কাঠুয়া জেলা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাঠুয়া জেলা
জম্মু ও কাশ্মীরের জেলা
জম্মু ও কাশ্মীরে কাঠুয়া জেলার অবস্থান
জম্মু ও কাশ্মীরে কাঠুয়া জেলার অবস্থান
স্থানাঙ্ক (কাঠুয়া): ৩২°৩৫′ উত্তর ৭৫°৩০′ পূর্ব / ৩২.৫৮৩° উত্তর ৭৫.৫০০° পূর্ব / 32.583; 75.500স্থানাঙ্ক: ৩২°৩৫′ উত্তর ৭৫°৩০′ পূর্ব / ৩২.৫৮৩° উত্তর ৭৫.৫০০° পূর্ব / 32.583; 75.500
দেশভারত
রাজ্যজম্মু ও কাশ্মীর
বিভাগজম্মু বিভাগ
সদরদপ্তরকাঠুয়া
তহসিল১.বাণী, ২. বাশোলি, ৩. বিল্লাওয়ার, ৪. হিরানগর, ৫. কাঠুয়া, ৬. নাগরী-পেরোল, ৭. মেরিন, ৮. ডিঙ্গা আম্ব , ৯. মহানপুর, ১০. লোহাই মালহর, ১১. রামকোট।
সরকার
 •  লোকসভা কেন্দ্রগুলিডোডা-উধমপুর-কাঠুয়া
 • বিধানসভা কেন্দ্রগুলি১. কাঠুয়া শহরাঞ্চল, ২.বসোলি, ৩. বিল্লাওয়ার, ৪.বাণী, ৫. হিরানগর।
আয়তন
 • মোট২৬৫১ কিমি (১০২৪ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা (২০১১)
 • মোট৬,১৬,৪৩৫
 • জনঘনত্ব২৩০/কিমি (৬০০/বর্গমাইল)
 • মূল শহর১৪.৬
জনসংখ্যার উপাত্ত
 • সাক্ষরতা৭৩.০৯%
 • লিঙ্গ অনুপাত৮৯০
সময় অঞ্চলআইএসটি (ইউটিসি+০৫:৩০)
যানবাহন নিবন্ধনজেকে-০৮
প্রধান মহাসড়কএনএইচ ৪৪ (পাঠানকোট-জম্মু), ভাদরবাহ-বাসোলি হাইওয়ে, বর্ডার রোড (কাঠুয়া-বিশ্নাহ)।
গড় বার্ষিক বৃষ্টিপাত৯২১ সেমি (বার্ষিক-বিল্লাওয়ার) মিমি
ওয়েবসাইটhttp://www.kathua.gov.in

কাঠুয়া জেলা হল ভারতের ২২টি প্রশাসনিক জেলা, যা নিয়ে জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্য গঠিত। এই জেলার উত্তর-পশ্চিমে জম্মু, উত্তরে ডোডা এবং উধমপুর জেলা, পূর্বে হিমাচল প্রদেশ, দক্ষিণে পাঞ্জাব এবং পশ্চিমে পাকিস্তানের কার্যকরী সীমানা ঘিরে রয়েছে। এর ভূখণ্ড পাঞ্জাব/কাশ্মীর সীমান্তে সমৃদ্ধ কৃষিক্ষেত্র, হিমালয়ের পাদদেশে পূর্ব দিকে সমভূমি এবং পূর্বে পাহাড়ি পাহাড়ি অঞ্চল নিয়ে গঠিত।

কাঠুয়া জেলাটি আটটি ব্লকে বিভক্ত। এই ব্লকগুলি হল বন, বার্নোটি, বাশোলি, বিল্লাওয়ার, দুগ্গান, ঘাগওয়াল, হিরানগর, কাঠুয়া এবং লোহাই মলহার। এই জেলাতে প্রায় ৫১২টি গ্রাম রয়েছে।

