আর্নস্ট হেকেল

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আর্নস্ট হেকেল
Ernst Haeckel.jpg
জন্মআর্নস্ট হেনরিখ ফিলিপ আগস্ট হেকেল
(১৮৩৪-০২-১৬)১৬ ফেব্রুয়ারি ১৮৩৪
পটসডাম, প্রুশিয়া কিংডম
মৃত্যু৯ আগস্ট ১৯১৯(1919-08-09) (বয়স ৮৫)
জেনা, ওয়েমার প্রজাতন্ত্র
জাতীয়তাজার্মান
প্রতিষ্ঠানজেনা বিশ্ববিদ্যালয়
প্রাক্তন ছাত্র
উল্লেখযোগ্য
পুরস্কার
লেখক সংক্ষেপণ (প্রাণীবিদ্যা)হেকেল

আর্নস্ট হেনরিখ ফিলিপ আগস্ট হেকেল (Ernst Heinrich Philipp August Haeckel, জার্মান: [ˈʔɛɐ̯nst ˈhɛkl̩]; ১৬ ফেব্রুয়ারি ১৮৩৪ - ৯ আগস্ট ১৯১৯[১]) একজন জার্মান প্রাণীবিজ্ঞানী, প্রকৃতিবিদ, ইউজেনিস্টিস্ট, দার্শনিক, চিকিৎসক, অধ্যাপক, সামুদ্রিক জীববিজ্ঞানী এবং শিল্পী। তিনি হাজার হাজার নতুন প্রজাতি আবিষ্কার করেছেন, বর্ণনা করেছেন এবং নামকরণ করেছেন, সমস্ত জীবের একটি বংশবৃতান্ত লতিকা অঙ্কণ করেছেন এবং ইকোলজি (বাস্তুতন্ত্র) সহ জীববিজ্ঞান এর অনেক পরিভাষা তৈরি করেছেন। [২] ফাইলাম,[৩] ফাইলোজেনি,[৪] এবং প্রোটিস্টা পরিভাষাও তাঁরই সৃষ্টি। [৫] হেকেল জার্মানিতে চার্লস ডারউইন এর কাজের প্রচার ও জনপ্রিয়করণের কাজ করেছিলেন।

হেকেলের প্রকাশিত ১০০ টিরও বেশি শিল্পকর্মের মধ্যে বিশদ বহু বর্ণের প্রাণী ও সমুদ্রের প্রাণীর চিত্র অলংকরণ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যা তাঁর কুনস্টফর্মেন ডার ন্যাচুরে (" প্রকৃতির আর্ট ফর্ম") তে সংগৃহীত রয়েছে। দার্শনিক হিসাবে আর্নস্ট হেকেল রচনা করেন ডাই ওয়েলথ্র্যাসেল লিখেছিলেন (১৮৯৫-১৮১৮; ইংরাজীতে রিডল অফ দ্য ইউনিভার্স, ১৯০১)। এতে তিনি শিক্ষার বিবর্তনের সমর্থনে "ওয়ার্ল্ড রিডল" (ওয়েলটার্সটেল) শব্দটির উদ্ভাবণ করেন এবং বিজ্ঞান ও শিক্ষার স্বাধীনতা সম্পর্কিত তাঁর অভিমত প্রকাশ করেন। [৬]

হেকেল বৈজ্ঞানিক বর্ণবাদ এর প্রচারক ছিলেন[৭] এবং সামাজিক ডারউইনবাদ ধারণার অনুসারী ছিলেন।[৮][৯]

১৮৬০ সালের বড়দিনে (২৬ বছর)

জীবন[সম্পাদনা]

