ইক জুনুন (পেইন্ট ইট রেড)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
"ইক জুনুন (পেইন্ট ইট রেড)"
ইক জুনুন ভিডিও প্রচ্ছদ.jpg
ইক জুনুন সঙ্গীত ভিডিও'র প্রচ্ছদ
জিন্দেগি না মিলেগি দোবারা অ্যালবাম থেকে
শঙ্কর-এহসান-লয় (সঙ্গীত পরিচালক)
শঙ্কর মহাদেবন, বিশাল দাদলানি, এহসান নুরানী, আলিশা মেন্দোনসা, ক্লিন্টন সেরেজো, গুলরাজ সিং (গায়কদল) কর্তৃক সঙ্গীত
মুক্তিপ্রাপ্ত৮ জুন ২০১১
বিন্যাসকমপ্যাক্ট ডিস্ক একক
রেকর্ডকৃত২০১১
স্থানমুম্বাই, ভারত
ধারাচলচ্চিত্র সঙ্গীত, ভারতীয় পপ
দৈর্ঘ্য০৫:০০
লেবেলটি সিরিজ
গান লেখকজাভেদ আখতার
প্রযোজকফারহান আখতার
রিতেশ সিধ্বানি
বহিঃ ভিডিও
ইউটিউবে "ইক জুনুন"

"ইক জুনুন (পেইন্ট ইট রেড)" (হিন্দি: इक जूनून; বাংলা: একটি আবেগ) ২০১১ সালে সুরকার ত্রয়ী শঙ্কর এহসান লয়ের সৃষ্ট হিন্দি চলচ্চিত্র জিন্দগি না মিলেগি দোবারা চলচ্চিত্রের একটি সঙ্গীত। এই সঙ্গীত বা গানটির কথা লিখেছেন জাভেদ আখতার ও পরিবেশনা করেছেন ক্লিনটন সেরেজো, বিশাল দাদলানি এবং আলিশা মেন্দোনসা।[১] প্রকাশের সাথে সাথে গানটি তাৎক্ষণিক জনপ্রিয়তা অর্জন করে। ২০১১ সালে চতুর্থ মিরচি সঙ্গীত পুরস্কারের 'সেরা গানের রেকর্ডিং' বিভাগে পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়।

পটভূমি[সম্পাদনা]

জিন্দেগি না মিলিগি দোবারা চলচ্চিত্রের পরিচালক জোয়া আখতার একটি নির্দিষ্ট মুহূর্তে নিজেকে হারিয়ে ফেলা'র বিষয় নিয়ে 'অ্যাম্বিয়েন্ট হাউজ' বা 'এসিড রক' ও 'হাউজ রক'-এর সমন্বয়ে একটি সঙ্গীত নির্মাণ করতে শঙ্কর এহসান লয়কে অনুরোধ করেছিলেন। চলচ্চিত্রে গানটি ভালভাবে মানিয়ে নেয়ার জন্য তারা গানটির সুর ও সঙ্গীত আয়জনের সময় এই সঙ্গীতে পপ ঘরনার সুর মিশ্রণ করেছিলেন। রোবোটিক কণ্ঠ দেয়ার জন্য এই সঙ্গীতে ভোকোডার ব্যবহৃত হয়েছিল।[২] ২৭ মে ২০১১ তারিখে এই গানের প্রোমো মুক্তি পায়।[৩][৩]

চলচ্চিত্রায়ন[সম্পাদনা]

স্পেনের ভ্যালেন্সিয়ার বুনল শহরে গানের চিত্রায়ণ করা হয়েছে। গানের জন্য স্পেনের প্রচলিত লা তোমাতিনা উৎসবের একটি নতুন চিত্রায়ণ করা হয়েছিল। উৎসবের দৃশ্য ধারণের জন্য পর্তুগাল থেকে ১ কোটি রূপি মূল্যের প্রায় ১৬ টন টমেটো আনা হয়েছিল। গানে হৃতিক রোশন, অভয় দেওল, ফারহান আখতার, ক্যাটরিনা কাইফ এবং আরিয়াদনা ক্যাব্রোলের অভিনয় করেছেন।[৪][৫] প্রতিটি দৃশ্য ধারণের পর অভিনেতাদের গরম জল দিয়ে নিজেকে পরিষ্কার করতে হয়েছিল। পরে তারা সবাই এতটাই অসুস্থ ছিল যে তারা কয়েক সপ্তাহ ধরে টমেটোযুক্ত কোনও খাবার খেতে পারেনি।[২]

