচক্র পদকে ভূষিত করা হয়।[৫][৬] এছাড়াও, আইএনএস নির্ঘাটের মাস্টার চিফ এম. এন. সাঙ্গালকে রাষ্ট্রপতি কর্তৃক অনুমোদিত বীরচক্র পদকে ভূষিত করা হয়েছিল।

১৯৭১ সালের যুদ্ধে বিজয়ী এই বীরসেনানী ১ জুলাই, ২০১৭ তারিখে অস্ট্রেলিয়ার অ্যাডিলেডে নিজ পুত্রের সাথে অবস্থানকালে বার্ধক্যজনিত কারণে ৮০ বছর বয়সে দেহাবসান ঘটে বলে এক জ্যেষ্ঠ নৌ-কর্মকর্তা জানিয়েছেন।[৭][৮][৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "1971 Karachi harbour attack hero Lt Commander Kavina dead"timesofindia.indiatimes.com (ইংরেজি ভাষায়)। ১ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  2. "Brilliant commanders and brave men won India the 1971 War"rediff.com (ইংরেজি ভাষায়)। ১৭ মে ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  3. Chauhan, Divya (৯ জুলাই ২০১৬)। "In 1971, The Indian Navy Attemped One Of The World's Most Daring War Strategies On Karachi" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  4. "In 1971, The Indian Navy Attempted One Of The World's Most Daring War Strategies On Karachi"Scoop Whoop (ইংরেজি ভাষায়)। ৯ জুলাই ২০১৬। ৯ ডিসেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  5. "Chapter-42"। Indiannavy.nic.in। ২০১২-০২-২৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৪-২৪ 
  6. "Indian Navy"। Indian Navy। ২০১২-০১-১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১২-০৪-২৪ 
  7. "BN Kavina- 1971 War Commander Dead"India.com News Desk (ইংরেজি ভাষায়)। ১ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  8. "1971 Karachi Harbour Attack Hero Lt Commander BN Kavina Dead"ndtv.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  9. "1971 Karachi harbour attack hero Lt Commander Kavina dead"timesofindia.indiatimes.com (ইংরেজি ভাষায়)। ১ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 
  10. "1971 War Hero Lieutenant Commander BN Kavina Who Attacked Karachi Harbour Passes Away"indiatimes.com (ইংরেজি ভাষায়)। ২ জুলাই ২০১৭। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০১৭ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]