আইভারমেকটিন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আইভারমেকটিন
Ivermectin skeletal.svg
রোগশয্যাসম্বন্ধীয় তথ্য
বাণিজ্যিক নামScabo, Ivera
এএইচএফএস/
ড্রাগস.কম
মনোগ্রাফ (antiparasitic)
এফডিএ পেশাগত ড্রাগের তথ্য (rosacea)
মেডলাইনপ্লাসa607069
[[চিকিৎসা পণ্য নিয়ন্ত্রণ|টেমপ্লেট:Engvar উপাত্ত]]
গর্ভধারণ
বিষয়শ্রেণী
প্রবেশের
পথ
মুখ, ত্বক
এটিসি কোড
আইনি অবস্থা
আইনি অবস্থা
ফার্মাকোকাইনেটিক উপাত্ত
প্রোটিন বন্ধন৯৩%
বিপাকযকৃৎ (CYP450)
বর্জন অর্ধ-জীবন১৮ ঘণ্টা
রেচনমল; <১% মূত্র
শনাক্তকারী
সিএএস নম্বর
পাবকেম সিআইডি
ড্রাগব্যাংক
কেমস্পাইডার
ইউএনআইআই
কেইজিজি
সিএইচইএমবিএল
পিডিবি লিগ্যান্ড
কমপটক্স ড্যাশবোর্ড (আইপিএ)
ইসিএইচএ ইনফোকার্ড100.067.738 উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন
রাসায়নিক ও ভৌত তথ্য
সংকেতC
48
H
74
O
14
(22,23-dihydroavermectin B1a)
C
47
H
72
O
14
(22,23-dihydroavermectin B1b)
মোলার ভর৮৭৫.১০ g/mol
থ্রিডি মডেল (জেএসমোল)
 NYesY (এটা কি?)  (যাচাই)

আইভারমেকটিন (ইংরেজি: Ivermectin) ওষুধটি বিভিন্ন ধরনের পরজীবী সংক্রমণের বিরুদ্ধে ব্যবহৃত হয়।[১] এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো মাথার উকুন, স্কেবিজ বা চুলকানি, অংকোসারসায়াসিস বা নদী অন্ধত্ব, স্ট্রনজিলোইডায়াসিস, ট্রিকিউরায়াসিস, অ্যাস্কারায়াসিস, লিমফ্যাটিক ফিলারায়াসিস বা গোদ রোগ[১][২][৩][৪] এই ওষুধটি মুখে সেবন করা যায় অথবা বাহ্যিক সংক্রমণের জন্য ত্বকে প্রয়োগ করা যায়।[১][৫] চোখে ব্যবহার এড়ানো উচিত।[১]

উল্লেখযোগ্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াসমূহ হলো চোখ লাল হওয়া, ত্বকের শুষ্কতা, ত্বক জ্বালাপোড়া করা।[১] গর্ভাবস্থায় ব্যবহার করা নিরাপদ কি না তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায় নি, তবে দুগ্ধদান কালীন এর ব্যবহার সম্ভবত গ্রহণযোগ্য।[৬] এই ওষুধটি অ্যাভারমেকটিন গোত্রভুক্ত।[১] এটা পরজীবীর কোষ ঝিল্লির ভেদনীয়তা বাড়িয়ে দেয় ফলে কোষের পক্ষাঘাত হয় এবং মৃত্যু ঘটে।[১]

আইভারমেকটিন আবিষ্কার হয় ১৯৭৫ সালে এবং চিকিৎসায় ব্যবহার শুরু হয় ১৯৮১ সাল থেকে।[৭][৮] এটা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরুরি তালিকাভুক্ত ওষুধ।[৯] উন্নয়নশীল দেশে এই ওষুধের একটা কোর্স সম্পন্ন করতে পাইকারি খরচ পড়ে প্রায় ০.১২ মার্কিন ডলার। [১০] মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই খরচ এই খরচ ৫০ ডলারের কম।[১১][১২] অন্যান্য প্রাণীদের ক্ষেত্রে এটি হৃদক্রিমি ও গোল ক্রিমির চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়।[৩]

চিকিৎসা ক্ষেত্রে ব্যবহার[সম্পাদনা]

গুঁড়া ক্রিমি[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন গুঁড়া ক্রিমির (এন্টারোবায়াসিস) চিকিৎসায় অ্যালবেনডাজলের মতোই কার্যকর।[১৩]

নদী অন্ধত্ব[সম্পাদনা]

