জেনি ইরানী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জেনি ইরানী
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজামশেদ খুদাদাদ ইরানী
জন্ম১৮ আগস্ট, ১৯২৩
করাচী, সিন্ধু প্রদেশ, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮২
করাচী, সিন্ধু প্রদেশ, পাকিস্তান
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
ভূমিকাউইকেট-রক্ষক, আম্পায়ার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ৩৭)
২৮ নভেম্বর ১৯৪৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
শেষ টেস্ট১২ ডিসেম্বর ১৯৪৭ বনাম অস্ট্রেলিয়া
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ২২
রানের সংখ্যা ৪৩০
ব্যাটিং গড় ৩.০০ ১৭.২০
১০০/৫০ ০/০ ০/০
সর্বোচ্চ রান ২* ৪৬
বল করেছে - -
উইকেট - -
বোলিং গড় - -
ইনিংসে ৫ উইকেট -
ম্যাচে ১০ উইকেট -
সেরা বোলিং - -
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ২/১ ২৩/৬
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২১ জানুয়ারি ২০২০

জামশেদ খুদাদাদ জেনি ইরানী (মারাঠি: जमशेद खुदादाद ईरानी; জন্ম: ১৮ আগস্ট, ১৯২৩ - মৃত্যু: ২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮২) তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের সিন্ধু প্রদেশের করাচী এলাকায় জন্মগ্রহণকারী ইরানী বংশোদ্ভূত ভারতীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও আম্পায়ার ছিলেন। ভারত ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৪৭ সালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে ভারতের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।[১][২]

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ভারতীয় ক্রিকেটে সিন্ধু দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ উইকেট-রক্ষক হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে নিচেরসারিতে ব্যাটিং করতেন জেকে ইরানী নামে পরিচিত জেনি ইরানী

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯৩৭-৩৮ মৌসুম থেকে ১৯৪৯-৫০ মৌসুম পর্যন্ত জেনি ইরানী’র প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। প্রতিযোগিতাধর্মী উইকেট-রক্ষক হিসেবে জেনি ইরানী’র সুনাম ছিল। ১৯৩৭ সালে মাত্র ১৪ বছর বয়সে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে জেনি ইরানী’র। সিন্ধু দলের পক্ষে খেলাকালীন তিনি বিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। রঞ্জী ট্রফি প্রতিযোগিতায় সিন্ধু দলের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।

১৯৩৭ থেকে ১৯৪৮ সময়কাল পর্যন্ত প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট জীবন চলমান ছিল তার। এ পর্যায়ে ১৭.৩৪ গড়ে ৩৯৯ রান সংগ্রহ করেন। উইকেটের পিছনে অবস্থান করে ২৭টি ডিসমিসাল ঘটান। তন্মধ্যে, ২১টি ক্যাচ গ্লাভসবন্দী করেছিলেন তিনি।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে দুইটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন জেনি ইরানী। ২৮ নভেম্বর, ১৯৪৭ তারিখে ব্রিসবেনে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর, ১২ ডিসেম্বর, ১৯৪৭ তারিখে সিডনিতে একই দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

১৯৪৭-৪৮ মৌসুমে ভারত দলের সদস্যরূপে অস্ট্রেলিয়া গমন করেন। এ সফরেই দুই টেস্টে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। অভিষেক টেস্টে প্রথম ভারতীয় উইকেট-রক্ষক হিসেবে শূন্য রানে বিদেয় নেন। এরপর, ২০০২ সালে অজয় রাত্রা তার এ রেকর্ডের সাথে নিজ নামকে যুক্ত করেছিলেন।

অংশগ্রহণকৃত দুই টেস্ট পর খোকন সেন তার স্থলাভিষিক্ত হয়েছিলেন। পরবর্তী পাঁচ বছর খোকন সেন ভারতের প্রথম পছন্দের উইকেট-রক্ষকের মর্যাদা পেলে ইরানীকে আর ভারতের পক্ষে খেলতে দেখা যায়নি। সিডনিতে প্রস্তুতিমূলক খেলায় অস্ট্রেলিয়া একাদশের বিপক্ষে এগারো নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪৩ রান তুলেন। এ পর্যায়ে গগুমাল কিষেনচাঁদের সাথে ৯৭ রানের জুটি গড়েছিলেন তিনি।

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

বাই ভিভজী সোপ্রিতিওয়ালা হাই স্কুলে পড়াশুনোর পর করাচীর ডিজে সিন্ধু কলেজে অধ্যয়ন করেন। এছাড়াও, বোম্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে খেলেছেন তিনি। হাবিব ব্যাংক কাজ করেন।

২৫ ফেব্রুয়ারি, ১৯৮২ তারিখে ৫৮ বছর বয়সে সিন্ধু প্রদেশে নিজ শহর করাচীতে জেনি ইরানী’র দেহাবসান ঘটে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. List of India Test Cricketers
  2. "India – Test Batting Averages"। ESPNCricinfo। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জানুয়ারি ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]