ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Jump to navigation Jump to search
ফ্রি ও ওপেন সোর্স সফটওয়্যারের স্ক্রিনশট

ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার (F/OSS, FOSS) অথবা ফ্রি/ ওপেন সোর্স সফটওয়ার হল মুক্ত লাইসেন্সে প্রকাশিত এমন সকল সফটওয়্যার যা ব্যবহারকারীদের এটি ব্যবহার, গবেষণা, সোর্স কোড পরিবর্তন, পরিবর্ধনসহ সফটওয়ারটির যেকোন ধরনের উন্নয়ন করার স্বাধীনতা দেয়। সাধারণ এবং বাণিজ্যিক ব্যবহারকরীরা সহজেই এর উপযোগীতা উপলব্ধি করতে পারে। একই সাথে এর জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। [১][২]

ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে, ফ্রি শব্দটি ফ্রিডম থেকে নেয়া হয়েছে। এখানে স্বাধীনতা আছে এটি কপি এবং বিতরণের ক্ষেত্রে, সফটওয়্যারের মূল্য বোঝাতে এটি ব্যবহার করা হয় না। ফ্রি সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন নামের প্রতিষ্ঠানটি ফ্রি সফটওয়্যার এর মানদন্ড নির্ধারণ এবং এর আনুষঙ্গিক বিষয়গুলি নিয়ে কাজ করছে।ফ্রি সফটওয়ারের মূলনীতি বোঝাতে তারা যে বাক্যটি ব্যবহার করে সেটি হল "think of free as in free speech, not as in free beer"।[৩] ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার কথাটির মাধ্যমে ফ্রি সফটওয়্যার এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার উভয়কে একই সাথে বর্ণনা করা হয়। ফ্রি সফটওয়্যার এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার এর মূলনীতি কাছাকাছি পর্যায়ের হলেও বেশ কিছু ক্ষেত্রে এদুটির মাঝে ডেভলেপমেন্ট সংস্কৃতি এবং দর্শনে ভিন্নতা রয়েছে। ফ্রি সফটওয়্যার মূলত ব্যবহারকারীদের স্বাধীনতার দেয়ার দর্শন অনুসরণ করে, অন্যদিকে ওপেন সোর্স সফটওয়্যার মূলত পরস্পরের মাঝে সমন্বয়ের মাধ্যমে ডেভলপমেন্ট পদ্ধতি অনুসরণ করে। এবং কোন একটি মাত্র মূলনীতিতে প্রাধান্য না দিয়ে সম্মেলিতভাবে FOSS বলা হয়ে থাকে।

ফ্রি সফটওয়্যার লাইসেন্স এবং ওপেন সোর্স লাইসেন্স সমূহ বিভিন্ন সফটওয়্যার প্যাকেজে ব্যবহার করা হয়। যদি এই সকল লাইসেন্সগুলি একই ধরনের কথা প্রকাশ করে থাকে। তবে এই দুটি দর্শন আলাদা ভাবে বলা হয়ে থাকে মূলত বিভিন্ন সফটওয়্যা ডিস্ট্রিবিউশনের মূলনীতি বোঝানোর জন্য।

সংক্ষিপ্ত বিবরণ[সম্পাদনা]

ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার হল সফটওয়্যারের জন্য একটি ছাতা শব্দ যা ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার। ফ্রি এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ব্যবহারকারীকে সোর্স কোড পরীক্ষা করতে দেয় এবং প্রোপ্রিয়েটি সফ্টওয়্যার এর তুলনায় সফ্টওয়্যারের ফাংশনগুলির উচ্চ স্তরের নিয়ন্ত্রণ প্রদান করে।

ফ্রি সফটওয়্যার ফাউন্ডেশনের মতে, "প্রায় সব ওপেন সোর্স সফটওয়্যারই ফ্রি সফটওয়্যার। দুটো শর্তে প্রায় একই ধরণের সফ্টওয়্যারটি বর্ণনা করা হয়েছে, তবে তারা মৌলিকভাবে বিভিন্ন মূল্যের উপর ভিত্তি করে দেখা যায়।" , ওপেন সোর্স ইনিশিয়েটিভ অনেক মুক্ত সফ্টওয়্যার লাইসেন্সগুলিও উন্মুক্ত উৎস হতে বিবেচনা করে। এফএসএফ এর তিনটি প্রধান লাইসেন্সের সর্বশেষ সংস্করণগুলি রয়েছে: জিপিএল, লেজ জেনারেল পাবলিক লাইসেন্স (এলজিপিএল) এবং জিএনইউ এক্সফার জেনারেল পাবলিক লাইসেন্স (এজিপিএল)। সুতরাং, পরিভাষা মুক্ত এবং ওপেন সোর্স সফটওয়্যারটি এই দার্শনিক মতবিরোধের উপর নিরপেক্ষ হতে চলেছে।