অংকোসারসায়াসিস এর চিকিৎসা, নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে আইভারমেকটিন ব্যবহার করা হয়। তবে ব্যাপক চক্ষুক্রিমি সংক্রমণের ক্ষেত্রে (যেমন প্রতি মিলিলিটারে Loa loa মাইক্রোফিলেরির সংখ্যা ২০,০০০ এর অধিক হলে) এর ব্যবহার নিষিদ্ধ। [১৪] আইভারমেকটিনের একটি একক ডোজ ১-২ মাসের মধ্যে ত্বকে মাইক্রোফিলেরির পরিমাণ ৯৮-৯৯% কমিয়ে দিতে পারে।[১৫] আইভারমেকটিন একক ডোজ (১৫০ থেকে ২০০ μg/kg) প্রতি ৬-১২ মাসে দেওয়া হয়। এটি প্রাপ্তবয়স্ক ও পাঁচ বা তদূর্ধ্ব বয়সীদের দেওয়া হয়।

আমেরিকা অঞ্চলসাহারা-নিম্ন আফ্রিকায় গণহারে আইভারমেকটিন প্রদান অংকোসারসায়াসিস নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। ত্বক ও চোখের টিসু হতে কয়েক দিনের মধ্যেই মাইক্রোফিলেরি দূর হয়ে যায় এবং ৬-১২ মাস পর্যন্ত স্থায়ী হয়। অতঃপর পুনরায় আইভারমেকটিন দিতে হয়। যেহেতু আইভারমেকটিন প্রাপ্তবয়স্ক O. Volvulus এর বিরুদ্ধে কার্যকর নয় তাই এটা রোগ দূর করতে পারে না।[১৬] ১৯৮৭ সাল থেকে সমগ্র আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্যলাতিন আমেরিকায় অংকোসারসায়াসিস নিয়ন্ত্রণ প্রকল্পের প্রধান ওষুধ হিসেবে আইভারমেকটিন ব্যবহার হয়ে আসছে।

চক্ষুক্রিমি[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিনের একটি একক ডোজ খুব দ্রুত শরীরে চক্ষুক্রিমির (Loa loa) পরিমাণ হ্রাস করতে সক্ষম। রক্তে প্রতি মিলিলিটারে ২০,০০০ এর কম মাইক্রোফিলেরি থাকলে আইভারমেকটিন সম্পর্কিত পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ঝুঁকি কম থাকে।[১৭]

সুতাক্রিমি[সম্পাদনা]

সুতাক্রিমির চিকিৎসায় আইভারমেকটিন অ্যালবেনডাজল থেকে বেশি ও থায়াবেনডাজলের সমান কার্যকর। থায়াবেনডাজলের তুলনায় আইভারমেকটিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম এবং অ্যালবেনডাজলের মতোই সহনীয়।[১৮] যে সকল ব্যক্তি কম রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সম্পন্ন অথবা যারা রোগ প্রতিরোধ কমানোর ওষুধ নিবেন এবং যাদের নিশ্চিত অথবা সম্ভাব্য সুতাক্রিমি সংক্রমণ হয়েছে তারা আইভারমেকটিন গ্রহণ করলে উপকার পাবেন।[১৯]

চাবুক ক্রিমি[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন ও অ্যালবেনডাজলের সমন্বিত চিকিৎসা ট্রিকিউরায়াসিস বা চাবুক ক্রিমির বিরুদ্ধে কার্যকর এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও বেশি না।[২০]

লিমফ্যাটিক ফিলারায়াসিস[সম্পাদনা]

Brugia malayi, অথবা Brugia timori,[২১] ও ভুকেরেরিয়া ব্যানক্রফটি (Wuchereria bancrofti) দ্বারা ঘটিত লিমফ্যাটিক ফিলারায়াসিস বা গোদ রোগের চিকিৎসায় আইভারমেকটিন ও অ্যালবেনডাজলের সমন্বিত চিকিৎসা বেশ কার্যকর।[২২] আইভারমেকটিন লিমফ্যাটিক ফিলারায়াসিস নিয়ন্ত্রণে ডাইইথাইল কার্বামাজিনের মতোই কার্যকর এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও কম।

আর্থ্রোপড[সম্পাদনা]

পরজীবী আর্থ্রোপড ও কীটপতঙ্গের বিরুদ্ধে এর কার্যকারিতার প্রমাণ রয়েছে:

এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে পারমিথ্রিনের কার্যকারিতা সিস্টেমিক বা টপিক্যাল আইভারমেকটিনের মতোই।[২৬] আরেকটি পৃথক প্রতিবেদনে দেখা গেছে, যদিও মুখে সেবনীয় আইভারমেকটিন স্কেবিজের চিকিৎসায় কার্যকর তবে টপিক্যাল পারমিথ্রিনের চেয়ে চিকিৎসায় ব্যর্থতার হার বেশি।[২৭] আরেকটি প্রতিবেদনে দেখা গেছে মৌখিক আইভারমেকটিন কার্যকারিতা ও নিরাপত্তার মধ্যে যৌক্তিক ভারসাম্য প্রদান করে[২৮] কারণ আইভারমেকটিন পারমিথ্রিনের তুলনায় বেশি সুবিধাজনক।[২৯][৩০] আইভারমেকটিন মুখে ২০০ μg/kg ডোজে অজটিল স্কেবিজে দেওয়া হয়। ১-২ সপ্তাহ অন্তর দুটি ডোজ দেওয়া হয়। জটিল স্কেবিজে ২০০ μg/kg হারে ১, ২, ৮, ৯, ১৫, ২২ ও ২৯ তম দিনে মোট সাতটি ডোজ দেওয়া হয়। [৩১]

