আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম
(এ. এস. এম. সায়েম)
আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম.jpg
বাংলাদেশের প্রধান বিচারপতি
কাজের মেয়াদ
১৬ ডিসেম্বর ১৯৭২ – ৫ নভেম্বর ১৯৭৫
উত্তরসূরীবিচারপতি সৈয়দ এ. বি. মাহমুদ হোসেন
৬ষ্ঠ বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি
কাজের মেয়াদ
৬ নভেম্বর ১৯৭৫ – ২১ এপ্রিল ১৯৭৭
পূর্বসূরীখন্দকার মোশতাক আহমেদ
উত্তরসূরীজিয়াউর রহমান
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম৮ জুলাই ১৯১৬
রংপুর, ব্রিটিশ রাজ
মৃত্যু৮ জুলাই, ১৯৯৭
ঢাকা, বাংলাদেশ
নাগরিকত্ব বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
রাজনৈতিক দলআওয়ামী লীগ
বাসস্থানঢাকা
প্রাক্তন শিক্ষার্থীপ্রেসিডেন্সি কলেজ
পেশাআইন
জীবিকাআইনবিদ
ধর্মইসলাম

বিচারপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম (৮ জুলাই ১৯১৬ - ৮ জুলাই ১৯৯৭) ছিলেন বাংলাদেশের একজন প্রখ্যাত আইনবিদ এবং প্রথম প্রধান বিচারপতি[১] তিনি বাংলাদেশের ৬ষ্ঠ রাষ্ট্রপতি হিসাবে ১৯৭৫ সালের ৬ নভেম্বর থেকে ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।[২]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম বর্তমান রংপুর জেলায় (তৎকালীন বাংলা প্রদেশের অংশ) ১৯১৬ সালের ৮ জুলাই জন্ম গ্রহণ করেন।[১] তিনি রংপুর জিলা স্কুলে পড়া লেখা করেন এবং পরবর্তিতে কারমাইকেল কলেজে ভর্তি হন। বিচারপতি সায়েম কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজে পড়ালেখা করেন ও ইউনিভার্সিটি ল' কলেজ থেকে আইনে ডিগ্রি লাভ করেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

কলকাতা কোর্টে আইনজীবী হিসেবে কাজ করার পর ১৯৪৭ সালে সায়েম ঢাকা চলে আসেন। ঢাকাতে তিনি ঢাকা হাইকোর্টে প্রাকটিস শুরু করেন। বাঙালি রাজনীতিবিদ এ. কে. ফজলুল হকের সাথেও সায়েম কাজ করেন। একসময় তিনি ঢাকা হাই কোর্ট বার এসোসিয়েশনের নির্বাচিত মহাসচিব ও ভাইস-প্রেসিডেন্ট হন। পূর্ব পাকিস্তান আইনজীবী এসোসিয়েশন, পূর্ব পাকিস্তান বার কাউন্সিল এবং ঢাকা বোর্ড অফ দ্যা স্টেট বাংক অফ পাকিস্তানের সদস্য ছিলেন আবু সায়েম। জুলাই ৩, ১৯৬২ সালে সায়েম বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা লাভের পর প্রথম প্রধান বিচারপতি হিসাবে আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েমকে নিয়োগ দেয়া হয় এবং বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালের ১২ জানুয়ারি বিচারপতি সায়েমকে শপথ বাক্য পাঠ করান।[১]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর বিচাপতি সায়েমকে ১২ জানুয়ারি ১৯৭২ তে দেশের প্রথম প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর এর সামরিক অভ্যুত্থানের পর খালেদ মোশাররফ, শাফায়াত জামিল এবং অভ্যুত্থানকারী কতিপয় সেনা অফিসারের অনুরোধে ৬ নভেম্বর বিচারপতি সায়েমকে দেশের ৬ষ্ঠ রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।[৩][৪][৫][৬] রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব গ্রহণের পরই তিনি সংসদ ও মন্ত্রিপরিষদ ভেঙ্গে দিয়ে সারাদেশে সামরিক আইন জারি করেন এবং নিজেকে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক ঘোষণা করেন। ১৯৭৬ সালের ২৯ নভেম্বর তিনি প্রধান সামরিক আইন প্রশাসকের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিয়ে সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমানকে প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক নিয়োগ করেন। ১৯৭৭ সালের ২১ এপ্রিল তিনি সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমানের হাতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব দিয়ে অবসর গ্রহণ করেন ।[৭]

রচনাবলী[সম্পাদনা]

বিচারপতি সায়েম তার আত্মজীবনী লেখেন "বঙ্গভবনে:শেষ অধ্যায়" (১৯৮৮)। এ বইটিতে তিনি ১৯৭৫-১৯৭৭ এর মাঝের দেশের রাজনৈতিক ঘটনাগুলো উল্লেখ্য করেন।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

বিচারপতি সায়েম ১৯৯৭ সালের ৮ জুলাই ৮১ বছর বয়সে মৃত্যু বরণ করেন।[১][৮]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. দেশের প্রথম প্রধান বিচারপতির শপথ অনুষ্ঠানের ছবি জাজেস লাউঞ্জে।[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "অবৈধ ৬ শাসক"। ২০১৬-০৩-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৭-০৮ 
  3. dailyjagaran.com। "কোনো সরকার ছিল না ঐ তিন দিন"dailyjagaran.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১২ 
  4. "১৯৭৫ সালের নভেম্বরের উত্তাল কয়েকটি দিন"BBC News বাংলা। ২০১৫-১১-০৫। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১৩ 
  5. "৭৫-এর নভেম্বর: ইতিহাসের উত্তাল ও রক্তাক্ত দিনগুলো"BBC News বাংলা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১৩ 
  6. "১৯৭১ সাল থেকে বিভিন্ন গভর্নমেন্টের তালিকা - বিস্তারিত"। ৭ মার্চ ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০১৫ 
  7. "The Daily Janakantha"web.archive.org। ২০১৬-০৩-০৪। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৮-১২ 
  8. বঙ্গভবনে বঙ্গবন্ধু থেকে জিল্লুর রহমান।

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী:
খন্দকার মোশতাক আহমেদ
বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি
নভেম্বর ৬ ১৯৭৫ - এপ্রিল ২১১৯৭৭
উত্তরসূরী:
জিয়াউর রহমান