ড্রেজিং কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ড্রেজিং কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া লিমিটেড
ধরনপোর্ট কনসোর্টিয়াম
শিল্প
প্রতিষ্ঠাকাল৯ মার্চ ১৯৭৬ (1976-03-09)[১]
সদরদপ্তর,
প্রধান ব্যক্তি
  • রাজেশ ত্রিপাঠি (ব্যবস্থাপনা পরিচালক)
[২]
পণ্যসমূহরক্ষণাবেক্ষণ ড্রেজিং, গভীর ড্রেজিং, জমি পুনরুদ্ধার, সৈকত পরিচর্যা
আয়হ্রাস ৭,৪৩৮ মিলিয়ন (US$১০০.৪২ মিলিয়ন)[৩] (২০১৪)
বৃদ্ধি ৬২৪ মিলিয়ন (US$৮.৪২ মিলিয়ন)[৩] (২০১৪)
কর্মীসংখ্যা
৫৬৬[৩] (২০১৪)
ওয়েবসাইটdredge-india.com

ড্রেজিং কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড বা ডিসিআই ড্রেজিং ব্যবসায় সম্পৃক্ত একক।[৪] একচেটিয়াভাবে ভারতের জলপথ ও বন্দরগুলিতে পলি মাটি উত্তোলন বা ড্রেজিং করে নৌ-চলাচল সক্রিয় রাখে। এটি মাঝে মধ্যে শ্রীলঙ্কা, তাইওয়ান ও দুবাইয়ের সমুদ্রবন্দরগুলিতে ড্রেজিং করে।[৫][৬][৭] এটি মূলত রক্ষণাবেক্ষণ ড্রেজিংয়ের সাথে জড়িত। সরকারী বিধিবিধানের কারণে ভারতীয় সমুদ্রবন্দরগুলিতে প্রায় সমস্ত রক্ষণাবেক্ষণ ডেসিআই দ্বারা চালিত হয়।[৮][৯] গভীর ড্রেজিং, সৈকত পরিচর্যা ও জমি পুনরুদ্ধারের সাথেও ডিসিআই জড়িত রয়েছে।[১০] ডিসিআই যে প্রধান সমুদ্রবন্দরগুলিতে ব্যবসা করে সেগুলি হল বিশাখাপত্তনম বন্দর, হলদিয়া, কান্ডালা, কোচিন বন্দরএন্নোর বন্দর

ডিসিআই-এর সদর দফতরটি বিশাখাপত্তনমে অবস্থিত এবং ভারতের অনেক সমুদ্রবন্দরে প্রকল্প অফিস রয়েছে। এটি নৌপরিবহন মন্ত্রকে প্রতিবেদন বিবরণী পেশ করে।[১১] সংস্থাটি আইএসও ১৪০০১: ২০০৪ এবং আইএসও ৯০০১: ২০০৮ শংসাপত্র দ্বারা স্বীকৃত।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Company Profile – History"Moneycontrol.com। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  2. "Board of Directors"। Dredging Corporation of India। ৪ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  3. "39th Annual Report 2014–15" (PDF)। Dredging Corporation of India। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  4. Sridharan, K (১৯৮২)। A Maritime History of India। Publications Division, Ministry of Information and Broadcasting, Government of India। পৃষ্ঠা 393। 
  5. "Company Profile"Reuters। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  6. "Company Profile"HDFC securities। সংগ্রহের তারিখ ৬ জানুয়ারি ২০১৬ 
  7. "Govt. turns to India for KKS Port project loan"The Daily Mirror। ৪ এপ্রিল ২০১৩। 
  8. Manoj, P (৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩)। "Dredging is a perennial problem area for India's ports"Mint 
  9. Mehta, edited by Pradeep S. (২০০৬)। A functional competition policy for India। New Delhi: Academic Foundation in association with CUTS International, Jaipur। পৃষ্ঠা 240। আইএসবিএন 8171884938 
  10. Patnaik, Santosh। "Beach nourishment drive yields result"The hindu 
  11. Ghosh, S.N. (১৯৯৮)। Tidal hydraulic engineering। Rotterdam [u.a.]: Balkema। পৃষ্ঠা 137। আইএসবিএন 9054107359 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]