উইকিপিডিয়া:বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা তৈরি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন


মতামতের পাতা
বাংলা সম্প্রদায়ের জন্য আলোচনা পাতা

আরও তথ্য (মেটা)
এই আলোচনার জন্য আরও যে তথ্যগুলো জানতে পারেন

বাংলা উইকিপিডিয়ার পরিবেশ ভালো রাখতে ‘বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা’ বিষয়ক আলোচনা

উইকিপিডিয়াসহ উইকিমিডিয়ার বিভিন্ন প্রকল্পে যাঁরা কাজ করেন তাঁদের জন্য আরো সুন্দর ও বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ তৈরির লক্ষ্যে বৈশ্বিক একটি ‘নৈতিক দিকনির্দেশনা’ বা ‘বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা’ তৈরির জন্য সকল সম্প্রদায়ের কাছ থেকে মতামত নেওয়া হচ্ছে। বৈশ্বিক বিভিন্ন নীতিমালা তৈরিতে দেখা যায় প্রায় সময়ই ইংরেজিরমত বড় উইকি প্রকল্পের ব্যবহারকারীরাই মতামত দিয়ে থাকেন। সেক্ষেত্রে ছোট সম্প্রদায় বা বাংলার মত উদীয়মান বিভিন্ন সম্প্রদায়ের সদস্যগণের মতামত সেগুলোতে ফুঁটে উঠে না। সে জন্য এবার স্থানীয়ভাবে বাংলাতে আলোচনায় যাতে সবাই নিজ নিজ মতামত দিতে পারেন সে ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বর্তমানে স্থানীয়ভাবে কোন কোন উইকিপিডিয়াতে ভদ্রতা, আস্থা রাখুন, কোনো আইনি হুমকি নয়সহ এধরণের কিছু আচরণবিধি নীতিমালা আছে। এই আলোচনার উদ্দেশ্য হলো, স্থানীয় নীতির সাথে সাথে বৈশ্বিক একটি দিকনির্দেশনা তৈরি যা সব প্রকল্পের জন্য প্রযোজ্য। মানুষের আচরণ কেমন হবে সেটি আসলে ঠিক দিকনির্দেশনা বা নীতিমালার মধ্যে রাখা যদিও সম্ভব না তবে প্রতিনিয়ত যে পরিস্থিতি যেমন, হয়রানিমূলক বার্তা, ধ্বংসপ্রবণতা, স্প্যামিং, অর্থের বিনিময়ে সম্পাদনা, ব্যবহারকারীদের পরস্পরের মধ্যে উত্তপ্ত আলোচনা - ইত্যাদি বিষয়গুলোর জন্য কমপেক্ষ একটি বৈশ্বিক দিকনির্দেশনা প্রয়োজন। এই আচরণবিধি নির্দেশনা তৈরির উদ্দেশ্য হলো যাতে উইকিমিডিয়া প্রকল্পে যাঁরাই অবদান রাখবেন তাঁরা সকলেই এই বিষয়গুলো মেনে চলবেন। একই ধরণের এরকম নীতিমালার জন্য মিডিয়াউইকির আচরণবিধি নীতিমালা দেখতে পারেন। আরো দেখুন, উইকিপিডিয়া:বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা তৈরি/সংগ্রহশালা

আলোচনার সুবিধার্থে এই মতামতের প্রক্রিয়াকে কয়েকটি ধাপে ভাগ করা হয়েছে। এখন শেষ ধাপের আলোচনা চলছে যা ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে। নিচে সবকটি অনুচ্ছেদে অথবা আপনার ইচ্ছে অনুসারে একটি অথবা দুটি অনুচ্ছেদে একের অধিক পয়েন্ট এবং মতামত লিখতে পারেন। আপনি চাইলে এই গুগল ফর্মে ক্লিক করে জরিপে অংশ নিতে পারেন।

আচরণবিধি দিকনির্দেশনাতে কোন কোন বিষয় অবশ্যই উল্লেখ থাকা প্রয়োজন?[সম্পাদনা]

মতামত প্রদান – জনি[সম্পাদনা]