যুক্তরাষ্ট্রের এফ ডি এ ছয় মাস বা তদূর্ধ্ব বয়সীদের জন্য উকুনের চিকিৎসায় ০.৫% আইভারমেকটিন লোশন অনুমোদন দিয়েছে।[৩৪] শুষ্ক চুলে একবার লাগিয়ে ১০ মিনিট রেখে গোসল করার পর ৭৮% ব্যক্তি দুই সপ্তাহের মধ্যে উকুন মুক্ত হয়েছে।[৩৫][৩৬]

  • ছারপোকা:

আইভারমেকটিন ছারপোকাকে মারতে পারে।[৩৭][৩৮][৩৯] তবে এর এধরনের কাজে ব্যবহারের জন্য দীর্ঘদিন ওষুধ সেবনের প্রয়োজন হয় ফলে এর নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।[৪০]

  • ম্যালেরিয়া বহনকারী মশা যেমন অ্যানোফিলিস গাম্বি:

নেমাটোড সংক্রমণের চিকিৎসা বা প্রতিরোধের উদ্দেশ্যে জনসাধারণকে গণহারে আইভারমেকটিন সেবন করালে তা ম্যালেরিয়া বহনকারী মশা নিধনে সাহায্য করে ফলে ম্যালেরিয়া জীবাণু যেমন প্লাজমোডিয়াম ফ্যালসিপ্যারাম এর সংক্রমণ কমিয়ে দেয়।[৪১]

রোজেসিয়া[সম্পাদনা]

এক প্রতিবেদনে দেখা গেছে আইভারমেকটিন রোজেসিয়ার চিকিৎসায় কার্যকর।[৪২] যুক্তরাষ্ট্রে ও ইউরোপে আইভারমেকটিনের একটি ক্রিম রোজেসিয়ার চিকিৎসায় ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। রোজেসিয়া রোগে Demodex গণের এক পরজীবী মাইটের ভূমিকা রয়েছে এই প্রকল্পের ওপর ভিত্তি করে আইভারমেকটিন ব্যবহার করা হয়।[৪৩] গবেষণায় দেখা গেছে আইভারমেকটিন চার মাসে ৮৩% ক্ষত সারিয়ে তুলেছে যেখানে মেট্রোনিডাজল থেরাপিতে ৭৪% কমে।[৪৪]

প্রতিনির্দেশনা[সম্পাদনা]

পাঁচ বছর বয়সের নিচের শিশু এবং যাদের ওজন ১৫ কিলোগ্রাম (৩৩ পাউন্ড) এর নিচে তাদের ক্ষেত্রে আইভারমেকটিন ব্যবহার করা যাবে না। [৩২] যকৃৎ ও বৃক্কের রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের এই ওষুধ ব্যবহার করা যাবে না।[৪৫] আইভারমেকটিন খুব অল্প পরিমাণে মাতৃদুগ্ধে ক্ষরিত হয়। দুগ্ধ পানকারী শিশুর শরীরে এর ফল কী তা এখনো অজানা।[৪৬] গর্ভাবস্থায় আইভারমেকটিন ব্যবহার নিরাপদ কি না তা নিশ্চিত না। তাই গর্ভাবস্থায় এটি ব্যবহার অনুচিত।[৪৭] যেসব রোগে (যেমন মেনিনজাইটিস ,আফ্রিকান ট্রিপ্যানোসোমায়াসিস) রক্ত-মস্তিষ্ক প্রতিবন্ধক ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেসব ক্ষেত্রে আইভারমেকটিন দেওয়া যাবে না।

