পল টমাস অ্যান্ডারসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
পল টমাস অ্যান্ডারসন
Paul Thomas Anderson
Paul Thomas Anderson 2007 crop.jpg
২০০৭ সালের ডিসেম্বরে অ্যান্ডারসন
জন্ম (1970-06-26) ২৬ জুন ১৯৭০ (বয়স ৫০)
অন্যান্য নামপি. টি. অ্যান্ডারসন, পিটিএ
শিক্ষাসান্তা মনিকা কলেজ
এমারসন কলেজ
নিউ ইয়র্ক বিশ্ববিদ্যালয়
পেশাচলচ্চিত্র নির্মাতা
কর্মজীবন১৯৮৮–বর্তমান
সঙ্গীমায়া রুডলফ (২০০১–বর্তমান)[১]
সন্তান
পিতা-মাতাআর্নি অ্যান্ডারসন (পিতা)

পল টমাস অ্যান্ডারসন (ইংরেজি: Paul Thomas Anderson, জন্ম ২৬ জুন ১৯৭০) হলেন একজন মার্কিন চলচ্চিত্র নির্মাতা। কর্মজীবনে তিনি আটটি একাডেমি পুরস্কার, একটি গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার ও পাঁচটি বাফটা পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করেন। তিনি একমাত্র পরিচালক যিনি তিনটি প্রধান চলচ্চিত্র উৎসব (কান, বার্লিনভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব) থেকে তিনটি শ্রেষ্ঠ পরিচালনার পুরস্কার অর্জন করেছেন।

১৯৯৩ সালে তিনি সিগারেট অ্যান্ড কফি নামক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের রচনা ও পরিচালনা করেন। সানড্যান্স ইনস্টিটিউটের প্রাক্তন শিক্ষার্থী অ্যান্ডারসন রাইশার এন্টারটেইনমেন্টের প্রযোজনায় নব্য-নোয়া অপরাধ থ্রিলারধর্মী হার্ড এইট (১৯৯৬) চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন। তিনি বুগি নাইটস (১৯৯৭) চলচ্চিত্র পরিচালনা করে সমালোচনামূলক ও ব্যবসায়িক সফলতা অর্জন করেন। তার তৃতীয় চলচ্চিত্র ম্যাগনোলিয়া (১৯৯৯) ইতিবাচক পর্যালোচনা অর্জন করে এবং বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য স্বর্ণ ভল্লুক অর্জন করেন, কিন্তু বক্স অফিসে তেমন সফলতা অর্জন করতে পারেনি। অ্যান্ডারসনের চতুর্থ চলচ্চিত্র হাস্যরসাত্মক নাট্যধর্মী পাংক-ড্রাংক লাভ (২০০২) ইতিবাচক সমালোচনা অর্জন করে এবং তিনি কান চলচ্চিত্র উৎসব থেকে শ্রেষ্ঠ পরিচালনার পুরস্কার অর্জন করেন।

মহাকব্যিক নাট্যধর্মী দেয়ার উইল বি ব্লাড (২০০৭) পাঁচ বছর বিরতির পর মুক্তি পায় এবং ব্যাপক ইতিবাচক পর্যালোচনা লাভ করে। অ্যান্ডারসন এই ছবির জন্য বার্লিন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব থেকে শ্রেষ্ঠ পরিচালনার পুরস্কার লাভ করে। তার ষষ্ঠ চলচ্চিত্র নাট্যধর্মী দ্য মাস্টার (২০১২) সমালোচনামূলক সফলতা অর্জন করে এবং ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসব থেকে দ্বিতীয় শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের জন্য স্বর্ণ সিংহ লাভ করে। তার সপ্তম চলচ্চিত্র অপরাধ হাস্যরসাত্মক নাট্যধর্মী ইনহেরেন্ট ভাইস ২০১৪ সালে মুক্তি পায় এবং অল্প সংখ্যক সমালোচকদের প্রশংসা লাভ করে। ২০১৫ সালে তিনি প্রামাণ্য চলচ্চিত্র জুনুন নির্মাণ করেন। তার পরবর্তী চলচ্চিত্র ফ্যান্টম থ্রেড (২০১৭) লন্ডনের পটভূমিতে নির্মিত।[২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

