দ্য রিমেইন্স অব দ্য ডে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
দ্য রিমেইন্স অব দ্য ডে
দ্য রিমেইন্স অব দ্য ডের প্রচ্ছদ.jpg
প্রথম সংস্করণের প্রচ্ছদ
লেখককাজুও ইশিগুরো
দেশযুক্তরাজ্য
ভাষাইংরেজি
ধরনঐতিহাসিক উপন্যাস
প্রকাশকফেবার অ্যান্ড ফেবার
প্রকাশনার তারিখ
মে ১৯৮৯
মিডিয়া ধরনমুদ্রণ (শক্তমলাট)
পৃষ্ঠাসংখ্যা২৫৮
আইএসবিএন৯৭৮-০-৫৭১-১৫৩১০-৭
ওসিএলসি৫৯১৬৫৬০৯
পূর্ববর্তী বইঅ্যান আর্টিস্ট অব দ্য ফ্লোটিং ওয়ার্ল্ড 
পরবর্তী বইদ্য আনকনসোল্ড 

দ্য রিমেইন্স অব দ্য ডে (ইংরেজি: The Remains of the Day) নোবেল পুরস্কার বিজয়ী কাজুও ইশিগুরো রচিত ১৯৮৯ সালের উপন্যাস। এই উপন্যাসের কেন্দ্রীয় চরিত্র স্টিভেন্স দীর্ঘদিন ইংল্যান্ডের অক্সফোর্ডের নিকটবর্তী ডার্লিংটন হোমে গৃহপরিচারকের কাজ করেছেন। ১৯৫৬ সালে তিনি তার এক সহকর্মীর সাথে সাক্ষাৎ করতে পথযাত্রায় বের হন এবং ১৯২০-এর দশক থেকে ১৯৩০-এর দশকে ডার্লিংটন হলে ঘটে যাওয়া ঘটনাবলির স্মৃতিচারণ করেন।[১]

উপন্যাসটি ১৯৮৯ সালে কথাসাহিত্যে বুকার পুরস্কার লাভ করে। এই উপন্যাস অবলম্বনে ১৯৯৩ সালে একই নামের একটি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়, যাতে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেন অ্যান্থনি হপকিন্সএমা টমসন। চলচ্চিত্রটি আটটি বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে।

চরিত্রাবলি[সম্পাদনা]

  • মিস্টার স্টিভেন্স - বর্ণনাকারী, একজন ইংরেজ গৃহপরিচারক যিনি ডার্লিংটন হলে কাজ করতেন।
  • মিস কেন্টন - ডার্লিংটন হলের গৃহপরিচারিকা, বিবাহোত্তর মিসেস বেন নামে পরিচিত।
  • লর্ড ডার্লিংটন - ডার্লিংটন হলের মালিক।
  • উইলিয়াম স্টিভেন্স (মিস্টার স্টিভেন্স সিনিয়র) - মিস্টার স্টিভেন্সের ৭৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ বাবা।
  • সেনেটর লুইস - একজন মার্কিন সেনেটর যিনি রাজনীতিতে অপরিপক্ক হওয়ার জন্য লর্ড ডার্লিংটনের সমালোচনা করেন।
  • ইয়াং মিস্টার কার্ডিনাল - লর্ড ডার্লিংটনের একজন ঘনিষ্ঠ বন্ধু ও সাংবাদিকের পুত্র। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় সে বেলজিয়ামে মারা যান।
  • এম. ডুপন্ট - লর্ড ডার্লিংটনের সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী উচ্চ পর্যায়ের ফরাসি রাজনীতিবিদ।

প্রকাশনার ইতিহাস[সম্পাদনা]

রিমেইন্স অব দ্য ডে ১৯৮৯ সালের মে মাসে ফেবার অ্যান্ড ফেবার থেকে যুক্তরাজ্যে প্রথম প্রকাশিত হয়[২] এবং ১৯৮৯ সালের ৪ঠা অক্টোবর আলফ্রেড এ. নফ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রকাশিত হয়।[৩]

উপযোগকরণ[সম্পাদনা]

  • উপন্যাসটি অবলম্বনে ১৯৯৩ সালে একই নামের একটি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়। এটি পরিচালনা করেন জেমস আইভরি এবং প্রযোজনা করেন ইসমাইল মার্চেন্ট, মাইক নিকল্‌সজন কেলি। চলচ্চিত্রটিতে স্টিভেন্স চরিত্রে অভিনয় করেন অ্যান্থনি হপকিন্স এবং মিস কেন্টন চরিত্রে এমা টমসন। চলচ্চিত্রটি আটটি বিভাগে একাডেমি পুরস্কারের মনোনয়ন লাভ করে।[৪]
  • উপন্যাসটি অবলম্বনে নির্মিত দুই ঘণ্টা দৈর্ঘ্যের একটি বেতার নাটকে শ্রেষ্ঠাংশে অভিনয় করেন ইয়ান ম্যাকডায়ারমিড, যা ৮ ও ১৫ আগস্ট ২০০৩ তারিখে বিবিসি রেডিও ৪ এ প্রচারিত হয়।[৫]
  • উপন্যাসটির সঙ্গীতনাট্য উপযোগী করেন আলেক্স লাভলেস,[৬] যা ২০১০ সালে লন্ডনের ইউনিয়ন থিয়েটারে মঞ্চস্থ হয়,[৭][৮] এবং ইতিবাচক পর্যালোচনা লাভ করে।[৯][১০][১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. গ্রেভার, লরেন্স (৮ অক্টোবর ১৯৮৯)। "What the Butler Saw"দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0362-4331। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  2. "Forthcoming Books May 1989"। ব্রিটিশ বুক নিউজব্রিটিশ কাউন্সিল: ৩০০। এপ্রিল ১৯৮৯। আইএসএসএন 0007-0343 
  3. "The Remains of the Day"কারকাস রিভিউ। ১৯৮৯-০৯-১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ডিসেম্বর ২০২১ 
  4. "The Remains of the Day"রটেন টম্যাটোস (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  5. ফ্রিয়েল, জিম (১৯ মে ২০০৮)। "Programme Leader of the MA in Writing"লিভারপুল জন মুরস বিশ্ববিদ্যালয়। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  6. AFP, Remains of the Day musical opens in London (news article), ৮ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা, সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  7. "Musical of The Remains of the Day to première", The Stage (news story), UK .
  8. ওয়াকার, টিম (২৮ মে ২০০৯)। "It's Remains of the Day: the musical for Kazuo Ishiguro"দ্য ডেইলি টেলিগ্রাফ। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  9. "The Remains of the Day"দ্য স্টেজ। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  10. "Songs for English reserve in The Remains of the Day"দিস ইজ লন্ডন (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১ 
  11. "The Remains of The Day, Union Theatre"ফাইন্যান্সিয়াল টাইমস। ২ সেপ্টেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৭ ডিসেম্বর ২০২১