তুই যদি আমার হইতি রে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
তুই যদি আমার হইতিরে
তুই যদি আমার হইতি রে চলচ্চিত্র পোস্টার.jpeg
পরিচালকউত্তম আকাশ
রচয়িতাউত্তম আকাশ
শ্রেষ্ঠাংশে
সুরকারইমন সাহা
চিত্রগ্রাহকআকাশ
সম্পাদকমজনু
পরিবেশকঅনুপম
মুক্তি২০০৭
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা

তুই যদি আমার হইতিরে হচ্ছে ২০০৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত একটি বাংলাদেশী প্রণয়ধর্মী নাট্য চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি রচনা ও পরিচালনা উত্তম আকাশ। চলচ্চিত্রটিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন শাকিব খান, ফেরদৌস আহমেদমৌসুমীবাংলাদেশের চলচ্চিত্র ইতিহাসে এখনও পর্যন্ত এটিই প্রথমবার, যেখানে শাকিব খানমৌসুমী পর্দায় একসঙ্গে জুটি বেধে অভিনয় করেছেন।

গল্প[সম্পাদনা]

শাকিব খান একটি এলাকার যুবক বাড়িওয়ালা। একদিন সে মৌসুমীকে দেখে তার প্রেমে পড়ে গেল। তবে মৌসুমী ফেরদৌস নামে এক সাধারণ গ্রামের মানুষকে পছন্দ করেন। শাকিব খান সত্যই মোসুমিকে আশা করেছেন। মৌসুমী বুঝতে চেষ্টা করেছিলেন যে তিনি তার থেকে জুনিয়র এবং তিনি অন্য একজনকে ভালবাসেন। তবে শাকিব খান তাকে পেতে দৃড় প্রতিজ্ঞা।

এর জন্য শাকিব খান ফেরদৌসকে তুলে তার চোখ নষ্ট করেন। তারপরে তিনি মৈসুমীকে তার প্রাসাদে নিয়ে যান। বাড়িওয়ালা শাকিব খানের সাথে প্রেম করেছেন অভিনয় করেছেন মৌসুমী। সময়ের পরে তিনি বুঝতে পেরেছিলেন যে জোর করে নিজের হৃদয়ের মালিক হওয়া অসম্ভব। গল্পটি শেষ হয় যখন শাকিব খান ফেরদৌসের দিকে চোখ তুলে নিজেকে গুলি করেন। তার দৃষ্টি ফিরে পাওয়ার পরে, ফেরদৌস জিজ্ঞাসা করলেন কে তাকে চোখ দিয়েছে এবং তাকে দেখতে চায়। চিকিৎসক তাকে শাকিব খানের মৃতদেহে নিয়ে আসেন।

অভিনয়[সম্পাদনা]

কুশলীব[সম্পাদনা]

প্রযুক্তি[সম্পাদনা]

  • ফরম্যাট: ৩৫ এমএম
  • রিল: ১৩ এমপি
  • ভাষা: বাংলা
  • দেশ: বাংলাদেশ
  • মুক্তি: ২০০৭

সংগীত[সম্পাদনা]

তুই যদি আমার হইতি রে চলচ্চিত্রের সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন ইমন সাহা, পাশাপাশি এর সবগুলো গানের গীত রচনা করেছেন কবির বকুল

নং নাম শিল্পী অভিনয় মন্তব্য
"তুই যদি আমার হইতি রে"[১] মনির খান শাকিব খানমৌসুমী শিরোনাম সংগীত
"ভালবাসো বলে তুমি" মনির খান, কনক চাঁপাএন্ড্রু কিশোর শাকিব খান, ফেরদৌস আহমেদমৌসুমী
"বন্ধু আমার প্রেমের ডাক্তার" মমতাজ বেগম ও রিজিয়া ফেরদৌস আহমেদমৌসুমী
"আমার প্রিয়তমা" মনির খানশাকিলা জাফর শাকিব খানমৌসুমী
"চাঁদ মুখের হাসি" পলাশ ও শশী ফেরদৌস আহমেদমৌসুমী

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]