  • হয়রানিমূলক বার্তা/বক্তব্য
  • ধ্বংসপ্রবণতা
  • স্প্যামিং
  • অর্থের বিনিময়ে সম্পাদনা
  • ব্যক্তিগত গোপনীয়তা
  • ব্যক্তিগত আক্রমন
  • সম্পাদনা দ্বন্দ্ব
  • ব্যবহারকারীর আলাপ পাতার সঠিক ব্যবহার
  • জোটবদ্ধ হয়ে কোন কাজকে সম্পূর্ণ / সম্পন্ন করতে না দেয়া
  • জোরপূর্বক স্বীয় মতামত চাপিয়ে না দেয়া
  • নতুনদের প্রতি সদয় হওয়া
  • নতুন ব্যবহারকারীর ছোটখাটো ভুল নিজে সংশোধন করে নেয়া
  • ধর্ম/বর্ণ/দেশ ভিত্তিক পক্ষপাতিত্ব করতে না দেয়া
  • উইকিপিডিয়ানদের মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ তৈরি
  • সকপাপেট তৈরি বন্ধ করা

মতামত প্রদান – অংকন (আলাপ)[সম্পাদনা]

  • যেকোনোরকম বৈষম্য/হয়রানিমূলক বার্তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া (হয়রানিকারী নিয়ম জানে না এটার যৌক্তিকতা উপেক্ষাপূর্বক)
  • সমাজভেদে কিছু শিষ্টাচার লঘুভাবে দেখা হলেও কেউ কেউ তা আপত্তিকর মনে করতে পারে (ব্যক্তিগত আলাপ প্রকাশ ইত্যাদি), এ ব্যাপারে খেয়াল রাখা এবং কেউ এমন তথ্য প্রকাশ করে অপরের সম্মানহানি করলে সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া (অবশ্যই হয়রানিমূলক বক্তব্য প্রকাশ এর মধ্যে পড়বে না)
  • নবাগতদের ক্ষেত্রে ব্যবহারের স্থানীয় বিধি (প্রয়োজনে বৈশ্বিক বিধির সমন্বয়পূর্বক) অভিজ্ঞরাও যেন মেনে চলেন সে ব্যাপারে লক্ষ্য রাখা
  • স্থানীয় পর্যায়ের ছোটখাটো বৈঠকেও (বড় অনুষ্ঠান, সম্মেলনে তো অবশ্যই) অফলাইন বিধি মেনে চলা; অনাকাঙ্ক্ষিত অসম্মানজনক বা হয়রানিমূলক কথা, স্পর্শ ইত্যাদির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া। একইসাথে প্রতিটি অনুষ্ঠান বা বৈঠকে দায়িত্বপূর্ণ কাউকে নির্বাচন করা যার সাথে প্রয়োজনে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা যাবে
  • অসৎ উদ্দেশ্যে এই আচরণবিধির ব্যবহার করতে চাইলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া

মতামত প্রদান – তানভির মোর্শেদ[সম্পাদনা]

  • পারস্পারিক সম্মানবোধ ও শিষ্টাচার, যা বাংলাদেশের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক রীতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ
  • অপরিচিত কোন উইকিমিডিয়ানের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব ধারণ করা (assuming good faith)
  • সামাজিক পরিসরে সহিষ্ণুতা বজায় রাখা এবং অন্যের মতামতকে সম্মান প্রদর্শন করা
  • এসব নীতিমালা ভঙ্গ করলে শাস্তি ও ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা রাখা
  • স্থানীয় আইন পালন ও তার প্রতি সম্মান জ্ঞাপন করা

আচরণবিধি দিকনির্দেশনাতে কোন কোন বিষয় থাকা উচিত নয় বলে মনে করেন?[সম্পাদনা]

মতামত প্রদান – জনি[সম্পাদনা]

  • ছোট বড় সকল বিষয় উল্লেখ করা, যেখানে কোন বিষয় বাদ দেয়া উচিত নয় বলে মনে করি।

মতামত প্রদান – অংকন (আলাপ)[সম্পাদনা]

  • কোনো নির্দিষ্ট দেশীয় সংস্কৃতিকেন্দ্রিক বিধি তৈরি, যা বৈশ্বিক পর্যায়ে যেতে পারেনা

নীতিমালা তৈরি হওয়ার পর কার দ্বারা ও কোন প্রক্রিয়ায় এর প্রয়োগ করা যেতে পারে? স্থানীয় দল দ্বারা নাকি বৈশ্বিক কোন দল দ্বারা নীতিমালা প্রয়োগ করা উচিত?[সম্পাদনা]