বিনামূল্যে এবং ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার (FOSS বা F / OSS) বা বিনামূল্যে / লিব্রে এবং ওপেন সোর্স সফ্টওয়্যার (FLOSS) এর জন্য অনেকগুলি প্রাসঙ্গিক শর্তাবলী এবং সংক্ষেপে রয়েছে।

ফ্রি সফ্টওয়্যার[সম্পাদনা]

ফ্রি সফটওয়্যার ফাউন্ডেশন (এফএসএফ) দ্বারা গৃহীত রিচার্ড স্টলম্যানের ফ্রি সফ্টওয়্যার ডেফিনিশন, স্বাধীনতা বিষয়ক একটি মূল্য হিসাবে মূল্য নির্ধারণ করে না। সর্বপ্রথম পরিচিত তার মুক্ত সফ্টওয়্যার ধারণাটি প্রকাশের ফেব্রুয়ারী ১৯৮৬ সংস্করণে ছিল।

ওপেন সোর্স[সম্পাদনা]

ওপেন সোর্স সফটওয়্যার এর জন্য কম্পিউটার সফটওয়্যার লাইসেন্সটি প্রতিষ্ঠানের চিহ্নের জন্য যোগ্য কিনা তা নির্ধারণ করার জন্য ওপেন সোর্স ডিফারিনিশন ওপেন সোর্স ইনিশিয়েটিভ দ্বারা ব্যবহৃত হয়। ব্রুস পেরিন দ্বারা প্রাথমিকভাবে লিখিত এবং অভিযোজিত ডেবিয়ান ফ্রি সফ্টওয়্যার নির্দেশিকা উপর ভিত্তি করে এই সংজ্ঞাটি প্রযোজ্য ছিল। ওপেন সোর্স: ওপেন সোর্স বিপ্লব, জানুয়ারি ১৯৯৯, ভয়েসেস, প্যারেনস পরবর্তীতে বলেছেন যে তিনি মুক্ত উত্সাহের এরিয়েল রেমন্ডের প্রচারটি অনুভব করে নিঃসন্দেহে ফ্রি সফটওয়্যার ফাউন্ডেশনের প্রচেষ্টার ছায়ায় ছড়িয়ে পড়ে মুক্ত সফটওয়্যারের জন্য তার সমর্থন নিশ্চিত করেছে।

ওপেন সোর্সের সুবিধা[সম্পাদনা]

এই অবস্থায় আপনি হয়তো বলবেন, “আরে ভাই সোর্স কোড নিয়ে আমি কি করবো? আমি তো প্রোগ্রামিং পারি না”। ঠিক আছে, আপনি যদি এক লাইন প্রোগ্রামিং ও না পারেন তারপরেও আপনার ওপেন সোর্সকে সমর্থন করা প্রয়োজন। কেন? চলুন আমি নিচে কিছু কারন দর্শাচ্ছি। [৪]

ওপেন-সোর্স, কমিউনিটি তৈরি করতে সাহায্য করে[সম্পাদনা]

যখন কোন সোর্স কোডকে পাবলিক হিসেবে উন্মুক্ত করা হয়, তখন যেকোনো ডেভেলপার বা প্রোগ্রামার সেই সফটওয়্যারটি সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে পারে। এই অর্জিত জ্ঞান তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতাকে বাড়িয়ে দিতে পারে। যেমনটা লাইব্রেরীতে হয়ে থাকে, সেখানে একই বিষয়ের উপর বিভিন্নভাবে লেখা বিভিন্ন বই থাকে, যাতে বিষয়টিকে আরো ভালো ভাবে এক্সপ্লোর করা সম্ভব হয়। ওপেন-সোর্স নিয়ে কাজ করলে নিজের মেধা, পরিশ্রম, এবং সৃজনশীলতা এবং সকলের সাহায্য নিয়ে একেবারে নতুন কিছু উদ্ভবন করা সম্ভব।

এটি দ্রুত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়[সম্পাদনা]