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

স্ট্রনজিলোইডায়াসিসের চিকিৎসায় আইভারমেকটিনের কিছু বিরুদ্ধ প্রতিক্রিয়া লক্ষ্য করা যায় যেমন, ক্লান্তি, মাথা ঝিমঝিম, বমনেচ্ছা, বমন, পেটব্যথা ও ফুসকুড়ি। অংকোসারসায়াসিসের চিকিৎসায় যেসব বিরুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা যায় সেগুলো মূলত মাইক্রোফিলেরির মৃত্যুর ফলে হয় যেমন, জ্বর, মাথাব্যথা, মাথা ঝিমঝিম, নিদ্রালুতা, দুর্বলতা, ফুসকুড়ি, চুলকানি, উদরাময়, অস্থি ও পেশিতে ব্যথা, নিম্ন রক্তচাপ,হৃদস্পন্দনের হার বৃদ্ধি, লসিকাগ্রন্থির প্রদাহ, লসিকাবাহর প্রদাহ, প্রান্তীয় স্ফীতি। [৪৮] এই প্রতিক্রিয়া প্রথম দিনে শুরু হয় এবং দ্বিতীয় দিনে সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছে। এটা ৫-৩০% ব্যক্তির ক্ষেত্রে হয় এবং সাধারণত হালকা হয়ে থাকে। অ্যাসপিরিন ও অ্যান্টিহিস্টামিন প্রয়োগে এগুলো উপশম হয়। তবে যারা অংকোসারসায়াসিস প্রবন অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে না তাদের ক্ষেত্রে এটি বেশি তীব্র হতে পারে। ১-৩% ক্ষেত্রে তীব্র হয় আর ০.১% ক্ষেত্রে অত্যধিক তীব্র হয় যেমন, নিম্ন রক্তচাপ, উচ্চমাত্রার জ্বর, শ্বাসনালির সংকোচন। এ অবস্থায় কর্টিকোস্টেরয়েড কয়েকদিন ধরে প্রয়োগ করা হয়। পুনঃপুন ডোজ প্রয়োগে বিষক্রিয়া কমে আসে। যেসব স্থানে প্রাপ্তবয়স্ক ক্রিমি থাকে সেখানে মাঝে মাঝে ১-৩ সপ্তাহের মধ্যে ফুলে যায় ও ফোঁড়া হয়। কারও কারও ক্ষেত্রে চিকিৎসা শুরুর কিছুদিন পর চোখের অচ্ছোদপটল অনচ্ছ হয়ে যায় এবং চোখের আরও অন্যান্য ক্ষত দেখা দেয়। এগুলো কদাচিৎ তীব্র হয় এবং কর্টিকোস্টেরয়েড ছাড়ায় সাধারণত সেরে যায়।[৪৯]

অন্যান্য যে সকল ওষুধ GABA ক্রিয়া বৃদ্ধি করে সেগুলোর সাথে আইভারমেকটিন ব্যবহার করা উচিত নয় যেমন বারবিচুরেট, বেনজোডায়াজেপিন, ও ভ্যালপ্রোয়িক অ্যাসিড। ডাইইথাইল কার্বামাজিনের তুলনায় আইভারমেকটিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কম। ডাইইথাইল কার্বামাজিন দিয়ে অংকোসারসায়াসিসের চিকিৎসায় চোখের সমস্যা আইভারমেকটিনের তুলনায় বেশি হয়।[৫০]

যাদের শরীরে Loa loa মাইক্রোফিলেরিয়ার পরিমাণ অত্যধিক তাদের আইভারমেকটিন দিলে একটি বিরল কিন্তু গুরুতর প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় যেমন এনসেফালোপ্যাথি। প্রতি মিলিলিটার রক্তে ৩০,০০০ এর বেশি Loa মাইক্রোফিলেরি থাকলে এরকম প্রতিক্রিয়া হতে পারে। আইভারমেকটিন ক্যান্সার বা গর্ভস্থ ভ্রূণের গাঠনিক বিকৃতি করতে পারে এরকম প্রমাণ নেই বললেই চলে। যেসকল ওষুধ CYP3A4 উৎসেচক কে নিবৃত্ত করে তারা প্রায়শই পি-গ্লাইকোপ্রোটিন পরিবহনকেও নিবৃত্ত করে, ফলে রক্ত-মস্তিষ্ক প্রতিবন্ধক ভেদ করে আইভারমেকটিনের শোষণ বৃদ্ধি পাবে যদি এর সাথে ঐ সকল ওষুধ যুগপৎভাবে ব্যবহার করা হয়। ওষুধগুলোর মধ্যে রয়েছে স্ট্যাটিনসমূহ, এইচ আই ভি প্রোটিয়েজ ইনহিবিটর, অনেক ক্যালসিয়াম চ্যানেল ব্লকার, লিডোকেইন, বেনজোডায়াজেপিন ও গ্লুকোকর্টিকয়েড যেমন ডেক্সামিথাসন।

ঔষধবিদ্যা[সম্পাদনা]

ফার্মাকোডাইনামিকস[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন Streptomyces avermitilis নামক ব্যাক্টেরিয়াম থেকে উদ্ভূত। আইভারমেকটিন কোষের স্নায়ুতন্ত্র ও মাংসপেশির ক্রিয়া কে বাধা দেওয়ার মাধ্যমে হত্যা করে। বিশেষত এটা কোষের নিবৃত্তমূলক স্নায়বিক উদ্দীপনা সঞ্চারণ কে বাড়িয়ে দেয়। আইভারমেকটিন অমেরুদণ্ডী প্রাণীদের স্নায়ু ও পেশি কোষের ঝিল্লিতে অবস্থিত গ্লুটামেট-গেটেড ক্লোরাইড চ্যানেলের (GluCls) সাথে বন্ধন তৈরি করে ফলে ক্লোরাইড আয়নের প্রবেশ্যতা বৃদ্ধি পায় এবং কোষে অতি মেরুকরণ ঘটে। এর ফলে কোষ পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয় এবং মৃত্যু ঘটে।[১][৫১] এই ক্লোরাইড চ্যানেল সুনির্দিষ্টভাবে অমেরুদণ্ডী প্রাণীদের কোষে বিদ্যমান

