টম পুনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
টম পুনা
টম পুনা.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামনরোত্তম পুনা
জন্ম(১৯২৯-১০-২৮)২৮ অক্টোবর ১৯২৯
সুরাট, গুজরাত, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু৭ জুন ১৯৯৬(1996-06-07) (বয়স ৬৬)
হ্যামিল্টন, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি অফ ব্রেক
ভূমিকাবোলার
সম্পর্কঅশোক পুনা (পুত্র), কীর্তি পুনা (পুত্র)
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১১১)
২৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৬৬ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১১ মার্চ ১৯৬৬ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯৫৬/৫৭ - ১৯৬৮/৬৯নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৭০
রানের সংখ্যা ৩১ ১,৩০৫
ব্যাটিং গড় ১৫.৫০ ১৪.৬৬
১০০/৫০ ০/০ ০/২
সর্বোচ্চ রান ১৮* ৬২*
বল করেছে ৪৮০ ১৫,০৫৩
উইকেট ২২৯
বোলিং গড় ৬০.০০ ২৪.৪৪
ইনিংসে ৫ উইকেট ১১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ২/৪০ ৬/২৫
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ১/- ৩৬/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ৮ অক্টোবর ২০২০

নরোত্তম টম পুনা (ইংরেজি: Tom Puna; জন্ম: ২৮ অক্টোবর, ১৯২৯ - মৃত্যু: ৭ জুন, ১৯৯৬) তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের সুরাট এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ভারতীয় বংশোদ্ভূত নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ছিলেন। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৬০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়কালে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি অফ ব্রেক বোলিং করতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন নরোত্তম পুনা নামে পরিচিত টম পুনা

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৫৬-৫৭ মৌসুম থেকে ১৯৬৮-৬৯ মৌসুম পর্যন্ত টম পুনা’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। আট বছর বয়সে তার পরিবার ভারত থেকে নিউজিল্যান্ডে অভিবাসিত হয়।[১] ১৯৫৬-৫৭ মৌসুম থেকে ১৯৬৮-৬৯ মৌসুম পর্যন্ত নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টসের পক্ষে খেলেন। শুরুতে মাঝারিসারির ব্যাটসম্যান হিসেবে খেললেও অফ স্পিন বোলিংয়ের উত্তরণের পাশাপাশি নিচেরসারির ব্যাটসম্যানে রূপান্তরিত হন।

১৯৬৫-৬৬ মৌসুমের প্লাঙ্কেট শীল্ড প্রতিযোগিতায় ১৩.৭০ গড়ে ৩৪ উইকেট পান।[২] ফলশ্রুতিতে, সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে খেলার জন্যে তাকে নিউজিল্যান্ড দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ১৯৬৬-৬৭ মৌসুমে ওতাগোর বিপক্ষে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখান ৬/২৫ লাভ করেন। হ্যামিল্টনে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় তার বোলিং পরিসংখান ছিল ৫৯-২৯-৬৬-৯।[৩]

নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টস থেকে অবসর গ্রহণকালীন তিনি ২২৩ উইকেট নিয়ে দলে শীর্ষ উইকেট শিকারীতে পরিণত হয়েছিলেন।[১]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন টম পুনা। সবগুলো টেস্টই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন তিনি। ২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৬৬ তারিখে ক্রাইস্টচার্চে সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১১ মার্চ, ১৯৬৬ তারিখে অকল্যান্ডে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

ঘরোয়া ক্রিকেটে সুন্দর ক্রীড়াশৈলী প্রদর্শনের স্বীকৃতিস্বরূপ ১৯৬৫-৬৬ মৌসুমের শেষদিকে সফররত ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত তিন টেস্টের সবকটিতেই তিনি নিউজিল্যান্ড দলের প্রধান স্পিনার হিসেবে খেলেন। তবে, খেলায় তিনি খুব কমই প্রভাব ফেলতে পেরেছিলেন।[১]

ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত ছিলেন তিনি। তার সন্তান অশোক পুনা[৪] ও কীর্তি পুনা[৫] - উভয়েই নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টসের পক্ষে খেলেছেন। ৭ জুন, ১৯৯৬ তারিখে ৬৬ বছর বয়সে হ্যামিল্টন এলাকায় টম পুনা’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]