আওরাবুনিয়া ইউনিয়ন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আওরাবুনিয়া
ইউনিয়ন
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগবরিশাল বিভাগ
জেলাঝালকাঠি জেলা
উপজেলাকাঁঠালিয়া উপজেলা উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
সময় অঞ্চলবিএসটি (ইউটিসি+৬)

আওরাবুনিয়া ইউনিয়ন বাংলাদেশের দক্ষিন বঙ্গের বিভাগ বৃহত্তর বরিশালের অন্তর্ভুক্ত জেলা ঝালকাঠী এবং কাঠালিয়া উপজেলার অন্তর্গত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

আওরাবুনিয়া গ্রামটি বিষখালি নদীর তীরে অবস্খিত। অত্র গ্রামটিতে খুবই সুনামের সাথে জনসাধারন বসবাস করিয়া আসিতেছে। এখানে হিন্দু,মুসলিম ও অন্যান্য ধর্মালম্বী জনগন মিলে মিশে বসবাস করছে।ধর্ম যারযার দেশ সবার এই স্লোগানই সবার মুখে।

আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের প্রখ্যাত ব্যক্তি বাবু সুরেন্দ্র নাথ মজুমদার,১৯৪৭ সালে আওরাবুনিয়া মডেল হাই স্কুল প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেন। আওরাবুনিয়া ইউনিয়নে বহু পুরানো একটি মসজিদ আছে। বর্তমানে বহু ধর্মপ্রতিষ্ঠান যেমন,মন্দির,মসজিদ,মাদ্রাসা,স্কুল গড়ে তুলে এলাকার সুনাম অক্ষুন্ন রেখেছেন। ১৯৭১ সালে মুক্তিযুেদ্ধ বীরযোদ্ধারা সক্রিয় ভুমিকা পালন করে এলাকা শত্রুমুক্ত রাখে।

গ্রামভিত্তিক লোকসংখ্যা[সম্পাদনা]

আওরাবুনিয়া ইউনিয়নের জনসংখ্যা

  • পশ্চিম ছিটকী ৩৫০০ জন।
  • কৈখালী ২৮০০ জন।
  • উত্তার চড়াইল ২৭০০ জন।
  • পূর্ব ছিটকী ৩৮০০ জন।
  • জাংঙ্গালিয়া ২৫০০ জন।
  • আওরাবুনিয়া ৩৮০০ জন।
  • দক্ষিন আওরাবুনিয়া ৪০০০ জন।
  • মধ্য আওরাবুনিয়া ২৫০০ জন।
  • উত্তর তালগাছিয়া ২৮০০ জন।

ভাষা ও সাংস্কৃতি[সম্পাদনা]

ভাষাগত ঐতিহ্যে ও স্বাতন্ত্রে বরিশালের আঞ্চলিক ভাষা মানুষের মনকে বিশেষ ভাবেআকর্ষন করে। এরই ধারাবহিকতায় কাঠালিয়া অধিবাসীরা এ আঞ্চলিক ভাষাতেই কথা বলেথাকেন।

এছাড়াও এ অঞ্চলের অধিবাসীদের সংস্কৃতিতে জারি, সারি, ভাটিয়ালী, মুর্শিদী, ললন গীতি, পুঁথিপাঠ বিশেষ স্থান দখল করে নিয়েছে। যা বাংলার লোকজ সাহিত্যের প্রাণ।

নদী ও খাল[সম্পাদনা]

  • বিষখালী নদী
  • আওরাবুনিয়া খাল
  • জাঙ্গালিয়ার খাল
  • আওরাবুনিয়া ডাইনের খাল
  • বামোনের খাল
  • কাজীর খাল
  • ঠাকুর বাড়ীর খাল
  • কাটাখালির খাল
  • নাঈয়ার খাল
  • কুলকািট খাল
  • মুিনয়ার খাল

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]