ডেসমন্ড লুইস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ডেসমন্ড লুইস
ক্রিকেট তথ্য
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন-
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৬
রানের সংখ্যা ২৫৯ ১,৬২৩
ব্যাটিং গড় ৮৬.৩৩ ৩১.৮২
১০০/৫০ ০/৩ ০/১২
সর্বোচ্চ রান ৮৮ ৯৬
বল করেছে
উইকেট
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং -/- -/-
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৮/০ ৬৭/১১
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৫ এপ্রিল ২০১৮

ডেসমন্ড মাইকেল লুইস (ইংরেজি: Desmond Lewis; জন্ম: ২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৪৬ - মৃত্যু: ২৪ মার্চ, ২০১৮) জ্যামাইকার কিংস্টনে জন্মগ্রহণকারী প্রথিতযশা ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৭১ সালে তিনটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ হয় তার।[১] ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে জ্যামাইকার প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে যথেষ্ট সুনাম কুড়িয়েছেন ডেসমন্ড লুইস

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৭০ সালে জ্যামাইকা দল সংক্ষিপ্ত সফরে ইংল্যান্ড যায়। ঐ সফরেই ডেসমন্ড লুইসের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবনের সূত্রপাত ঘটে। এর কয়েকমাস পর ১৯৭০-৭১ মৌসুমে ভারত দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ গমন করে। সফরের প্রথম খেলায় জ্যামাইকার সদস্যরূপে ভারতের বিপক্ষে খেলেন। খেলায় তিনি ৯৬ ও অপরাজিত ৬৭ রান তুলেন।

টেস্ট ক্রিকেট[সম্পাদনা]

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক পর্ব সমাপনের আটমাসের মধ্যে টেস্টে অভিষেক ঘটে তার। সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের উইকেট-রক্ষক মাইক ফিন্ডলের স্থলাভিষিক্ত হন তিনি। অভিষেক টেস্টে সাত নম্বরে ব্যাটিং করতে নামেন ডেসমন্ড লুইস। জর্জ টাউনে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় তিনি অপরাজিত ৮১ রান তুলেন। এ সময় নবম উইকেট জুটিতে ল্যান্স গিবসের সাথে মূল্যবান ৮৪ রানের জুটি গড়েন। শেষ দুই টেস্টে ব্যাটিং উদ্বোধনে নেমেছিলেন তিনি। ব্রিজটাউনের চতুর্থ টেস্টে রয় ফ্রেডেরিক্সের সাথে ব্যাটিং উদ্বোধনে নামেন। রোহন কানহাইয়ের সাথে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ১৬৬ রান তুলেন ও ব্যক্তিগত ৮৮ রান সংগ্রহ করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৪ করেন। পোর্ট অব স্পেনের চতুর্থ টেস্টে ৭২ ও নয় নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪ রানে অপরাজিত ছিলেন। তিন টেস্টে অংশগ্রহণ শেষে ৮৬.৩৩ গড়ে রান তুলেন। উইজডেন তার এ ক্রীড়াশৈলীকে গ্রাহকরূপে আখ্যায়িত করে।[২] ১৯৭০-৭১ মৌসুমে সাতটি অর্ধ-শতক সহযোগে ৬৫.২০ গড়ে ৬৫২ রান তুলেছিলেন।[৩]

অবসর[সম্পাদনা]

১৯৭১-৭২ মৌসুমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল নিউজিল্যান্ড সফরে যায়। ভারতের বিপক্ষে দূর্দান্ত ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শন করলেও এ সফরে ফিন্ডলেকে দলে ফিরিয়ে আনা হয় ও লুইসকে বাদ দেয়া হয়। তবে, অল্প কিছুদিন পরই ডেরিক মারে দলে ফিরে আসেন ও ফিন্ডলে বাদ পড়েন। এরপর থেকে আর তাকে টেস্টে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়নি। তবে, ১৯৭৫-৭৬ মৌসুম পর্যন্ত জ্যামাইকার পক্ষে খেলা চালিয়ে যেতে থাকেন ডেসমন্ড লুইস।

২৪ মার্চ, ২০১৮ তারিখে ৭২ বছর বয়সে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টায় দেহাবসান ঘটে ডেসমন্ড লুইসের।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]