মালিকানা কোন সফটওয়্যারে বা ক্লোজ সফটওয়্যারে কোন ত্রুটি খুঁজে পাওয়া গেলে, ব্যবহারকারীগনদের অপেক্ষা করতে হয়, যতক্ষণ না সেই সফটওয়্যার কোম্পানিটি তা ঠিক করে নতুন ভার্সন উন্মুক্ত করে, আর এটা অনেক সময় অনেক দেরি লাগিয়ে ফেলে। কিন্তু ওপেন-সোর্স সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে, আপনি ঠিক করতে না পারেন, কিন্তু হাজার হাজার ডেভেলপার রয়েছে, যাদের চোখ এড়িয়ে কোন ত্রুটি চলে যাওয়া মুশকিল, তারা দ্রুতই সেই ত্রুটি ফিক্স করে ফেলে। নামে ওপেন সোর্সে যেকোনো সফটওয়্যারের ত্রুটি অনেক দ্রুত সমাধান হতে পারে।

ওপেন সোর্স সফটওয়্যার প্রতিযোগিতা ও বৈচিত্র্যতার সৃষ্টি করে[সম্পাদনা]

ওপেন-সোর্স সফটওয়্যার বৈচিত্র্যতার জন্য বিশেষভাবে বিশিষ্ট। লিনাক্সের কতো গুলো ফ্লেভার রয়েছে, জেনেনই তো। আবার মজিলা ফায়ারফক্সের কতো গুলো ভাই ব্রাউজার রয়েছে তাও জানেন। এমনকি গুগল ক্রোম ব্রাউজারও ক্রমিয়াম নামক ওপেন-সোর্স প্রোজেক্ট থেকে প্রস্তুত। যখন প্রত্যেকেই কোন প্রোজেক্টকে নিজের হাতের নেয়ার ক্ষমতা পায়, এবং নিজের আইডিয়াতে রাঙাতে পারে, তখন অবশ্যই আপনি একসাথে অনেক বৈচিত্র্যতার সন্ধান পাবেন।

ওপেন-সোর্স সফটওয়্যার দায়িত্বকে প্রচার করে[সম্পাদনা]

যখন আপনি কোন প্রোগ্রামের সোর্স-কোড দেখতে পান, তখন আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে, ডেভেলপার কোন ম্যালিসিয়াস কিছু আপনার কম্পিউটারে প্রবেশ করাচ্ছে কিনা। যেমন ধরুন কীপাস একটি ওপেন-সোর্স পাসওয়ার্ড ম্যানেজার, যার মানে আপনি চেক করতে পারবেন যে, ডেভেলপাররা আপনার পাসওয়ার্ড চুরি করছে কিনা।

দায়িত্ব অনেক বড় একটি বিষয়, যখন এটি দেখানোর প্রশ্ন আসে ডিজিটাল নির্বাচন বুথে। বেশিরভাগ ভোটিং প্রোগ্রাম গুলো ক্লোজ সোর্স হয়ে থাকে, যেখানে আপনি এর সোর্স কোড গুলো অ্যাক্সেস করার সুবিধা পান না, ফলে আপনি জেনেন না যে সফটওয়্যারটি ভোটের হেরাফেরি করছে কিনা। নির্বাচনে দুর্নীতি হটানোর জন্য এই প্রোগ্রাম গুলোকে ওপেন সোর্স করা প্রয়োজন, যাতে অনেক ডেভেলপার একসাথে সফটওয়্যারটিকে নিরিক্ষা করতে পারে।

সরকারী ভাবে গ্রহন করা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "লিনাক্স ওয়ার্ল্ড শোকেজেস ওপেন-সোর্স গ্রোথ, এক্সপেনশন"ইনফরমেশন উইক। সিএমপি মিডিয়া, এলএলসি। ২০০৫-০৮-০৯। ২০০৭-১১-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০০৭-১১-২৫ 
  2. "স্টাডি ফাইন্ডস ওপেন সোর্স বেনিফিটস ইন বিজনেস"ইনফরমেশন উইক। সিএমপি মিডিয়া, এলএলসি। জানুয়ারি ১৭, ২০০৭। ২০০৭-১১-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১১ ২৫ ২০০৭  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. "ফ্রি সফটওয়ারের সংজ্ঞা"। জিএনইউ ডট অর্গ। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০২-০৪ 
  4. "ওপেন সোর্স সফটওয়্যারের সুবিধা" , টেকহাবস ব্লগিং ওয়েবসাইট কম্যুনিটির ওওএন সোর্স বিষয়ক ব্লগ থেকে।

টীকা[সম্পাদনা]

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]