ফার্মাকোকাইনেটিকস[সম্পাদনা]

মানুষের ক্ষেত্রে মুখে আইভারমেকটিন সেবনের ৪-৫ ঘণ্টা পরে রক্তে সর্বোচ্চ ঘনত্ব পাওয়া যায়। এর অর্ধায়ু প্রায় ৫৭ ঘণ্টা। অর্ধায়ু বেশি হওয়ায় এটি শরীর থেকে বের হতে অনেক সময় লাগে এবং এর বণ্টন আয়তন অনেক বেশি। প্রায় ৯৩% আইভারমেকটিন প্লাজমা প্রোটিনের সাথে যুক্ত থাকে। এই ওষুধটি যকৃতের CYP3A4 উৎসেচকের মাধ্যমে ব্যাপকভাবে রূপান্তরিত হয়ে কমপক্ষে ১০ টা উৎপাদে পরিণত হয়। আইভারমেকটিন মূলত মানব মূত্রে পাওয়া যায় না। আইভারমেকটিন মুখে সেবন, ত্বকে বা শিরাপথে প্রয়োগ করা যায়। এটি পি-গ্লাইকোপ্রোটিন এর কারণে স্তন্যপায়ীদের রক্ত-মস্তিষ্ক প্রতিবন্ধক অতিক্রম করতে পারে না।[৫২] MDR1 জিনের মিউটেশান এই প্রোটিনের কাজকে প্রভাবিত করে। আইভারমেকটিন উচ্চমাত্রায় দিলে রক্ত-মস্তিষ্ক প্রতিবন্ধক অতিক্রম করতে পারে। সেক্ষেত্রে মস্তিষ্কে ২-৫ ঘণ্টা পরে সর্বোচ্চ পরিমাণে পৌঁছাতে পারে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

টোকিওর কিতাসাতো বিশ্ববিদ্যালয়ের সাতোশি ওমুরা ও যুক্তরাষ্ট্রের মার্ক ইন্সটিটিউট ফর থেরাপিউটিক রিসার্চের উইলিয়াম সি. ক্যাম্পবেল অ্যাভারমেকটিন পরিবারের যৌগ আবিষ্কার করেন যা থেকে রাসায়নিকভাবে আইভারমেকটিন পাওয়া যায়। সাতোশি ওমুরা Streptomyces avermitilis নামক ব্যাক্টেরিয়ামে অ্যাভারমেকটিন শনাক্ত করেন।[৫৩] ক্যাম্পবেল ওমুরা থেকে প্রাপ্ত অ্যাভারমেকটিন কে পরিশুদ্ধ করেন এবং আইভারমেকটিন আবিষ্কার করেন যা পূর্ববর্তীর তুলনায় বেশি শক্তিশালী কিন্ত কম বিষাক্ত।[৫৪] আইভারমেকটিন আবিষ্কার হয় ১৯৮১ সালে।[৫৫] অ্যাভারমেকটিন আবিষ্কারের জন্য ২০১৫ সালে ওমুরা ও ক্যাম্পবেল কে নোবেল পুরস্কার দেওয়া হয়।[৫৬]

পশুদের ক্ষেত্রে ব্যবহার[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন জাবরকাটা পশুদের অন্ত্রীয় কৃমির চিকিৎসায় সচরাচর ব্যবহার করা হয়। কুকুরের ক্ষেত্রে হৃদক্রিমির চিকিৎসায় আইভারমেকটিন ব্যবহার করা হয়।[৫৭] তবে যে সকল কুকুরের MDR1 জিন মিউটেশান আছে তাদের ক্ষেত্রে বিষক্রিয়া দেখা দেয়।[৫৮][৫৯][৬০] বিড়ালের ক্ষেত্রে আইভারমেকটিন বিষক্রিয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে।[৬১]

গবেষণা[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন কে পীতজ্বরচিকুনগুনিয়ার ক্ষেত্রে সম্ভাব্য ভাইরাসনাশক ওষুধ হিসেবে গবেষণা করা হচ্ছে।[৬২] ২০১৩ সালে এই পরজীবী নাশক ওষুধটিকে ফারনিসয়েড এক্স রিসেপ্টরের (FXR) একটি লিগ্যান্ড হিসেবে দেখানো হয়,[৬৩][৬৪] যা নন-অ্যালকোহলিক ফ্যটি লিভার ডিজিজের একটা লক্ষ্যবস্তু।[৬৫] আইভারমেকটিন ম্যালেরিয়া প্রতিরোধেও কার্যকর হতে পারে যেহেতু এটা স্বয়ং প্লাজমোডিয়াম ও এর বাহক মশা উভয়ের জন্যই বিষাক্ত।[৬৬][৬৭]

