জে. জি. ফারেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জে. জি. ফারেল
স্থানীয় নাম
James Gordon Farrell
জন্মজেমস গর্ডন ফারেল
(1935-01-25) ২৫ জানুয়ারি ১৯৩৫ (বয়স ৮৪)
লিভারপুল, যুক্তরাজ্য
মৃত্যু১১ আগস্ট ১৯৭৯(1979-08-11) (বয়স ৪৪)
বান্ট্রি বে, কাউন্টি কর্ক, আয়ারল্যান্ড
সমাধিস্থলসেন্ট জেমস চার্চ, আয়ারল্যান্ড
পেশালেখক
ভাষাইংরেজি
জাতীয়তাব্রিটিশ
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানব্রাসেনস কলেজ, অক্সফোর্ড
ধরনউপন্যাস
উল্লেখযোগ্য রচনাবলি
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার
সক্রিয় বছর১৯৬৩-১৯৭৯

জেমস গর্ডন ফারেল (ইংরেজি: James Gordon Farrell; ২৫ জানুয়ারি, ১৯৩৫ - ১১ আগস্ট, ১৯৭৯) ছিলেন একজন ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত আইরিশ ঔপন্যাসিক। তিনি তার এম্পায়ার ত্রয়ী উপন্যাস ট্রাবল্‌স (১৯৭০), দ্য সীজ অফ কৃষ্ণপুর (১৯৭৩), ও দ্য সিঙ্গাপুর গ্রিপ (১৯৭৮) এর জন্য পরিচিতি লাভ করেন। উপন্যাস তিনটিতে ব্রিটিশ উপনিবেশিক শাসনের রাজনৈতিক ও মানবিক দিকগুলো উঠে এসেছে। তিনি ১৯৭১ সালে ট্রাবল্‌স উপন্যাসের জন্য জেওফ্রি ফেবার স্মারক পুরস্কার এবং ১৯৭৩ সালে দ্য সীজ অফ কৃষ্ণপুর উপন্যাসের জন্য ম্যান বুকার পুরস্কার অর্জন করেন। ২০১০ সালে ট্রাবল্‌স লস্ট ম্যান বুকার পুরস্কার লাভ করে।

জীবনী[সম্পাদনা]

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

ফারেল ১৯৩৫ সালের ২৫ জানুয়ারি লিভারপুলে এক ইঙ্গ-আইরিশ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা উইলিয়াম ফারেল ১৯২৯ সালে বেঙ্গল প্রেসিডেন্সিতে অ্যাকাউন্ট্যান্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার মা প্রুডেন্স জোসেফিন রাসেল ছিলেন একজন রিসেপশনিস্ট ও ডাক্তারের সহকারী। ১২ বছর বয়সে গর্ডন ফারেল ল্যাঙ্কাশায়ারের রোজেল স্কুলে পড়াশুনা করেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে ফারেলের পরিবার ডাবলিনে চলে যান এবং ফলে তিনি আয়ারল্যান্ডে বেশি সময় কাটান। রোজেল স্কুল ছাড়ার পর তিনি কিছুদিন কানাডিয়ান আর্কটিকের ডিসট্যান্ট আর্লি ওয়ার্নিং লাইন-এ কাজ করেন। ১৯৫৬ সালে তিনি ব্রাসেনস কলেজ, অক্সফোর্ড-এ ভর্তি হন। ব্রাসেনসে পড়াকালীন তিনি পোলিও রোগে আক্রান্ত হন এবং অংশিক পঙ্গু হয়ে যান। ১৯৬০ সালে তিনি অক্সফোর্ড থেকে তৃতীয় বিভাগে পাস করেন এবং ফ্রান্সে চলে যান। সেখানে তিনি লাইসিতে পাঠদান শুরু করেন।[১]

প্রাথমিক সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

ফারেল রচিত প্রথম উপন্যাস অ্যা ম্যান ফ্রম এলসওয়্যার ১৯৬৩ সালে প্রকাশিত হয়। দুই বছর পর তার দ্বিতীয় উপন্যাস দ্য লাং (১৯৬৫) প্রকাশিত হয়। ১৯৬৭ সালে তিনি তার তৃতীয় উপন্যাস অ্যা গার্ল ইন দ্য হেড প্রকাশ করেন।[১]

এম্পায়ার ত্রয়ী[সম্পাদনা]

তার রচিত এম্পায়ার ত্রয়ী উপন্যাস ট্রাবল্‌স (১৯৭০), দ্য সীজ অফ কৃষ্ণপুর (১৯৭৩), ও দ্য সিঙ্গাপুর গ্রিপ (১৯৭৮) এর জন্য তিনি সমাদৃত হন। ২০০৮ সালে সালমান রুশদি বলেন, "সন্দেহাতীতভাবে তিনি (ফারেল) বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা ইংরেজ ঔপন্যাসিক। তাঁর রেখে যাওয়া উপন্যাস ত্রয়ী পৃথকভাবে অসাধারণ।"[২]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

১৯৭৯ সালে ফারেল লন্ডন ছেড়ে দিয়ে দক্ষিণ আয়ারল্যান্ডের শিপ্‌স হেড পেনিন্‌সুলায় থাকার সিদ্ধান্ত নেন। কয়েকমাস পরে ব্রান্টি বের উপকূলে পানিতে ডুবে মারা যান।[৩][৪] তাকে সেন্ট জেমস চার্চ, আয়ারল্যান্ডে সমাধিস্ত করা হয়।

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

প্রাথমিক সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

  • অ্যা ম্যান ফ্রম এলসওয়্যার (১৯৬৩)
  • দ্য লাং (১৯৬৫)
  • অ্যা গার্ল ইন দ্য হেড (১৯৬৭)

এম্পায়ার ত্রয়ী[সম্পাদনা]

মৃত্যুর পর প্রকাশিত[সম্পাদনা]

  • দ্য পুসিক্যাট হু ফেল ইন লাভ উইথ অ্যা সুটকেস (১৯৭৩-৭৪, আটলান্টিস)
  • দ্য হিল স্টেশন (১৯৮১)
  • অ্যান ইন্ডিয়ান ডায়েরি (অপ্রকাশিত, সম্পাদক জন স্পারলিং)

পুরস্কার[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Prusse, Michael C. (২০০৩)। British and Irish Novelists Since 1960। Detroit, Michigan: Gale। আইএসবিএন 978-0-7876-6015-4 
  2. Greacen, Lavinia (ed.). "JG Farrell in His Own Words: Selected Letters and Diaries". Cork University Press।
  3. "J.G. Farrell's eyewitness account of his death is published"Cork University Press। ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ১৫ মার্চ ২০১৭ 
  4. Caroline Walsh, "Loose Leaves", Irish Times, 11 December 2010

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]