উড়ান (২০১০-এর চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
উড়ান
উড়ান (২০১০-এর চলচ্চিত্র) পোস্টার.jpg
থিয়েটারে মুক্তির পোস্টার
পরিচালকবিক্রমাদিত্য মতওয়ানে
প্রযোজকঅনুরাগ কাশ্যপ
সঞ্জয় সিং
রনি স্ক্রুওয়ালা
রচয়িতাবিক্রমাদিত্য মতওয়ানে
অনুরাগ কাশ্যপ
শ্রেষ্ঠাংশেরজত বারমেচা
রনিত রায়
আয়ান বোড়াদিয়া
রাম কাপুর
মনজোট সিং
আনন্দ তিওয়ারি
সুরকারঅমিত ত্রিবেদী
চিত্রগ্রাহকমহেন্দ্র জে. শেঠি
সম্পাদকদীপিকা কালরা
প্রযোজনা
কোম্পানি
মুক্তি
  • ১৬ জুলাই ২০১০ (2010-07-16)
দৈর্ঘ্য১৩৮ মিনিট
দেশভারত
ভাষাহিন্দি
নির্মাণব্যয়৫০ মিলিয়ন[১]
আয়৩৩.৫ মিলিয়ন[২]

উড়ান (অনু. 'Flight') ২০১০ সালের হিন্দি-ভাষায় নির্মিত একটি আগত-বয়সীদের নিয়ে ভারতীয় কাহিনী চলচ্চিত্র। এটি বিক্রমাদিত্য মতওয়ানে এর পরিচালিত তাঁর অভিষেকের চিত্র। এটি যথাক্রমে তাঁদের প্রযোজনা সংস্থা অনুরাগ কাশ্যপ ফিল্মস এবং ইউটিভি স্পটবয় এর অধীনে সঞ্জয় সিং, অনুরাগ কাশ্যপ এবং রনি স্ক্রুওয়ালা প্রযোজনা করেছেন। মতওয়ানে ও কাশ্যপ রচিত ছবিটিতে অভিনয় করেছেন নবাগত অভিনেতা রজত বারমেচা, রনিত রায়, আয়ান বোড়াদিয়া, রাম কাপুর, মনজোট সিং এবং আনন্দ তিওয়ারি। কাহিনী শুরু রোহানের গল্পকে অনুসরণ করে। সে বোর্ডিং স্কুল থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পরে জামশেদপুর এ তার অত্যাচারী বাবার সাথে থাকতে বাধ্য হয়েছে।

মতওয়ানে ২০০৩ সালে স্ক্রিপ্টটি লিখলেও তখন কোনও প্রযোজক খুঁজে পাননি। তিনি কাশ্যপের দেব.ডি এর (২০০৯) সহ-কাহিনীকার ছিলেন এবং কাশ্যপ ছিলেন উড়ান এর প্রযোজক ও সহ-কাহিনীকার। চলচ্চিত্রের সেট ও শুটিং করা হয়েছিল শিল্প নগরী জামশেদপুরে। মহেন্দ্র জে. শেঠি ফটোগ্রাফি পরিচালার দায়িত্বে ছিলেন এবং সম্পাদনা করেন দীপিকা কালরা। আদিত্য কানওয়ার ছিলেন প্রোডাকসন ডিজাইনার।

উড়ান এর প্রিমিয়ার হয় ২০১০ কান চলচ্চিত্র উৎসবে আন সারটেইন রিগার্ড বিভাগে এবং লাভ করে স্ট্যান্ডিং ওভেশন সস্মান; এটি ছিল বিগত সাত বছরে কান এ উপস্থাপিত প্রথম ভারতীয় চলচ্চিত্র। ছবিটি গিফনি ফিল্ম ফেস্টিভাল এবং ২০১১ সালের লস অ্যাঞ্জেলেসের ভারতীয় চলচ্চিত্র উৎসব এও প্রদর্শিত হয়। সমালোচকদের প্রশংসার জন্য ২০১০ সালের ১ জুলাই মুক্তি পায়। তবে এটি বক্স-অফিসে তেমন সাফল্য পায় নি (প্রোডাকসন বাজেট ৫০ মিলিয়ন এবং গ্রস আয় ৩৩.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার)। ৫৬ তম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার এ ছবিটি সাতটি পুরস্কার পেয়েছিল: সেরা চিত্রনাট্য এবং সেরা গল্প (মতওয়ানে এবং কাশ্যপ), সেরা চিত্রগ্রাহক (মহেন্দ্র শেঠি), সেরা ব্যাকগ্রাউন্ড সংগীত (ত্রিবেদী), সেরা সহঅভিনেতা (পুরুষ) ( রায়), সেরা সাউন্ড ডিজাইন পুরস্কার (কুনাম শর্মা) এবং সেরা চলচ্চিত্র (সমালোচক) পুরস্কার। ২০১৯ সালে ফিল্ম কম্পানিয়ন রায়েকে অভিনয়ের জন্য দশকের সেরা ১০০ পারফরম্যান্সের তালিকায় স্থান দিয়েছে।

নির্মাণ[সম্পাদনা]