অ্যান্ডারসন ১৯৭০ সালের ২৬শে জুন লস অ্যাঞ্জেলেসের স্টুডিও সিটিতে জন্মগ্রহণ করেন। তার মাতা এডউইনা (বিবাহপূর্ব নাম গগ) এবং পিতা আর্নি অ্যান্ডারসন[৩][৪] আর্নি একজন অভিনেতা ছিলেন, তিনি এবিসিতে কণ্ঠ দিতেন এবং ঘুলার্ডি নামে একটি ক্লিভল্যান্ড টেলিভিশনের রাত্রীকালীন ভীতিপ্রদ চলচ্চিত্রের উপস্থাপক হিসেবে কাজ করতেন, এই নামেই অ্যান্ডারসন পরবর্তী কালে তার প্রযোজনা কোম্পানির নাম রাখেন।[৩][৪] অ্যান্ডারসন স্যান ফার্নান্দো ভ্যালিতে বেড়ে ওঠেন।[৫] তিনি তার পিতামাতার নয় সন্তানের মধ্যে সপ্তম।[৬][৭] তার মায়ের সাথে তার সুসম্পর্ক ছিল না কিন্তু তার পিতার সাথে খুবই ঘনিষ্ঠ ছিলেন, যিনি তাকে লেখক বা পরিচালক হতে অনুপ্রাণিত করেন।[৮] অ্যান্ডারসন একাধিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেন, তন্মধ্যে রয়েছে বাকলি স্কুল, জন টমাস ডাই স্কুল, ক্যাম্পবেল হল স্কুল, কাশিং একাডেমি ও মন্টক্লেয়ার কলেজ প্রিপারেটরি স্কুল।[৭]

পুরস্কার ও মনোনয়ন[সম্পাদনা]

একাডেমি পুরস্কার
বছর বিভাগ মনোনীত কর্ম ফলাফল
১৯৯৮ শ্রেষ্ঠ মৌলিক চিত্রনাট্য বুগি নাইটস মনোনীত
২০০০ ম্যাগনোলিয়া মনোনীত
২০০৮ শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র দেয়ার উইল বি ব্লাড মনোনীত
শ্রেষ্ঠ পরিচালনা মনোনীত
শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য মনোনীত
২০১৫ ইনহেরেন্ট ভাইস মনোনীত
২০১৮ শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ফ্যান্টম থ্রেড মনোনীত
শ্রেষ্ঠ পরিচালনা মনোনীত
গোল্ডেন গ্লোব পুরস্কার
বছর বিভাগ মনোনীত কর্ম ফলাফল
২০০৮ সেরা নাট্যধর্মী চলচ্চিত্র দেয়ার উইল বি ব্লাড মনোনীত
বাফটা পুরস্কার
বছর বিভাগ মনোনীত কর্ম ফলাফল
১৯৯৮ শ্রেষ্ঠ মৌলিক চিত্রনাট্য বুগি নাইটস মনোনীত
২০০৮ শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র দেয়ার উইল বি ব্লাড মনোনীত
শ্রেষ্ঠ পরিচালনা মনোনীত
শ্রেষ্ঠ উপযোগকৃত চিত্রনাট্য মনোনীত
২০১৩ দ্য মাস্টার মনোনীত

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. সিলম্যান, অ্যানা (ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮)। "Paul Thomas Anderson and Maya Rudolph Are the Greatest Celebrity Couple"দ্য কাট। নিউ ইয়র্ক মিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  2. এরলিখ, ডেভিড (২১ ডিসেম্বর ২০১৭)। "Paul Thomas Anderson Movies Ranked from Worst to Best"ইন্ডিওয়্যার (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জুন ২০১৮ 
  3. ওয়াক্সম্যান, শ্যারন আর. (২০০৫)। Rebels on the backlot: six maverick directors and how they conquered the Hollywood studio systemহারপারকলিন্স। পৃষ্ঠা ৮৪। আইএসবিএন 978-0-06-054017-3 
  4. লুটারমস্টার, জন (এপ্রিল ৫, ২০০৮)। "'There Will Be Blood' comes out on video Tuesday"ক্লিভল্যান্ড.কম। ক্লিভল্যান্ড লাইভ ইনকর্পোরেটেড। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  5. ওয়াক্সম্যান, শ্যারন আর. (২০০৫)। Rebels on the backlot: six maverick directors and how they conquered the Hollywood studio systemহারপারকলিন্স। পৃষ্ঠা xii, xiii। আইএসবিএন 978-0-06-054017-3 
  6. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; portmagazine নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  7. রিচার্ডসন, জন এইচ. (সেপ্টেম্বর ২২, ২০০৮)। "The Secret History of Paul Thomas Anderson"এস্কোয়ার। হার্স্ট কমিউনিকেশন ইনকর্পোরেশন। সংগ্রহের তারিখ ৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 
  8. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; nytimes2 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]