বড়োদরা জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বড়োদরা জেলা
বরোদা জেলা
জেলা
গুজরাতে অবস্থান
গুজরাতে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২২°১১′ উত্তর ৭৩°০৭′ পূর্ব / ২২.১৮° উত্তর ৭৩.১২° পূর্ব / 22.18; 73.12স্থানাঙ্ক: ২২°১১′ উত্তর ৭৩°০৭′ পূর্ব / ২২.১৮° উত্তর ৭৩.১২° পূর্ব / 22.18; 73.12
দেশ ভারত
ভারতের রাজ্যসমূহ ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলসমূহগুজরাত
সরকার
 • সমাহর্তা (কালেক্টর)শালিনী আগরওয়াল, আইএএস
আয়তন
 • মোট৭৫১২ কিমি (২৯০০ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)[১][২]
 • মোট৪১,৬৫,৬২৬
 • ক্রমভারতে ৬৪০ জেলার মধ্যে ৪৮
গুজরাতে ২৬ জেলার মধ্যে ৩
 • জনঘনত্ব১০২২/কিমি (২৬৫০/বর্গমাইল)
ভাষা সমূহ[৩]
 • সরকারিগুজরাতি
 • অন্যহিন্দি, মারাঠি, ইংরেজি
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+০৫:৩০)
পিন৩৯০ ০XX
আইএসও ৩১৬৬ কোডইন জিজে-ভিডি
যানবাহন নিবন্ধনজিজে
লোকসভা নির্বাচনী কেন্দ্র[৪]
বিধানসভা নির্বাচনী কেন্দ্র১২[৫]
জলবায়ুআধা-শুষ্ক (বিএসএইচ) (কোপ্পেন)
বার্ষিক তাপমাত্রার সীমা১২-৪৩° সে
গ্রীষ্মের তাপমাত্রার সীমা২৬-৪৩° সে
শীতের তাপমাত্রার সীমা১২-৩৩° সে
ওয়েবসাইটgujaratindia.com

বড়োদরা জেলা হল পশ্চিম ভারতের গুজরাত রাজ্যের পূর্ব অংশের একটি জেলা। জেলার পশ্চিমাঞ্চলের বড়োদরা (বরোদা) শহরটি হল প্রশাসনিক সদর দফতর। বড়োদরা জেলা ৭,৭৯৪ বর্গ কিমি অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত। ২০১১ সালের হিসাবে, এই জেলার জনসংখ্যা হল ৪,১৬৫,৬২৬, যার মধ্যে ৪৯.৬% শহরে বাস করে, ৫০.৪% গ্রামীণ, ৫.৩% তফসিলি জাতি এবং ২৭.৬% উপজাতি।[৬] ২০১১ সালের হিসাবে, এটি আমেদাবাদসুরাটের পরে গুজরাটের তৃতীয় সর্বাধিক জনবহুল জেলা (গুজরাতের ৩৩টি জেলার মধ্যে)।[১]

এই জেলার উত্তরে পাঁচমহল জেলা, পশ্চিমে আনন্দ এবং খেড়া জেলা, দক্ষিণে ভারুচ এবং নর্মদা জেলা এবং পূর্ব দিকে ছোট উদয়পুর জেলামাহি নদী এই জেলার মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে।

ঐতিহাসিক বরোদা শহরটি ছিল বরোদা রেসিডেন্সির রাজধানী এবং বোম্বে প্রেসিডেন্সির অধীনে ভারতের অন্যতম রাজ্য

নামের উৎপত্তি[সম্পাদনা]

বড়োদরা বিশ্বামিত্র নদীর তীরে অবস্থিত (এর নাম ঋষি বিশ্বামিত্র থেকে এসেছে)।এর শাসক রাজা চন্দনের নামে এই শহরটিকে একসময় চন্দ্রাবতী বলা হত, এরপরে এর নাম হল বীরাবতী- অর্থাৎ বীরের আবাসস্থল, এবং তারপরে বিশ্বামিত্রের তীরে প্রচুর বটগাছের কারণে এর নাম হয় বটপাত্র। বটপাত্র থেকে এটির বর্তমান নাম বরোদা বা বড়োদরা। বড়োদরা নামটি বট (বট গাছ) দারা (পরা - অর্থাৎ ভদ্রুক্ষ দিয়ে ঢাকা) এবং এই থেকে বড়োদরা নামটি এসেছিল। বড়োদরা ও তার আশেপাশে প্রচুর বট গাছ দেখতে পাওয়া যায়।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আধুনিক বড়োদরা হল এর প্রয়াত শাসক, সায়াজী রাও গাইকওয়াড়ের (১৮৭৫–১৯৩৯) স্মৃতিসৌধ। এই দক্ষ প্রশাসকের স্বপ্ন ছিল বড়োদরাকে একটি শিক্ষামূলক, শিল্প ও বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসাবে গড়ে তোলা।