মতামত প্রদান – জনি[সম্পাদনা]

  • ইতিমধ্যে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন, স্টুয়ার্ড এবং ন্যায়পাল কমিশন আলাদা ভাবে কাজ করছে
  • অভিজ্ঞদের নিয়ে নির্দিষ্ট বৈশ্বিক কারিগরী টাস্কফোর্স তৈরি করা।
  • স্থানীয় ও বৈশ্বিক আলাদা ভাবে টাস্কফোর্স তৈরি করা।
  • স্থানীয় টাস্কফোর্স যেখানে অপরাধটি প্রথমে ঘটেছে সেই সম্প্রদায়ের মতামতের সাথে সাথে পর্যালোচনা/পরিদর্শন এবং তদন্ত করবে।
  • বৈশ্বিক টাস্কফোর্স বৈশ্বিক পরিমণ্ডলে স্থানীয় টাস্কফোর্সে সাথে আলোচনা করে স্বচ্ছতা সাথে চূড়ান্ত সিধান্ত নিবেন।

মতামত প্রদান – অংকন (আলাপ)[সম্পাদনা]

  • বিভিন্ন অঞ্চলের প্রতিনিধি দ্বারা তৈরি বৈশ্বিক দল (এক সম্প্রদায়ে এক স্থানীয় দল না করে বিভিন্ন অঞ্চল থেকে প্রতিনিধি নিয়ে বৈশ্বিক দল তৈরি), সদস্য পর্যাপ্ত রাখা যেন দ্রুত ব্যবস্থাগ্রহণ সম্ভব হয়

মতামত প্রদান - sukan (আলাপ)[সম্পাদনা]

  • বাংলা উইকিপিডিয়ায় আমরা যারা সম্পাদনার কাজ করি, তাদের মধ্যে ঐকমত্যের ভিত্তিতেই আচরণবিধি তৈরি হওয়া জরুরি বলে আমি মনে করি। এখানে যেহেতু সকলেই স্বেচ্ছাশ্রমদানকারী, সেজন্যে প্রত্যেক সম্পাদকের কাজকে গুণমান যাচাইয়ের ভিত্তিতে উত্তীর্ণ হলে অবশ্যই মান্যতা দেওয়া উচিত। ভুলত্রুটি হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে অবগত করানোর ব্যাপারটা এর মধ্যেই পড়ে। এই প্রসঙ্গে একটা ঘটনার উল্লেখ না-করে পারছিনা। আমি কিছুদিন আগে 'History of Music' ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদ করে 'সংগীতের ইতিহাস' পাতা তৈরি করেছিলাম। (৮০,০০০) আশি হাজারের বেশি বাইটের ওই পাতাটা জানিনা কোন্ অপরাধে আমাকে না-জানিয়েই মুছে ফেলা হয়েছে? এখন দেখুন সংশ্লিষ্ট ইংরেজি পাতার বাংলা নেই। এমনকি সংশ্লিষ্ট আলাপ পাতা এবং অবদানের চিহ্নও মুছে ফেলা হয়েছে। প্রথম দিকে কারিগরি দিকটা না-জেনে কিছু ভুলভাল করে বসি, সেই সময় কেউ কেউ আমার কাজের মধ্যে ধ্বংসপ্রবণতা দেখেছিলেন। আর পরবর্তীতে কী দেখলাম? আমার কাজই ধ্বংসস্তূপে পর্যবসিত হয়ে গেল। তাহলে আমি কী পণ্ডশ্রম করে যাচ্ছি?

মতামত প্রদান – তানভির মোর্শেদ[সম্পাদনা]

  • বৈশ্বিক দল দ্বারাই প্রয়োগ করা যেতে পারে, তবে এক্ষেত্রে স্থানীয় পর্যায়ে একটি কমিটি থাকা উচিত যা প্রয়োজনে বৈশ্বিক সেই দলকে তথ্য ও পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করতে পারে। স্থানীয় কমিটি অবস্থার পর্যবেক্ষণ ও সঠিক তথ্য সংগ্রহ বা তদন্তে বৈশ্বিক দলকে সাহায্য করতে পারে।

মতামত প্রদান – মাসুম-আল-হাসান[সম্পাদনা]