কাঠুয়ার ঐতিহ্যবাহী ভাষা হ'ল ডোগ্রি। পূর্ব পাহাড়ী অঞ্চলে পাহাড়ি ভাষার প্রচলন রয়েছে। শিক্ষার প্রধান মাধ্যম হ'ল ইংরেজি, হিন্দি এবং উর্দু

মুসলিম প্রধান রাজ্যের কাঠুয়া জেলা জম্মু জেলার মতো একটি হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ জেলা। ভারতের জনগণনা ২০১১ সালের হিসাবে জেলার মোট জনসংখ্যা ছিল ৬,১৫,৭১১; হিন্দু ধর্মাবলম্বী ছিল ৮৬.১১%, মুসলমানরা ১০.৪২%, শিখ ১.৫৫% এবং অন্যান্য (প্রধানত খ্রিস্টান) ০.৪২%।

অপেক্ষাকৃত নিরাপদ অঞ্চল, কাঠুয়া পাঞ্জাব অঞ্চলের ভারতীয় অংশের পাঞ্জাব রাজ্যে খালিস্তান বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলনের দ্বারা দীর্ঘ বিদ্রোহ থেকে রক্ষা পেয়েছিল, যা ১৯৯০-এর দশকের গোড়ার দিকে এর দক্ষিণে এসে শেষ হয়েছিল এবং এই জেলার উত্তরের দিকের জেলাগুলিতে কাশ্মীর উপত্যকায় চলমান বিদ্রোহ ১৯৮০-এর দশকে শুরু।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

জম্মু ও কাশ্মীরে কাঠুয়া জেলা

আন্দোত্র বংশের যোধ সিংহ প্রায় ২ হাজার বছর আগে হস্তিনাপুর থেকে কাঠুয়া চলে এসেছিলেন বলে বিশ্বাস করা হয়।

তার তিন পুত্র তারাফ তাজওয়াল, তারাফ মঞ্জালী এবং তারাফ ভাজওয়ালের তিনটি গ্রাম (হ্যামলেট) স্থাপন করেন। তাদের বংশধরদের এখন তাজওয়ালিয়া, ভাজওয়ালিয়া এবং আন্ডোত্রা উপ-জাতের খানওয়ালিয়া রাজপুত বলা হয়। ১৯২১ সালের আগে, কাঠুয়া জেলা জসরোটা জেলা হিসাবে পরিচিত ছিল। ১৯২১-১৯৩১ সময়কালের মধ্যে, প্রশাসনের ক্ষেত্রে জেলার সদর দফতর কাঠুয়ায় স্থানান্তরিত হয়।[১][২]

জনসংখ্যার উপাত্ত[সম্পাদনা]

২০১১ সালের আদমশুমারি অনুসারে কাঠুয়া জেলার জনসংখ্যা ৬,১৬,৪৩৫ জন, যা প্রায় সলোমন দ্বীপপুঞ্জের[৩] বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভার্মন্ট রাজ্যের সমান।[৪] এটি জনসংখ্যার হিসাবে ভারতের মোট ৬৪০টি জেলার মধ্যে ৫২১তম স্থানে রয়েছে। জেলাটির প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যার ঘনত্ব ৩৪৬জন (৬৪০ জন/বর্গমাইল) ২০০১-এর দশকে এর জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল ২০.৫৩%। কাঠুয়াতে লিঙ্গ অনুপাত হচ্ছে - প্রতি ১,০০০ পুরুষের বিপরীতে ৮৯০ জন মহিলা এবং এর সাক্ষরতার হার ৭৩.০৯%।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Agrarian Legislation in India, Gokhale Institute of Politics and Economics, ১৯৭৩, পৃষ্ঠা 232 
  2. Office of the Registrar General, Census of India, 1961: Jammu and Kashmir, Manager of Publications, পৃষ্ঠা 142 
  3. "Kathua District Population Census 2011, Jammu and Kashmir literacy sex ratio and density"www.census2011.co.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০১-১৬ 
  4. "2010 Resident Population Data"। U. S. Census Bureau। ২০১১-০১-০১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৯-৩০Vermont 625,741 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]