জর্জ ডিকিনসন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জর্জ ডিকিনসন.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নামজর্জ রিচি ডিকিনসন
জন্ম(১৯০৩-০৩-১১)১১ মার্চ ১৯০৩
ডুনেডিন, নিউজিল্যান্ড
মৃত্যু১৭ মার্চ ১৯৭৮(1978-03-17) (বয়স ৭৫)
লোয়ার হাট, নিউজিল্যান্ড
ব্যাটিংয়ের ধরনডানহাতি
বোলিংয়ের ধরনডানহাতি ফাস্ট
ভূমিকাবোলার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ )
১০ জানুয়ারি ১৯৩০ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট৪ মার্চ ১৯৩২ বনাম দক্ষিণ আফ্রিকা
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
১৯২১/২২ - ১৯৩৭/৩৮ওতাগো
১৯৪৩/৪৪ওয়েলিংটন
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট এফসি
ম্যাচ সংখ্যা ৩৯
রানের সংখ্যা ৩১ ১০১৩
ব্যাটিং গড় ৬.২০ ১৮.৭৫
১০০/৫০ ০/০ ১/৪
সর্বোচ্চ রান ১১ ১০৪
বল করেছে ৪৫১ ৮৫৪৬
উইকেট ১৫০
বোলিং গড় ৩০.৬২ ২৬.৯৬
ইনিংসে ৫ উইকেট ১১
ম্যাচে ১০ উইকেট
সেরা বোলিং ৩/৬৬ ৭/৯০
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/- ১৯/-
উৎস: ইএসপিএনক্রিকইনফো.কম, ২ ডিসেম্বর ২০১৯
রাগবি খেলোয়াড়ী জীবন
ওজন৭৪ কেজি (১৬৩ পা)
বিদ্যালয়ওতাগো বয়েজ হাই স্কুল
রাগবি ইউনিয়নে খেলোয়াড়ী জীবন
অবস্থান ফার্স্ট ফাইভ-এইটথ, সেকেন্ড ফাইভ-এইটথ, সেন্টার
অল ব্ল্যাক নং 263
প্রাদেশিক/রাজ্য দল
সাল দল অংশগ্রহণ (পয়েন্ট)
১৯২২-২৪ ওতাগো ১২ ()
জাতীয় দল
সাল দল অংশগ্রহণ (পয়েন্ট)
১৯২২  নিউজিল্যান্ড (০)

জর্জ রিচি ডিকিনসন (ইংরেজি: George Dickinson; জন্ম: ১১ মার্চ, ১৯০৩ - মৃত্যু: ১৭ মার্চ, ১৯৭৮) ডুনেডিনে জন্মগ্রহণকারী নিউজিল্যান্ডীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও রাগবি ইউনিয়ন খেলোয়াড় ছিলেন। নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। ১৯৩০ থেকে ১৯৩২ সময়কালে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্যে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।

ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর নিউজিল্যান্ডীয় ক্রিকেটে ওয়েলিংটন ও ওতাগো দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, ডানহাতে কার্যকরী ব্যাটিংশৈলী প্রদর্শন করেছেন জর্জ ডিকিনসন

প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট[সম্পাদনা]

হেনরি ডিকিনসন ও এলিজা জেন ডিকিনসন (বিবাহ-পূর্ব ম্যাকডোনাল্ড) দম্পতির সন্তান ছিলেন।[১] ওতাগো বয়েজ হাই স্কুলের সাবেক ছাত্র ছিলেন তিনি।[২]

১৯২১-২২ মৌসুম থেকে ১৯৪৩-৪৪ মৌসুম পর্যন্ত জর্জ ডিকিনসনের প্রথম-শ্রেণীর খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। ১৯২৪-২৫ মৌসুমে ক্যান্টারবারি দলের বিপক্ষে খেলায় ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান গড়েন ১১/৮৯।

জর্জ ডিকিনসন ফাস্ট বোলার হিসেবে পরিচিতি পান। ১৯২৪-২৫ মৌসুমে নিউজিল্যান্ডের সদস্যরূপে ভিক্টোরিয়ার বিপক্ষে ক্রিকেট খেলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে প্রথম ডাবল অল ব্ল্যাক হবার গৌরব অর্জন করেন।[৩]

১৯২০-২১ মৌসুম থেকে ১৯৩৭-৩৮ মৌসুম পর্যন্ত ওতাগো দলের পক্ষে খেলেন। এছাড়াও, ১৯৪৩-৪৪ মৌসুমে ওয়েলিংটনের পক্ষে একটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন জর্জ ডিকিনসন। ১৯২৪-২৫ মৌসুমে ক্যান্টারবারির বিপক্ষে ব্যক্তিগত সেরা বোলিং পরিসংখ্যান ৬/৪৩ ও ৫/৪৬ পান। পরের মৌসুমে ওয়েলিংটনের বিপক্ষে ৭/৯০ ও ৪/৫৫ পেয়েছিলেন। নিচেরসারিতে ব্যাটিংয়ে নেমেও সফলতা পেয়েছেন। ১৯২৭-২৮ মৌসুমে ওয়েলিংটনের বিপক্ষে ১০৪ রানের একমাত্র শতরান সংগ্রহ করেছিলেন।[২][৪]

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট[সম্পাদনা]

