শিরিন নেশাত

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শিরিন নেশাত

শিরিন নেশাত (ফার্সি: شیرین نشاط‎‎; জন্ম ২৬শে মার্চ, ১৯৫৭)[১][২] নিউইয়র্ক শহরে বসবাসকারী একজন ইরানি ভিজ্যুয়াল শিল্পী, তিনি মূলত চলচ্চিত্র, ভিডিও ও ফটোগ্রাফিতে তার কাজের জন্য পরিচিত। [৩][৪] তার শিল্পকর্ম ইসলাম ও পাশ্চাত্যের মধ্যে বৈপরীত্য, নারীত্ব ও পুরুষত্ব, জনজীবন ও ব্যক্তিগত জীবন, প্রাচীনত্ব ও আধুনিকতা এবং এই বিষয়গুলির মধ্যে ব্যবধানকে কেন্দ্র করে আবর্তিত হয়।[৫][৬]

বিশেষ করে ইসলামী বিপ্লবের পর থেকে যেহেতু ইরান মৌলিক মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে, সেই জন্য তিনি বলেছিলেন যে তিনি অত্যাচার, স্বৈরশাসন, নিপীড়ন ও রাজনৈতিক অবিচারের সাথে সম্পর্কিত শিল্প তৈরির দিকে মনোনিবেশ করেছেন। যদিও আমি নিজেকে একজন কর্মী মনে করি না, আমি বিশ্বাস করি আমার শিল্প - তার প্রকৃতি যাই হোক না কেন - এটি প্রতিবাদের প্রকাশ, মানবতার জন্য কান্না”।[৭]

শিরিন নেশাত ১৯৯৯ সালে ৪৮তম ভেনিস বিয়েনেল ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড[৮] ও সেরা পরিচালক হিসেবে ২০০৯ সালে ৬৬তম ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে সিলভার লায়ন জয়[৯] থেকে শুরু করে হাফিংটন পোস্ট সমালোচক জি রজার ডেনসন দ্বারা দশকের শিল্পী নামে স্বীকৃত হয়েছেন।[১০] তিনি ইয়েল স্কুল অফ আর্টের ফটোগ্রাফি বিভাগে একজন সমালোচক। [১১]

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিরিন নেশাত ধনী পিতামাতার পাঁচ সন্তানের মধ্যে চতুর্থ সন্তান হিসাবে উত্তর-পশ্চিম ইরানের ধর্মীয় শহর কাজভিনে[১২] "খুব আন্তরিক, সহায়ক মুসলিম পারিবারিক পরিবেশ"-এ [১৩] লালিত-পালিত হন, যেখানে তিনি তার মাধ্যমে সনাতন ধর্মীয় মূল্যবোধ শিখেছিলেন মাতামহ দাদুর নেশাতের বাবা ছিলেন একজন চিকিৎসক এবং তার মা একজন গৃহিণী।

শিরিন তেহরানের একটি ক্যাথলিক বোর্ডিং স্কুলে ভর্তি হয়েছিল। তার মতে, তার বাবা তার প্রতিটি মেয়েকে "একজন ব্যক্তি হতে, ঝুঁকি নিতে, শিখতে, বিশ্ব দেখতে" উৎসাহিত করেছিলেন। তিনি উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য তার ছেলেদের পাশাপাশি তার মেয়েদের কলেজে পাঠিয়েছিলেন।[১৩]

শিরিন ১৯৫৭ সালে ইউসি বার্কলেতে কলা বিষয়ে অধ্যয়নের জন্য ইরান ত্যাগ করেন এবং বিএ, এমএ ও এমএফএ সম্পন্ন করেন।[১৪] তিনি ১৯৮৩ সালে ইউসি বার্কলে থেকে স্নাতক হন এবং শীঘ্রই নিউ ইয়র্ক সিটিতে চলে যান। সেখানে তিনি দ্রুত বুঝতে পারলেন যে শিল্প তৈরি করা তার পেশা হবে না। তার ভবিষ্যত স্বামীর সাথে দেখা করার পর, যিনি ম্যানহাটনের একটি বিকল্প স্থান স্টোরফ্রন্ট ফর আর্ট অ্যান্ড আর্কিটেকচারের পরিচালনা করেন। শিরিন নিজের জীবনের ১০ বছর সেখানে তার সাথে কাজ করেন।[১৫]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Shirin Neshat"। THE SOLOMON R. GUGGENHEIM FOUNDATION। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  2. "Shirin Neshat"। International Center of Photography। ২ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  3. "The Woman Behind the Screen"The New Yorker। অক্টোবর ২২, ২০০৭। 
  4. Claudia La Rocco (নভেম্বর ১৪, ২০১১)। "Shirin Neshat's Performa Contribution"The New York Times। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১২ 
  5. Holzwarth, Hans W. (২০০৯)। 100 Contemporary Artists A-Z (Taschen's 25th anniversary special সংস্করণ)। Taschen। পৃষ্ঠা 416–421। আইএসবিএন 978-3-8365-1490-3 
  6. Müller, Katrin Bettina। "Away overseas"Shirin Neshat artist portrait। মার্চ ৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ৫, ২০১৬ 
  7. The Guardian, 25 November 2019 amnesty art sale
  8. Susan Horsburgh (মার্চ ২৬, ২০০১)। "The Great Divide"Time। জানুয়ারি ৯, ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  9. Homa Khaleeli (জুন ১৩, ২০১০)। "Shirin Neshat: A long way from home"The Guardian 
  10. Denson, G. Roger, "Shirin Neshat: Artist of the Decade", The Huffington Post, December 20, 2010.
  11. "Shirin Neshat"Yale School of Art (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-২৮ 
  12. Suzie Mackenzie (জুলাই ২২, ২০০০)। "An unveiling"The Guardian 
  13. MacDonald, Scott (সেপ্টেম্বর ২২, ২০০৪)। "Between two worlds: an interview with Shirin Neshat"। Highbeam.com। মে ১১, ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ মার্চ ২৯, ২০১২ 
  14. Heartney, Eleanor (২০০৭)। After the Revolution: Women Who Transformed Contemporary Art। Prestel। পৃষ্ঠা 230–231। আইএসবিএন 9783791337326 
  15. Danto, Arthur Coleman (১৫ অক্টোবর ২০০০)। "Shirin Neshat": 60–67। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]