অভ্যর্থনা ও স্বীকৃতি[সম্পাদনা]

বলিউড হাঙ্গামায় এক বর্ণনায় এই সঙ্গীতের দৃশ্যসমূহ ও শব্দাবলী সূক্ষ্ম "মস্তি, আনন্দ ও শক্তি দিয়ে পরিপূর্ণ" বলা হয়েছে।[৬] রেডিফ-এর এক পর্যালোচনায় গানটি "এক উত্তেজনাপূর্ণ ছন্দ এবং ন্যূনতম পরিবেশের সাথে মুগ্ধকর অবস্থা তৈরি করে, যা অপ্রতিরোধ্য"-মন্তব্য করা হয়েছে।[৭]

গানটি তাৎক্ষণিক জনপ্রিয় হয় এবং সঙ্গীত তালিকাগুলির শীর্ষস্থান দখল করে।, মুক্তির প্রথম সপ্তাহে গানটি রেডিও মিরচির শীর্ষ ২০ জনপ্রিয় গানের তালিকায় প্রথম স্থান নিয়ে নেয়[৮] দ্বিতীয় সপ্তাহে দ্বিতীয় স্থানে ও তৃতীয় সপ্তাহে পুনরায় শীর্ষস্থানে ফিরে আসে।[৯] মুক্তির দিন প্ল্যানেট বলিউড-এর তালিকার ৬ নম্বরে প্রবেশ করে[১০] এবং এক সপ্তাহ পরে চতুর্থ স্থানে উঠে আসে[১১] বিবিসি এশিয়ান চার্টে, গানটি প্রথম সপ্তাহে ৪০ নম্বরে আত্মপ্রকাশ করে[১২] এবং ৬ সপ্তাহের মধ্যে সপ্তম স্থানে উঠে আসে।[১৩] ২০১১ সালে চতুর্থ মিরচি সঙ্গীত পুরষ্কারের 'সেরা গানের রেকর্ডিং' বিভাগে পুরষ্কারের জন্য মনোনীত হয়।[১৪]

বছর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান বিভাগ ফলাফল সূত্র
২০১১ ৪র্থ মিরচি সংগীত পুরস্কার সেরা গানের রেকর্ডিং মনোনীত [১৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Zindagi Na Milegi Dobara : Complete Cast and Crew details"। Bollywoodhungama.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  2. "Making of Ik Junoon"। Bollywood Hungama। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৫ 
  3. "Ik Junoon (Paint it red) - Zindagi Na Milegi Dobara (Extended promo w/ subtitles HQ)"। YouTube। ২০১১-০৬-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  4. "Abhay Deol goes topless!"Hindustan Times। ২০১১-০৫-৩১। ২০১৩-০১-২৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  5. "Check out: Hrithik, Katrina, Farhan & Abhay shooting for Tomatina fest in Spain"। Bollywoodhungama.com। ২০১১-০৩-১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৮-২৫ 
  6. "Zindagi Na Milegi Dobara : Music Review by Joginder Tuteja"। Bollywoodhungama.com। ২০১১-০৬-০৬। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  7. "Review: Zindagi Na Milegi... music is delightful - Rediff.com Movies"। Rediff.com। ২০১১-০৬-১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  8. "Music Chart - The Times of India"। The Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  9. "Music Chart - Times of India - 24 July 2011"। Times of India। সংগ্রহের তারিখ ২৪ জুলাই ২০১১ 
  10. "Top 10 Hindi Film Songs on Planet Bollywood - "Hale Dil""। Planetbollywood.com। ২০১১-০৬-১৩। ২০১১-০৬-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  11. "Top 10 Hindi Film Songs on Planet Bollywood - "Murder 2" dominates; "Delhi Belly" is still solid and `Oye Oye` enters the chart!"। Planetbollywood.com। ২০১১-০৬-২১। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৬-২৯ 
  12. "Archive Chart"। Theofficialcharts.com। ২০১১-০৬-২৫। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৭-১২ 
  13. "Asian Network - The Official Asian Download Chart - The Official Asian Download Chart"। BBC। ২০১১-০৬-২৯। ২০১০-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৭-১২ 
  14. "Nominations - Mirchi Music Award Hindi 2011"। ৩০ জানুয়ারি ২০১৩। Archived from the original on ৩০ জানুয়ারি ২০১৩। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১৮ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]