  • স্থানীয় এবং বৈশ্বিক দুই দলের সমন্বয়েই এটি করা উচিত। স্থানীয় দল সরাসরি নীতিমালা প্রয়োগের কাজটি করবে। বৈশ্বিক দলের কাজ হবে স্থানীয় দলগুলির মাঝে সমন্বয় সাধন করা এবং প্রয়োজনে অন্যান্য সহায়তা দেয়া।

সবাইকে ধন্যবাদ ও আলোচনার সারমর্ম[সম্পাদনা]

প্রিয় সবাই, এই আলোচনায় অংশ নিয়ে যাঁরা মতামত দিয়েছেন তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ। অনউইকি, ১:১ কল ও অফউইকিসহ বিভিন্নভাবে নতুন ও পুরাতন বেশ ব্যবহারকারী এই আলোচনায় তাঁদের মতামত দিয়েছেন। এর ভিত্তিতে একটি সারমর্ম প্রস্তুত করেছি। এই আলোচনা পাতার সাথে সাথে সম্প্রদায়ের মেইলিং লিস্টসমূহ, ফেসবুক গ্রুপ, চ্যাট গ্রুপসহ সতন্ত্রভাবে সম্প্রদায়ের সদস্যদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছিলো। এছাড়া, উইকিপিডিয়ার গণবার্তা ফিচার ব্যবহার করে গণবার্তা পাঠানো হয়েছিলো। সম্প্রদায়ের অধিকাংশ সদস্য যাতে তাঁদের মতামত ও অভিপ্রায় ব্যক্ত করতে পারেন তাই বিভিন্ন মাধ্যম/পর্যায়ে আলোচনার পাশাপাশি এ সম্পর্কিত জরিপে অংশ নেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছিলো। একটা ব্যাপার লক্ষ্যনীয় যে, বাংলা উইকিপিডিয়ার সম্প্রদায়ের সদস্যগণ অনউইকি মতামত দেওয়ার চাইতে ১:১ কলে মতামত দিতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন :) যাঁদের সাথে আলোচনা হয়েছে তারা সকলেই মতামত দিয়েছেন।

এছাড়া, বাংলা উইকিপিডিয়া নিয়ে কাজ করা আঞ্চলিক বিভিন্ন দলের সাথে যোগাযোগ করে তাদের মতামত নেওয়া হয়। এর মধ্যে উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ চ্যাপ্টার এবং এর আওতাধীন আঞ্চলিক সম্প্রদায়সমূহ, পশ্চিমবঙ্গ উইকিমিডিয়ানস ইউজারগ্রুপ এবং সাঁওতালি উইকিপিডিয়া ইউজারগ্রুপও রয়েছে। উইকিমিডিয়া বাংলাদেশ বোর্ড তাদের বোর্ডসভা এবং বোর্ডের প্রাইভেট মেইলিং লিস্টে আলোচনা করে ‘এমন বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা থাকা প্রয়োজন’ বলে মত দেন। এর ফলে ‘উইকিমিডিয়া প্লাটফর্মে বৈষম্য/হয়রানি অনেকাংশেই কমবে’ বলে তারা মনে করেন।

পশ্চিমবঙ্গ ইউজারগ্রুপ নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে বৈশ্বিক আচরণবিধি নির্দেশনা তৈরির বিষয়ে তাঁদের কোন বক্তব্য নেই বলে জানায়। তাঁরা অভিযোগ করেন, ‘অতীতে বিভিন্ন বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করে বা মতামত দিয়ে সেই অভিজ্ঞতা থেকে তাঁরা ধারণা করেছেন, ফাউন্ডেশন কমিউনিটির মতামতকে গুরুত্ব নাও দিতে পারে’। এর বাইরে সম্প্রতি প্রতিষ্ঠিত হওয়া সাঁওতালি ইউজার গ্রুপ নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে হয়রানি ও অভদ্র আচরণ রোধে নির্দেশনাটি কাজে আসবে বলে মত দেন।

আলোচনা চলাকালীন বেশিরভাগ অংশগ্রহণকারী উইকিমিডিয়া প্রকল্পে আক্রমণাত্মক / অশোভন আচরণ / হয়রানি, অবদানকারী ধরে রাখা, সম্পাদনা যুদ্ধ, গোপনীয়তা সংক্রান্ত সমস্যা, স্প্যামিং এবং সর্বপোরি ধ্বংসপ্রবণতা সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। অনউইকি ও অফউইকি অংশগ্রহণকারী সবাই এই প্রকল্পের ব্যাপারে ইতিবাচক সাড়া দিয়েছেন এবং সবাই যে মতামতগুলো দিয়েছেন তার সারাংশ অনেকটা এরকম:

  • এই বিধিমালা বিভিন্ন প্রকল্পে অনুরূপ এবং / অথবা নিয়মিত আক্রমণাত্মক / অভদ্র আচরন মোকাবেলায় ভূমিকা রাখবে।
  • লিঙ্গ, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবার জন্য উইকিমিডিয়া আন্দোলনের ভেতর একটি সম্মানজনক ও হয়রানিমুক্ত পরিবেশ তৈরি করবে এবং অবদানকারী ধরে রাখা সংক্রান্ত উইকি প্রকল্পে যে দীর্ঘমেয়াদী সমস্যা সেটি কিছুটা হলেও কমাতে ভূমিকা রাখবে।
  • গ্রহণযোগ্য একটি নীতিমালা রেফাসেন্স হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। বিশেষ করে ছোট ও তুলনামূলকভাবে অপরিপক্ক প্রকল্পগুলোর ব্যবহারকারীদের উইকির চর্চা বোঝাতে ও বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে এটি সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।
  • অপ্রয়োজনীয় সম্পাদনা যুদ্ধ প্রতিরোধ এবং গোপনীয়তা বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিতে ব্যবহারকারীদের সহায়তা করবে।
  • অনেক সময় অনভিজ্ঞ ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন সমস্যায় পড়ে যেমন কিছুক্ষেত্রে অভিজ্ঞ ব্যবহারকারীরা তাদের মতামত অন্য অনভিজ্ঞদের উপর চাপিয়ে দিতে দেখা যায়। এসবক্ষেত্রে এই বিধিমালা সাহায্য করতে পারে।
  • মতামত প্রদানকারীগণ আর্থিক অনৈতিক লেনদেন নিয়েও কথা বলেছেন। এ ধরণের ক্ষেত্রে সম্প্রদায়ের স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রমকেই প্রশ্নের মুখে ঠেলে দেয়। এ ধরণের অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের বিষয়ে ব্যবহারের শর্তাবলী আরো কঠোরভাবে প্রয়োগ করা উচিত এবং এটি বিধিমালাতে যুক্ত করা উচিত।
  • স্থানীয় সম্প্রদায় যাতে তাদের সংস্কৃতি ও স্থানীয় প্রেক্ষাপটে নীতিমালার অনুচ্ছেদ সংযোজন ও বিয়োজন করতে পারে সে ব্যবস্থা রাখা উচিত।
  • নীতিতে পারস্পরিক শ্রদ্ধা এবং শিষ্টাচারের উল্লেখ করা উচিত, কারও ধর্মীয় এবং / অথবা সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের সাথে যাতে এটি সামঞ্জস্যপূর্ণ হয়।
  • কিছু কিছু ক্ষেত্রে এক সম্প্রদায় হয়ত কোন কোন বিষয় হালকাভাবে নিতে পারে আবার অন্য সম্প্রদায়ই উক্ত বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে নিতে পারে। এ বিষয়টিও খেয়াল রাখা প্রয়োজন।
  • সামাজিক পরিসরে সহিষ্ণুতা বজায় রাখা এবং অন্যের মতামতকে সম্মান প্রদর্শন করা উচিত।
  • যে কোনও প্ল্যাটফর্মে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ তৈরির জন্য কিছু নৈতিক নির্দেশিকা থাকা প্রয়োজন তবে এটি একটি ব্যাখ্যামূলক পোতা হিসেবে থাকা উচিত।

যে সব সম্প্রদায়ে এই আলোচনাটি হয়েছিলো সব কিছু মিলিয়ে একটি প্রতিবেদন মেটায় প্রকাশ করেছে উইকিমিডিয়া ফাউন্ডেশন। এখানে পড়ুন। মূল নীতিমালাটির খসড়া এ বছরের শেষের দিকে হয়ত দেখতে পারবো। ধন্যবাদ। – নাহিদ (আলাপ) ১৮:৫১, ১৮ জুন ২০২০ (ইউটিসি)