সারস-কভ-২[সম্পাদনা]

আইভারমেকটিন বানরের বৃক্ক কোষ কালচারে সার্স-কভ-২ প্রতিলিপি সৃষ্টি কে নিবৃত্ত করে। যেখানে এর নিবৃত্তমূলক ঘনত্ব (IC50)ছিল ২.২-২.৮µM। [৬৮][৬৯] কোষ কালচারে যে ডোজ ব্যবহার করা হয়েছে মানব শরীরে তার চেয়ে ১০ গুণ বড় ডোজ লাগতে পারে, যার ফলে এটাকে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় কার্যকরী বলে আশাবাদী হওয়া যাচ্ছে না।[৭০] অধিকন্তু কোষ কালচার গবেষণা ডেঙ্গু চিকিৎসার ক্ষেত্রেও আশা জাগিয়েছিল কিন্তু প্রাণী পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছে।[৭০]

১০ এপ্রিল ২০২০ এফ ডি এ কোভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন ব্যবহার না করার নির্দেশনা দেয়।[৭১] ৮ মে ২০২০, পেরুর স্বাস্থ্য বিভাগ কোভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন ব্যবহারের অনুমোদন দেয়।[৭২] ১২ মে ২০২০, বলিভিয়ার স্বাস্থ্য বিভাগও একই ধরনের অনুমোদন দেয়।[৭৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Ivermectin"। The American Society of Health-System Pharmacists। জানুয়ারি ৩, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৬, ২০১৬ 
  2. Sneader W (২০০৫)। Drug Discovery a History.। Chichester: John Wiley & Sons। পৃষ্ঠা 333। আইএসবিএন 978-0-470-01552-0 
  3. Saunders Handbook of Veterinary Drugs: Small and Large Animal (4 সংস্করণ)। Elsevier Health Sciences। ২০১৫। পৃষ্ঠা 420। আইএসবিএন 978-0-323-24486-2। জানুয়ারি ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  4. CDC-Centers for Disease Control and Prevention (২৩ আগস্ট ২০১৯)। "Ascariasis - Resources for Health Professionals"www.cdc.gov (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  5. Panahi Y, Poursaleh Z, Goldust M (২০১৫)। "The efficacy of topical and oral ivermectin in the treatment of human scabies" (PDF)Annals of Parasitology61 (1): 11–16। PMID 25911032 
  6. "Ivermectin Levels and Effects while Breastfeeding"Drugs.com। জানুয়ারি ১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জানুয়ারি ১৬, ২০১৬ 
  7. Mehlhorn H (২০০৮)। Encyclopedia of parasitology (3rd সংস্করণ)। Berlin: Springer। পৃষ্ঠা 646। আইএসবিএন 978-3-540-48994-8। জানুয়ারি ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  8. Vercruysse J, Rew RS, সম্পাদকগণ (২০০২)। Macrocyclic lactones in antiparasitic therapy। Oxon, UK: CABI Pub.। পৃষ্ঠা Preface। আইএসবিএন 978-0-85199-840-4। জানুয়ারি ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  9. ((World Health Organization)) (২০১৯)। World Health Organization model list of essential medicines: 21st list 2019। Geneva: World Health Organization। hdl:10665/325771অবাধে প্রবেশযোগ্য। WHO/MVP/EMP/IAU/2019.06. License: CC BY-NC-SA 3.0 IGO। 
  10. "Ivermectin"International Medical Products Price Guide। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৬, ২০২০ 
  11. Hamilton RJ (২০১৪)। Tarascon pocket pharmacopoeia : 2014 deluxe lab-pocket edition (15th সংস্করণ)। Sudbury: Jones & Bartlett Learning। পৃষ্ঠা 40। আইএসবিএন 978-1-284-05399-9। জানুয়ারি ৩১, ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  12. "NADAC as of 2019-09-25 | Data.Medicaid.gov"Centers for Medicare and Medicaid Services (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  13. Ottesen EA, Campbell WC (আগস্ট ১৯৯৪)। "Ivermectin in human medicine"। The Journal of Antimicrobial Chemotherapy34 (2): 195–203। doi:10.1093/jac/34.2.195PMID 7814280 
  14. Keating J, Yukich JO, Mollenkopf S, Tediosi F (জুলাই ২০১৪)। "Lymphatic filariasis and onchocerciasis prevention, treatment, and control costs across diverse settings: a systematic review"। Acta Tropica135: 86–95। doi:10.1016/j.actatropica.2014.03.017PMID 24699086 
  15. Basáñez MG, Pion SD, Boakes E, Filipe JA, Churcher TS, Boussinesq M (মে ২০০৮)। "Effect of single-dose ivermectin on Onchocerca volvulus: a systematic review and meta-analysis"The Lancet. Infectious Diseases8 (5): 310–22। doi:10.1016/S1473-3099(08)70099-9PMID 18471776 