আর্নস্ট হেকেল জন্মগ্রহণ করেছিলেন ১৮৩৪ সালের ১ ফেব্রুয়ারি তারিখে পটসডাম এ (তখন প্রুসিয়া রাজ্যর অংশ)।[১০] ১৮৫২ সালে হেকেল মার্সবার্গ এর ক্যাথেড্রাল হাই স্কুল ডমজিমনেসিয়াম থেকে পড়াশোনা শেষ করেন।[১১] এরপরে তিনি বার্লিন এবং ওয়ার্জবার্গঅ্যালবার্ট ভন কলিকার, ফ্রাঞ্জ লাইডিগ, রুডল্ফ ভার্চো (যিনি পরে তিনি তাঁর সাথে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য সহকারী হিসাবে কাজ করেছিলেন) এবং অ্যানাটমিস্ট-ফিজিওলজিস্ট জোহানেস পিটার মুলার (১৮০১-১৮৫৮) এর সাথে চিকিৎসা বিজ্ঞান নিয়ে পড়াশোনা করেছিলেন। [১১] হারমান স্টুডনার এর সাথে তিনি একসাথে ওয়ার্জবার্গে উদ্ভিদবিজ্ঞান এ বক্তৃতায় অংশ নিয়েছিলেন। ১৮৫৭ সালে তিনি মেডিসিনে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন এবং পরে চিকিৎসা অনুশীলনের লাইসেন্স লাভ করেন। অসুস্থ রুগীদের সংস্পর্শে আসার পর হেকেলের কাছে চিকিৎসকের পেশা অনেক কম সার্থকতা লাভ করে। [১১]

পরবর্তী জীবনে

আর্নস্ট হেকেল কার্ল জেজেনবাউর এর অধীনে তিন বছর জেনা বিশ্ববিদ্যালয় এর অধীনে পড়াশোনা করেন এবং প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক হওয়ার আগে ১৮৬১ সালে তুলনামূলক অ্যানাটমিতে একটি দায়িত্ব অর্জন করেন। জেনায় তিনি ১৮৬২ থেকে ১৯০৯ সাল পর্যন্ত ৪৭ বছর অবস্থান করেছিলেন। ১৮৫৯ থেকে ১৮৬৬ এর মধ্যে হেকেল অনেকগুলি ফাইলা যেমন রেডিওলারিয়ান, ছিদ্রাল (স্পঞ্জ) এবং অঙ্গুরীমাল (বিভক্ত কৃমি) এর উপর কাজ করেছিলেন।[১২] ভূমধ্যসাগর ভ্রমণের সময় হেকেল প্রায় দেড়শো নতুন প্রজাতির রেডিওলারিয়ানের নামকরণ করেছিলেন। [১২]

১৮৬৬ থেকে ১৮৬৭ পর্যন্ত হেকেল ক্যানারি দ্বীপপুঞ্জহারমান ফোল এর সাথে একটি সফর করেছিলেন। ১৮৬৬ সালের ১৭ অক্টোবরে তিনি লন্ডনে পৌঁছেছিলেন। পরের কয়েক দিন তিনি চার্লস লাইল এর সাথে দেখা করেছিলেন এবং তাঁদের বাড়িতে টমাস হাক্সলি এবং তাঁর পরিবারের সাথে দেখা হয়। ২১ অক্টোবর তিনি কেন্টের ডাউন হাউসচার্লস ডারউইন এর সাথে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন।[১৩] ১৮৬৭ সালে তিনি অ্যাগনেস হাস্ককে বিয়ে করেছিলেন। তাঁদের ছেলে ওয়াল্টার ১৮৬৮ সালে তাঁদের কন্যা এলিজাবেথ ১৮৭১ এবং ১৮৭৩ সালে এমা জন্মগ্রহণ করেছিলেন।[১১] ১৮৬৯ সালে তিনি নরওয়ে, ১৮৭১ সালে ক্রোয়েশিয়া (যেখানে তিনি হাভার দ্বীপে একটি বিহারে থাকতেন) গবেষক হিসাবে ভ্রমণ করেন,[১৪] এবং ১৮৭৩ সালে মিশর, তুরস্ক, এবং গ্রীস এ গিয়েছিল। [১১] ১৯০৭ সালে তিনি জনসাধারণকে বিবর্তন সম্পর্কে শেখানোর জন্য জেনায় একটি যাদুঘর তৈরি করেছিলেন। ১৯০৯ সালে হেকেল শিক্ষকতা থেকে অবসর গ্রহণ করেন এবং ১৯১০ সালে তিনি ইভাঞ্জেলিকাল চার্চ অফ প্রুসিয়া থেকে সরে আসেন।[১১]