Steel plant at night
উড়ান এর সেট এবং চিত্রগ্রহণ করা হয়েছিল জামশেদপুরে ।

২০০২ সালে সহকারী পরিচালক হিসাবে "দেবদাস" এ কাজ করার সময় বিক্রমাদিত্য মতওয়ানে দেখেছিলেন ষোল (কেন লোচ পরিচালিত ছবিটি একটি বিগড়ানো কিশোরী সম্পর্কে যে নতুন বাড়ির জন্য অর্থ সংগ্রহের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিল) নামের একটি সিনেমা দেখেছিলেন। মতওয়ানে বলেছিলেন যে ছবিটি "আমার মনে গভীর ছাপ ফেলেছিল এবং ভেবেছি, "কেন ভারতে কোনও যুবককে নিয়ে এই জাতীয় চলচ্চিত্র তৈরি করা যায়নি?" নিজের জীবন এবং আশেপাশের চিত্র থেকে তিনি একটি চিত্রনাট্য লেখেন যা একটি সমস্যাযুক্ত পিতা-পুত্রের সম্পর্কের চারদিকে আবর্তিত হয়েছে। [৩] টাটা স্টিল প্ল্যান্ট এবং জামশেদপুরের যমজ শহর আদিত্যপুর এর পার্থক্য দেখে মতওয়ানের নজরে পড়ে শিল্প নগরীর "বিভিন্ন সাংস্কৃতিক প্রভাবের সংমিশ্রণ"। এই দেখে মতওয়ানে তাঁর কাহিনী শিল্প নগরী জামশেদপুর এ স্থাপন করার সিদ্ধান্ত নেন।[৩] স্ক্রিপ্টটি লেখার পরে তাঁর বন্ধু অনুরাগ কাশ্যপ এর কাছে এর বর্ণনা করেছিলেন এবং বুঝতে পারেন যে "কিছু দৃশ্যের সাথে তাঁর বাস্তব জীবনের সাদৃশ্য রয়েছে" (যেমন রাতে গাড়ী চালানো এবং বন্ধুদের সাথে মজা করা)।[৪] কাশ্যপের স্ক্রিপ্টটি খুবই উপভোগ্য লাগে এবং মতওয়ানেকে বলেন, "কেউ যদি এটি তৈরি করতে না চান তবে আপনি আমার কাছে আসবেন, [এবং] আমি এটি করব" [৫]

মতওয়ানে ২০০৩ সালে কাশ্যপকে সংলাপ লেখক হিসাবে স্বাক্ষর করান এবং তাঁকে ১০,০০০ (US$১৩৫.০১) প্রদান করেন। কিন্তু এতে কোনও বাণিজ্য সফল অভিনেতা নেই বলে তিনি তাঁর চলচ্চিত্রের জন্য কোনও প্রযোজক খুঁজে পেলেন না।[৬] কাশ্যপের ছবি পাঁচ এ তাঁর সাথে মতওয়ানে কাজ করেছিলেন। সেখানে মতওয়ানে ছিলেন গানের কোরিওগ্রাফার। তাই তিনি জানতেন যে "[মতওয়ানে] কতটা ভাল" এবং তাই তিনি উড়ান প্রযোজনার সিদ্ধান্ত নেন। [৬] ২০০৩ সালে মতওয়ানের স্ক্রিপ্টটি সম্পূর্ণ হয়ে গেলেও প্রযোজক খুঁজে পেতে তাঁর সাত বছর সময় লেগে যায়;[৭] অবশেষে প্রযোজনা সংস্থা অনুরাগ কাশ্যপ ফিল্মস এর অধীনে কাশ্যপ ও সঞ্জয় সিং প্রযোজনার দায়িত্ব নেন।[৮] পরে ইউটিভি স্পটবয় এর রনি স্ক্রুওয়ালা বিশ্ব চলচ্চিত্র বাজারে বিশ্বব্যাপী বিক্রয় এবং বিতরণের দায়িত্ব গ্রহণ করেন। [৯] মতওয়ানে বলেন যে অনেক লোক "চলচ্চিত্রটির বিক্রয়মূল্য বাড়ানোর জন্য অনেক জিনিস যোগ করতে এবং বাদ দিতে চেয়েছিলেন"। তবে তিনি সে সবে রাজি হননি। [১০] কাশ্যপ যে সময়ে তাঁর ছবিটি প্রযোজনা করতে চেয়েছিলেন তখনও কাশ্যপের নিজস্ব চলচ্চিত্রগুলি মুক্তি পায়নি। [১১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Mukherjee, Tatsam (১৮ মার্চ ২০১৭)। "20 Brilliant Films That Prove You Don't Need Big Budgets, Stars Or Item Numbers To Sell A Story"ScoopWhoop। ৫ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৮ 
  2. "Udaan box office"Bollywood Hungama। ২৫ আগস্ট ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৫ নভেম্বর ২০১৮ 
  3. Chatterjee, Saibal (৬ জুন ২০১০)। "Flying high"The Tribune। ১১ জুন ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  4. Thakkar, Mehul Satish (১৮ জুলাই ২০১০)। "Everyone will relate to 'Udaan': Director"CNN-News18। ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  5. "B'wood has huge market abroad: Anurag Kashyap"। CNN-News18। ১৩ জুলাই ২০১০। ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  6. "I wish I had written `Udaan`, says Anurag Kashyap"Zee News। ৩ জুলাই ২০১০। ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  7. Someshwar, Savera R (২৭ মার্চ ২০১৭)। "How I made Udaan, Lootera, Trapped"Rediff.com। ১ জুন ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  8. "Udaan takes forward message of 3 Idiots"Sify। ১৪ জুলাই ২০১০। ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  9. "'Udaan' debuts at Cannes, director feels humbled"। Sify। ১৯ মে ২০১০। ১৭ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ মে ২০১৯ 
  10. Augustine, Blessy (২০ এপ্রিল ২০১০)। "'I feel very pressurized right now': Vikramaditya Motwane"Mint। ৩০ আগস্ট ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  11. Khan, Sumaiya (৪ অক্টোবর ২০১০)। "Vikramaditya Motwane: Taking Wing"India Today। ৬ নভেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ নভেম্বর ২০১০