  16. Rang, H.P.; Ritter, J.M.; Flower, R.J.; Henderson, G.। RANG & DALE'S Pharmacology (8 সংস্করণ)। Elsevier। পৃষ্ঠা 674। আইএসবিএন 13 978-0-7020-5363-4 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: length (সাহায্য) 
  17. Pion SD, Tchatchueng-Mbougua JB, Chesnais CB, Kamgno J, Gardon J, Chippaux JP, Ranque S, Ernould JC, Garcia A, Boussinesq M (এপ্রিল ২০১৯)। "Loa loa Microfilaremia: Systematic Review and Meta-analysis"Open Forum Infectious Diseases6 (4): ofz019। doi:10.1093/ofid/ofz019PMID 30968052পিএমসি 6449757অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  18. Henriquez-Camacho C, Gotuzzo E, Echevarria J, White AC, Terashima A, Samalvides F, Pérez-Molina JA, Plana MN (জানুয়ারি ২০১৬)। "Ivermectin versus albendazole or thiabendazole for Strongyloides stercoralis infection"The Cochrane Database of Systematic Reviews (1): CD007745। doi:10.1002/14651858.CD007745.pub3PMID 26778150পিএমসি 4916931অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  19. Kotton C, Mileno M, Keystone J (২০১৯)। "The Immunocompromised Traveler"। Travel medicine। Edinburgh: Elsevier। পৃষ্ঠা 269–277। আইএসবিএন 978-0-323-54696-6 
  20. Palmeirim MS, Hürlimann E, Knopp S, Speich B, Belizario V, Joseph SA, Vaillant M, Olliaro P, Keiser J (এপ্রিল ২০১৮)। "Efficacy and safety of co-administered ivermectin plus albendazole for treating soil-transmitted helminths: A systematic review, meta-analysis and individual patient data analysis"PLOS Neglected Tropical Diseases12 (4): e0006458। doi:10.1371/journal.pntd.0006458PMID 29702653পিএমসি 5942849অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  21. Taylor MJ, Hoerauf A, Bockarie M (অক্টোবর ২০১০)। "Lymphatic filariasis and onchocerciasis"। Lancet376 (9747): 1175–85। doi:10.1016/S0140-6736(10)60586-7PMID 20739055 
  22. de Kraker ME, Stolk WA, van Oortmarssen GJ, Habbema JD (মে ২০০৬)। "Model-based analysis of trial data: microfilaria and worm-productivity loss after diethylcarbamazine-albendazole or ivermectin-albendazole combination therapy against Wuchereria bancrofti"। Tropical Medicine & International Health11 (5): 718–28। doi:10.1111/j.1365-3156.2006.01606.xঅবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 16640625 
  23. Brooks PA, Grace RF (আগস্ট ২০০২)। "Ivermectin is better than benzyl benzoate for childhood scabies in developing countries" (PDF)Journal of Paediatrics and Child Health38 (4): 401–4। doi:10.1046/j.1440-1754.2002.00015.xPMID 12174005 
  24. Victoria J, Trujillo R (২০০১)। "Topical ivermectin: a new successful treatment for scabies"Pediatric Dermatology18 (1): 63–5। doi:10.1046/j.1525-1470.2001.018001063.xPMID 11207977 
  25. Strong M, Johnstone P (জুলাই ২০০৭)। Strong M, সম্পাদক। "Interventions for treating scabies"The Cochrane Database of Systematic Reviews (3): CD000320। doi:10.1002/14651858.CD000320.pub2PMID 17636630পিএমসি 6532717অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  26. Rosumeck S, Nast A, Dressler C (এপ্রিল ২০১৮)। "Ivermectin and permethrin for treating scabies"Cochrane Database Syst Rev4: CD012994। doi:10.1002/14651858.CD012994PMID 29608022পিএমসি 6494415অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  27. Dhana A, Yen H, Okhovat JP, Cho E, Keum N, Khumalo NP (জানুয়ারি ২০১৮)। "Ivermectin versus permethrin in the treatment of scabies: A systematic review and meta-analysis of randomized controlled trials"। Journal of the American Academy of Dermatology78 (1): 194–198। doi:10.1016/j.jaad.2017.09.006অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 29241784 
  28. Thadanipon K, Anothaisintawee T, Rattanasiri S, Thakkinstian A, Attia J (২০১৯)। "Efficacy and safety of antiscabietic agents: A systematic review and network meta-analysis of randomized controlled trials."। J Am Acad Dermatol80 (5): 1435–1444। doi:10.1016/j.jaad.2019.01.004অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 30654070  উন্মুক্ত প্রবেশাধিকারযুক্ত প্রকাশনা - বিনামূল্যে পড়া যাবে