তাঁর ৮০ তম জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে জার্মান মনিস্টেনবুন্ডের অনুরোধে জেনার হেইনরিচ স্মিথড সম্পাদিত ওয়াস ওয়্যার আর্নস্ট হেকেল রায়ড্যাঙ্কেন (হোয়াট উই ওয় আর্নস্ট হেকেল) শীর্ষক একটি দ্বি-খণ্ড রচনা উপস্থাপন করা হয়েছিল।[১৫][১৬]

১৯১৫ সালে হেকেলের স্ত্রী অ্যাগনেস মারা যান এবং হাত-পা ভেঙে তাঁরও যথেষ্ট পরিমাণে কর্মক্ষমতা নষ্ট হয়ে যায়।[১১] তিনি ১৯১৮ সালে জেনা তে তার "ভিলা মেডুসা" কার্ল জিস ফাউন্ডেশন এর কাছে বিক্রি করে দেন। এখানে তাঁর গ্রন্থাগারটি সংরক্ষণ রয়েছে।[১১] ১৯১৯ সালের ৯ আগস্ট হেকেল মারা যান।[১৭]

হেকেল জার্মানিতে মনিজম (মতবাদ) এর জন্যও বিখ্যাত ছিলেন।[১৮]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. এনসাইক্লোপিডিয়া ব্রিটানিকায় আর্নস্ট হেকেল
  2. Haeckel, Ernst (১৮৬৬)। Generelle Morphologie der Organismen [The General Morphology of Organisms] (German ভাষায়)। vol. 2। Berlin, (Germany): Georg Reimer।  From p. 286: "Unter Oecologie verstehen wir die gesammte Wissenschaft von den Beziehungen des Organismus zur umgebenden Aussenwelt, wohin wir im weiteren Sinne alle "Existenz-Bedingungen" rechnen können." (By "ecology" we understand the comprehensive science of the relationships of the organism to its surrounding environment, where we can include, in the broader sense, all "conditions of existence".)
  3. Haeckel, Ernst (১৮৬৬)। Generelle Morphologie der Organismen [The General Morphology of Organisms] (German ভাষায়)। vol. 1। Berlin, (Germany): G. Reimer। পৃষ্ঠা 28–29।  Haeckel noted that species constantly evolved into new species that seemed to retain few consistent features among themselves and therefore few features that distinguished them as a group ("a self-contained unity"). "Wohl aber ist eine solche reale und vollkommen abgeschlossene Einheit die Summe aller Species, welche aus einer und derselben gemeinschaftlichen Stammform allmählig sich entwickelt haben, wie z. B. alle Wirbelthiere. Diese Summe nennen wir Stamm (Phylon)." (However, perhaps such a real and completely self-contained unity is the aggregate of all species which have gradually evolved from one and the same common original form, as, for example, all vertebrates. We name this aggregate [a] Stamm [i.e., race] (Phylon).)
  4. (Haeckel, 1866), vol. 1, p. 29: "Die Untersuchung der Entwicklung dieser Stämme und die Feststellung der genealogischen Verwandtschaft aller Species, die zu einem Stamm gehören, halten wir für die höchste und letzte besondere Aufgabe der organischen Morphologie. Im sechsten Buche werden wir die Grundzüge dieser Phylogenie oder Entwicklungsgeschichte der organischen Stämme (Kreise oder "Typen") festzustellen haben." (The investigation of the evolution of these phyla and the identification of the genealogical kinship of all species that belong to a phylum—we deem [this] the highest and ultimately specific task of organic morphology. In the sixth book, we will have to establish the outline of this "phylogeny" or history of the evolution of the organic phyla (groups or "types").)