১৯২৭-২৮ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটি খেলায় অংশ নেন। এরপর ১৯২৯-৩০ মৌসুমে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের প্রথম দুইটি আনুষ্ঠানিক টেস্টে অংশ নেন। সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে তিনটিমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ করেছেন। ১০ জানুয়ারি, ১৯৩০ তারিখে ক্রাইস্টচার্চে হ্যারল্ড জিলিগানের নেতৃত্বাধীন সফরকারী ইংল্যান্ড দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ৪ মার্চ, ১৯৩২ তারিখে ওয়েলিংটনে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা দলের বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে অংশ নেন তিনি।

প্রকৃতিগতভাবে ফাস্ট বোলার হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন। ১৩৪ রান খরচায় পাঁচ উইকেট পান। তন্মধ্যে, ফ্রাঙ্ক ওলিকে দুইবার আউট করার কৃতিত্ব দেখান। পরবর্তীতে দুই বছর পর ১৯৩১-৩২ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সর্বশেষ টেস্টে খেলতে নামেন। ১১১ রান খরচ করে তিন উইকেট লাভ করেন। তিনটি টেস্টে ৩০.৬২ গড়ে আট উইকেট পেয়েছিলেন তিনি।[৪]

রাগবি ইউনিয়নে অংশগ্রহণ[সম্পাদনা]

ক্রিকেট খেলার পাশাপাশি রাগবি ইউনিয়ন খেলায় দক্ষ ছিলেন তিনি। ১৯২২ সালে ‘অল ব্ল্যাকস’ নামে পরিচিত নিউজিল্যান্ড জাতীয় রাগবি দলের পক্ষে পাঁচটি খেলায় অংশ নিয়েছিলেন।

ওতাগো বয়েজ হাই স্কুলে অধ্যয়নকালীন ১৯১৮ থেকে ১৯২১ সময়কালে বিদ্যালয়ের প্রথম পঞ্চদশ রাগবি দলে ফাইভ-এইটথ অবস্থানে খেলতেন। ১৯২২ সালে নিউ সাউথ ওয়লসে নিউজিল্যান্ড রাগবি ইউনিয়ন দলের সদস্যরূপে গমন করেন। পাঁচ খেলায় অংশ নিয়ে তিনটি ট্রাইজ করেন। ১৯২২ থেকে ১৯২৪ সাল পর্যন্ত রাট ওতাগো দলের পক্ষে ১২ খেলায় অংশ নেন। এ পর্যায়ে পাঁচটি ট্রাইজ, ১১টি কনভারসন ও একটি পেনাল্টি গোল করেন। এছাড়াও, ১৯২২ সালে সাউথ আইল্যান্ডের পক্ষে খেলেছেন। ২১ বছর বয়সে প্রথম-শ্রেণীর রাগবি খেলা থেকে অবসর নেন।[২]

ছয়জন খেলোয়াড়ের একজন হিসেবে নিউজিল্যান্ডের পক্ষে রাগবি ইউনিয়ন ও ক্রিকেট খেলেছেন। বাদ-বাকীরা হলেন - কার্লি পেজ (কেবলমাত্র টেস্ট ক্রিকেটে); ব্রায়ান ম্যাককেচনি, চার্লি অলিভার ও জেফ উইলসন (কেবলমাত্র রাগবি টেস্ট) এবং বিল কার্লসন (উভয়ক্ষেত্রেই টেস্টবিহীন)।[৫][৬]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

জর্জ ডিকিনসন বিক্রয়কর্মী,[৭] গুদাম ব্যবস্থাপক,[৮] ও কেরাণী হিসেবে কাজ করেছেন।[৯] ব্যক্তিগত জীবনে বিবাহিত ছিলেন। ১১ জুন, ১৯২৯ তারিখে ডুনেডিনের ফার্স্ট চার্চে রুয়া বেলে মিলেনের সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন।[১]

১৭ মার্চ, ১৯৭৮ তারিখে ৭৫ বছর বয়সে লোয়ার হাট এলাকায় জর্জ ডিকিনসনের দেহাবসান ঘটে।[২] তাইতার লন সিমেট্রিতে তার ভষ্মাধার সমাহিত করা হয়।[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Personal and social"Otago Daily Times। ১৪ জুন ১৯২৯। পৃষ্ঠা 14। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  2. Knight, Lindsay। "George Dickinson"। New Zealand Rugby Union। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  3. Meikle, Hayden (১৬ সেপ্টেম্বর ২০১১)। "Greatest moments in Otago sport - number 53"Otago Daily Times। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  4. ক্রিকেটআর্কাইভে George Dickinson (সদস্যতা প্রয়োজনীয়) (ইংরেজি)
  5. Eric Tindill #417. Stats.allblacks.com. Retrieved on 2 July 2018.
  6. Eric Tindill | Cricket Players and Officials | ESPNcricinfo. Cricinfo.com. Retrieved on 2 July 2018.
  7. Electoral district of Dunedin West: general roll of persons entitled to vote for Members of Parliament of New Zealand। ১৯২৮। পৃষ্ঠা 49। 
  8. "New Zealand, World War II ballot lists, 1940–1945"অর্থের বিনিময়ে সদস্যতা প্রয়োজন। Ancestry.com Operations। ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৭ 
  9. "Deceased search"। Hutt City Council। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ জানুয়ারি ২০১৭ 

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]