পিটার ট্রাসকট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পিটার ট্রাসকট
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামপিটার বেনেটস ট্রাসকট
জন্ম (1941-08-14) ১৪ আগস্ট ১৯৪১ (বয়স ৭৯)
পাহিয়াতুয়া, মানাওয়াতু, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাব্যাটসম্যান
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
একমাত্র টেস্ট
(ক্যাপ ১০৫)
১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৫ বনাম পাকিস্তান
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৬১/৬২ক্যান্টারবারি
১৯৬৪/৬৫ - ১৯৬৫/৬৬ওয়েলিংটন
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ১৮
রানের সংখ্যা ২৯ ৯০৪
ব্যাটিং গড় ১৪.৫০ ২৫.৮২
১০০/৫০ ০/০ ১/৪
সর্বোচ্চ রান ২৬ ১৬৫
বল করেছে - ২০৪
উইকেট -
বোলিং গড় - ৪৮.৫০
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং - ২/৬০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ১০/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৩ অক্টোবর, ২০২০

পিটার বেনেটস ট্রাসকট (ইংরেজি: Peter Truscott; জন্ম: ১৪ আগস্ট, ১৯৪১) মানাওয়াতুর পাহিয়াতুয়া এলাকায় জন্মগ্রহণকারী সাবেক নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৬০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে ক্যান্টারবারি ও ওয়েলিংটন দলের প্রতিনিধিত্ব করেন পিটার ট্রাসকট। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন।

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৬১-৬২ মৌসুম থেকে ১৯৬৫-৬৬ মৌসুম পর্যন্ত পিটার ট্রাসকটের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান পিটার ট্রাসকটের খেলোয়াড়ী জীবন সংক্ষিপ্ত ছিল। ১৮টি প্রথম-শ্রেণীর খেলায় অংশ নিয়ে একটিমাত্র শতরানের ইনিংসের সন্ধান পান। ১৯৬৩-৬৪ মৌসুমে অকল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সদস্যেরূপে ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমে ১৬৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন।[১] পরবর্তীতে এটিই তার প্রথম খেলোয়াড়ী জীবনে একমাত্র শতরানের ইনিংস ছিল।

ডানহাতি ব্যাটসম্যান ছিলেন পিটার ট্রাসকট। মাত্র পাঁচ বছরব্যাপী প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন অতিবাহিত করেছিলেন তিনি। ১৯৬১-৬২ মৌসুমে ক্যান্টারবারির পক্ষে তিনটি খেলায় অংশ নিলেও তেমন কোন উল্লেখযোগ্য খেলা উপহার দিতে পারেননি। পরবর্তী দুই বছরে কেবলমাত্র দুই মৌসুম নিউজিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-২৩ দলের পক্ষে খেলেছেন। উভয় মৌসুমেই তিনি একটি করে খেলায় অংশ নেন। ১৯৬৩-৬৪ মৌসুমে অকল্যান্ডের বিপক্ষে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের সদস্যরূপে ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমে ১৬৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন।

১৯৬৪-৬৫ ও ১৯৬৫-৬৬ মৌসুমে ওয়েলিংটনের পক্ষে নিয়মিতভাবে খেলতে থাকেন পিটার ট্রাসকট। তন্মধ্যে, ওতাগোর বিপক্ষে ব্রুস মারে’র সাথে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৮৪ ও ৯৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন।[২]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন পিটার ট্রাসকট। ১২ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৫ তারিখে ক্রাইস্টচার্চে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল। এরপর আর তাকে কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি।

মাত্র এক টেস্টে অংশ নেয়ার সুযোগ হয়েছিল তার। ঘরোয়া ক্রিকেটে সুন্দর খেলা উপহারের স্বীকৃতিস্বরূপ ক্রাইস্টচার্চে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে তাকে খেলার জন্যে আমন্ত্রণ জানানো হয়। ১৯৬৪-৬৫ মৌসুমে ক্রাইস্টচার্চে ঐ টেস্টটি খেলেছিলেন। ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমে ৩ ও ২৬ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।[৩] কিন্তু, ১৯৬৫ সালে ভারত, পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড গমনার্থে তাকে নিউজিল্যান্ড দলের পক্ষে সদস্য করা হয়নি।

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৬৫-৬৬ মৌসুমে সফররত এমসিসি দলের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট কাউন্সিল সভাপতি একাদশের সদস্যরূপে খেলেন। তবে, ঐ মৌসুম শেষে তিনি আর কোন প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট খেলায় অংশ নেননি।

ক্রিকেট খেলা থেকে নিজেকে সড়িয়ে আনার পর পিটার ট্রাসকট তার পরিবারকে নিয়ে পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার পার্থে স্থানান্তরিত হন। সেখানে তিনি ব্যাংকের হিসাবরক্ষক হিসেবে কাজ করতে থাকেন। এরপর তিনি নিউজিল্যান্ডে ফিরে আসেন। নেলসনে রেস্তোঁরা পরিচালনার পর হোয়াঙ্গারেইয়ে মোটেল পরিচালনায় অগ্রসর হন। পাশাপাশি, আবাসিক গৃহ নির্মাণ ব্যবসায় কাজ করেন। ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত তিনি। অবসর গ্রহণের পর স্ত্রী সুইকে সাথে নিয়ে অকল্যান্ডের শহরতলী ওরিয়াতে বসবাস করছেন।[৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Auckland v New Zealand Under-23s 1963-64"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৮ 
  2. "Otago v Wellington 1964-65"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ৯ মার্চ ২০১৮ 
  3. Wisden 1966, pp. 843-44.
  4. Alderson, Andrew (১৩ মার্চ ২০১৮)। "New Zealand Cricket's One Test Wonders: Peter Truscott"NZ Herald। সংগ্রহের তারিখ ২ জুলাই ২০২০ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]