আমিরুল ইসলাম চৌধুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আমিরুল ইসলাম চৌধুরী
জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য
কাজের মেয়াদ
১৯৯৪ – ১৯৯৮
বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি
কাজের মেয়াদ
৩ জানুয়ারি ২০১৪ – ২০১৭
পূর্বসূরীনুরুল ইসলাম
উত্তরসূরীমাহফুজা খানম
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৪২ (বয়স ৭৮–৭৯)
রংপুর জেলা, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ ইন্ডিয়া
জাতীয়তাবাংলাদেশী
শিক্ষাপিএইচডি (অর্থনীতি)
মাতৃশিক্ষায়তন
পেশাশিক্ষাবিদ, অর্থনীতিবিদ
নিয়োগকারী

আমিরুল ইসলাম চৌধুরী (জন্ম ১৯৪২)[১] একজন বাংলাদেশী শিক্ষাবিদ। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য এবং বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বর্তমানে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক।[২]

শিক্ষা[সম্পাদনা]

১৯৬১ এবং ১৯৬৩ সালে যথাক্রমে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে ওয়েলস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি অর্জন করেন। পরে ১৯৮৭-৮৮ এ জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে পোস্ট-ডক্টরাল সহকর্মী হিসাবে কাজ করেছিলেন।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ১৯৬৪ সালের জুন থেকে এপ্রিল ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত পাকিস্তান সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ে গবেষণা কর্মকর্তা হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন।[২] তিনি ১৯৭১ সালের জানুয়ারী থেকে অক্টোবর ২০০৪ পর্যন্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অনুষদ ছিলেন। তিনি পাঁচ বছর নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপকও ছিলেন।[২] তিনি ১৯৯৪ থেকে ১৯৯৮ সালের জুলাই পর্যন্ত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, এরপর গণবিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন।[২]

তিনি আগস্ট ২০০১ থেকে আগস্ট ২০০২ পর্যন্ত রাষ্ট্র পরিচালিত সোনালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান ছিলেন।[২] তিনি বর্তমানে সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ, ঢাকার ভাইস চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।[৩] তিনি ৩ জানুয়ারী ২০১৪ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত বাংলাদেশের এশিয়াটিক সোসাইটির সভাপতি ছিলেন।[১][৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Newsletter" (PDF)। বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি। ১ জানুয়ারি ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  2. "Faculty Profile"স্কুল অফ বিজনেস অ্যান্ড ইকোনমিক্স। ইউনাইডেট আন্তজার্তিক বিশ্ববিদ্যালয়। ১৪ অক্টোবর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  3. "Amirul Islam Chowdhury, Ph.D."। সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ, ঢাকা। সংগ্রহের তারিখ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  4. আহমেদ, মোশতাক। "'বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তরের কথা কেউ বলে না'"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২৮ মে ২০২১