বড়োদরার একটি সমৃদ্ধ ঐতিহাসিক পটভূমি রয়েছে। ইতিহাসবিদের গত ২০০০ বছরেরও বেশি পুরোনো বড়োদরার ইতিহাস আবিষ্কার করতে পারেন। যাইহোক, ১৭৩২ সালে শহরটিতে মুঘল শাসনের অবসান ঘটলে, তারপরের ইতিহাস, নেওয়া যেতে পারে, যখন পিলাজি দক্ষিণ গুজরাটে মারাঠা সক্রিয়তা শুরু করেছিলেন এবং তা দখল করেছিলেন। কিছুদিনের জন্য ছাড়া, মোটামুটি ১৭৩৪ থেকে ১৯৪৯ পর্যন্ত বড়োদরা গাইকওয়াড়দের শাসনে ছিল।

১৮৭৫ সালে মহারাজা সায়াজিরাও তৃতীয়ের অধিগ্রহণের পর বড়োদরায় মারাঠা শাসনের সর্বাধিক উন্নতির সময় শুরু হয়েছিল। এটি ছিল সকল ক্ষেত্রে অনমনীয় অগ্রগতি এবং গঠনমূলক সাফল্যের যুগ।

মহারাজা সায়াজিরাও ছিলেন তাঁর সময়ের অন্যতম প্রধান প্রশাসক ও সংস্কারক। তিনি একাধিক সাহসী আর্থ-সামাজিক সংস্কার শুরু করেছিলেন। তিনি অর্থনৈতিক উন্নয়নে অত্যন্ত গুরুত্ব আরোপ করেছিলেন এবং উদ্যোগকে উৎসাহ দিতে বেশ কয়েকটি অনুকরনীয় শিল্প শুরু করেছিলেন, এবং তারপরে কর্মক্ষম শিল্পগুলিকে বেসরকারী উদ্যোগের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। তিনি বয়ন এবং টালি কারখানা শুরু করেছিলেন। তাঁর শিল্পোন্নয়নের নীতিমালার ফলস্বরূপ যে আজ বড়োদরা বয়ন, রাসায়নিক, ফার্মাসিউটিক্যাল, বৈদ্যুতিক, যান্ত্রিক এবং তেল শিল্পের জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র। তিনি বেশ কয়েকটি সামাজিক সংস্কার চালু করেছিলেন। প্রশাসনের কোনও বিভাগেই এই জ্ঞানী শাসকের দূরদর্শিতা নীতি শিক্ষার চেয়ে কম ছিল না, এবং আর কারও ক্ষেত্রে ফলাফল এত বাস্তব এবং স্পষ্ট হয় নি। তিনি তাঁর বয়স্ক শিক্ষা প্রকল্পটি বাড়ানোর জন্য সাহসের সাথে বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা এবং একটি গ্রন্থাগার আন্দোলন (ভারতে তার ধরনের প্রথম) চালু করেছিলেন।

তিনিই বিভিন্ন পর্যায়ে জ্ঞানের সমস্ত শাখায় উন্নয়নের একটি সাধারণ পরিকল্পনার স্বপ্ন দেখেছিলেন, যার শীর্ষে থাকবে "বরোদা মহারাজা সায়াজিরাও বিশ্ববিদ্যালয়"। এই আধুনিক শাসকের অন্তর্দৃষ্টি এবং আধুনিক দৃষ্টিভঙ্গির কাছে বড়োদরার সৌন্দর্য, তার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং স্থাপত্যের সেরা শিল্পকর্মের জন্য ঋণী।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "District Census 2011"। Census2011.co.in। ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০ 
  2. "Districts of Gujarat" 
  3. "About Vadodara" 
  4. "List of Gujarat Lok Sabha Members"। Lok Sabha। ২০০৭-১০-১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৬-৩০ 
  5. "List of Vadodara District MLAs"। Gujarat Vidhan Sabha। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-০৬-৩০ 
  6. "Vadodara District Population, Caste, Religion Data (Gujarat) - Census 2011"। Census India। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

২২°১৭′৩৫″ উত্তর ৭৩°১১′৩৭″ পূর্ব / ২২.২৯৩০৬৭° উত্তর ৭৩.১৯৩৪৯৩° পূর্ব / 22.293067; 73.193493

টেমপ্লেট:Urban and suburban areas of Vadodara টেমপ্লেট:Vadodara topics টেমপ্লেট:Gujarat টেমপ্লেট:Narmada basin