  5. (Haeckel, 1866), vol. 1, pp. 215 ff. From p. 215: "VII. Character des Protistenreiches." (VII. Character of the kingdom of Protists.) From p. 216: "VII. B. Morphologischer Character des Protistenreiches. Ba. Character der protistischen Individualitäten. Der wesentliche tectologische Character der Protisten liegt in der sehr unvollkommenen Ausbildung und Differenzirung der Individualität überhaupt, insbesondere aber derjenigen zweiter Ordnung, der Organe. Sehr viele Protisten erheben sich niemals über den morphologischen Werth von Individuen erster Ordnung oder Plastiden." (VII. B. Morphological character of the kingdom of protists. Ba. Character of the protist Individualities. The essential tectological character of protists lies in the very incomplete formation and differentiation of individuality generally, however particularly of those of the second order, the organs. Very many protists never rise above the morphological level of individuals of the first order or plastids.)
  6. Freedom in Science and Teaching. German 1877, English 1879, আইএসবিএন ১-৪১০২-১১৭৫-৪.
  7. Hawkins, Mike (1997). Social Darwinism in European and American Thought. Cambridge: Cambridge University Press. p. 140.
  8. Watts E, Levit GS, Hossfeld U (2019). "Ernst Haeckel's contribution to Evo-Devo and scientific debate: a re-evaluation of Haeckel's controversial illustrations in US textbooks in response to creationist accusations". Theory Biosci. 138 (1): 9–29. doi:10.1007/s12064-019-00277-3. PMID 30868433.
  9. Hawkins, Mike (1997). Social Darwinism in European and American Thought. Cambridge: Cambridge University Press. p. 137.
  10. Di Gregorio, Mario A. (২০০৫)। "1: Young Haeckel"। From Here to Eternity: Ernst Haeckel and Scientific Faith। Religion, Theologie Und Naturwissenschaft/Religion, Theology, And Natural Science। 3। Goettingen: Vandenhoeck & Ruprecht। পৃষ্ঠা 26। আইএসবিএন 9783525569726। সংগ্রহের তারিখ ২৫ মার্চ ২০১৯On 16 February 1834 a son was born to Charlotte and Carl Gottlob Haeckel in Kanal 24a (later Yorkstrasse 7), Potsdam, Prussia. His name was Ernst Heinrich Phillip August, and he was destined to become one of the most influential and controversial thinkers of his time. 
  11. "Ernst Haeckel" (article),German Wikipedia, 26 October 2006, webpage: DE-Wiki-Ernst-Haeckel: last paragraph of "Leben" (Life) section.[ভাল উৎস প্রয়োজন]
  12. "Ernst Haeckel" (biography), UC Berkeley, 2004, webpage: BerkeleyEdu-Haeckel.
  13. Richards, Robert J. (২০০৮)। The Tragic Sense of Life: Ernst Haeckel and the Struggle over Evolutionary Thought। University of Chicago Press। পৃষ্ঠা 173–174। আইএসবিএন 978-0-226-71219-2 
  14. New York Times Haeckel Again Honored in Spite of Himself on his 80th Birthday, published: 22 February 1914
  15. Felden, Emil (১৯১৪)। "Felden Pastor an St. Martini Bremen" [Pastor of St. Martini Church, Bremen, Germany]। Schmidt, HeinrichWas wir Ernst Haeckel Verdanken (What We Owe to Ernst Haeckel): Ein Buch der Verehrung und Dankbarkeit (German ভাষায়)। 2। Deutscher Monistenbund। Leipzig: Verlag Unesma। পৃষ্ঠা 125–128। testimony of Emil Felden in Was wir Ernst Haeckel Verdanken, vol. ii, p. 125. 
  16. Carus, Paul (১৯১৪)। The Open Court। Open Court Publishing Company। পৃষ্ঠা 385। PROFESSOR Ernst Haeckel's celebration of his 80th birthday, ...on this occasion we note a work of two stately volumes, entitled Was wir Ernst Haeckel verdanken, edited at the request of the German Monistenbund by Heinrich Schmidt of Jena. (Image of p. 385 at Google Books) 
  17. Kutschera, Ulrich; Levit, Georgy S.; Hossfeld, Uwe (২০১৯-০৫-০১)। "Ernst Haeckel (1834–1919): The German Darwin and his impact on modern biology"। Theory in Biosciences (ইংরেজি ভাষায়)। 138 (1): 1–7। আইএসএসএন 1611-7530ডিওআই:10.1007/s12064-019-00276-4অবাধে প্রবেশযোগ্যপিএমআইডি 30799517 
  18. Weir, Todd H. Secularism and religion in nineteenth-century Germany. The rise of the fourth confession. Cambridge University Press, 2014, p.67