  29. Crump A, Ōmura S (১০ ফেব্রুয়ারি ২০১১)। "Ivermectin, 'wonder drug' from Japan: the human use perspective"Proceedings of the Japan Academy. Series B, Physical and Biological Sciences87 (2): 13–28। doi:10.2183/pjab.87.13PMID 21321478পিএমসি 3043740অবাধে প্রবেশযোগ্যবিবকোড:2011PJAB...87...13C 
  30. Laing R, Gillan V, Devaney E (জুন ২০১৭)। "Ivermectin - Old Drug, New Tricks?"Trends in Parasitology33 (6): 463–472। doi:10.1016/j.pt.2017.02.004PMID 28285851পিএমসি 5446326অবাধে প্রবেশযোগ্য  উন্মুক্ত প্রবেশাধিকারযুক্ত প্রকাশনা - বিনামূল্যে পড়া যাবে
  31. Brunton, Laurence; Chabner, Bruce; Knollman, Bjorn। Goodman & Gilman's The Pharmacological Basis of Therapeutics (১২ সংস্করণ)। Lange Medical Publication। পৃষ্ঠা 1454-1456। আইএসবিএন 978-0-07-176939-6 
  32. Dourmishev AL, Dourmishev LA, Schwartz RA (ডিসেম্বর ২০০৫)। "Ivermectin: pharmacology and application in dermatology"International Journal of Dermatology44 (12): 981–8। doi:10.1111/j.1365-4632.2004.02253.xPMID 16409259 
  33. Strycharz JP, Yoon KS, Clark JM (জানুয়ারি ২০০৮)। "A new ivermectin formulation topically kills permethrin-resistant human head lice (Anoplura: Pediculidae)"। Journal of Medical Entomology45 (1): 75–81। doi:10.1603/0022-2585(2008)45[75:ANIFTK]2.0.CO;2PMID 18283945 
  34. "Sklice lotion"drugs.com। ১২ মে ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  35. Pariser DM, Meinking TL, Bell M, Ryan WG (১ নভেম্বর ২০১২)। "Topical 0.5% ivermectin lotion for treatment of head lice"। The New England Journal of Medicine367 (18): 1687–93। doi:10.1056/NEJMoa1200107অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 23113480 
  36. Healy M (১ নভেম্বর ২০১২)। "New treatment for lice is highly effective, study reports"Los Angeles Times। জানুয়ারি ১, ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  37. Crump A (মে ২০১৭)। "Ivermectin: enigmatic multifaceted 'wonder' drug continues to surprise and exceed expectations"। J. Antibiot.70 (5): 495–505। doi:10.1038/ja.2017.11অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 28196978 
  38. Ōmura S (আগস্ট ২০১৬)। "A Splendid Gift from the Earth: The Origins and Impact of the Avermectins (Nobel Lecture)"Angew. Chem. Int. Ed. Engl.55 (35): 10190–209। doi:10.1002/anie.201602164PMID 27435664 
  39. James WD, Elston D, Berger T, Neuhaus I (২০১৫)। Andrews' Diseases of the Skin: Clinical Dermatology (ইংরেজি ভাষায়)। Elsevier Health Sciences। পৃষ্ঠা 439। আইএসবিএন 9780323319690Ivermectin treatment is emerging as a potential ancillary measure. 
  40. Lebwohl MG, Heymann WR, Berth-Jones J, Coulson I (২০১৭)। Treatment of Skin Disease: Comprehensive Therapeutic Strategies (ইংরেজি ভাষায়)। Elsevier Health Sciences। পৃষ্ঠা 89। আইএসবিএন 9780702069130 
  41. Tizifa TA, Kabaghe AN, McCann RS, van den Berg H, Van Vugt M, Phiri KS (২০১৮)। "Prevention Efforts for Malaria"Curr Trop Med Rep5 (1): 41–50। doi:10.1007/s40475-018-0133-yPMID 29629252পিএমসি 5879044অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  42. Siddiqui K, Stein Gold L, Gill J (২০১৬)। "The efficacy, safety, and tolerability of ivermectin compared with current topical treatments for the inflammatory lesions of rosacea: a network meta-analysis"SpringerPlus5 (1): 1151। doi:10.1186/s40064-016-2819-8PMID 27504249পিএমসি 4956638অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  43. Moran EM, Foley R, Powell FC (২০১৭)। "Demodex and rosacea revisited"। Clin. Dermatol.35 (2): 195–200। doi:10.1016/j.clindermatol.2016.10.014PMID 28274359 
  44. "Galderma Receives FDA Approval of Soolantra (Ivermectin) Cream for Rosacea"drugs.com। জানুয়ারি ২২, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। "
  45. Heukelbach J, Winter B, Wilcke T, Muehlen M, Albrecht S, de Oliveira FA, Kerr-Pontes LR, Liesenfeld O, Feldmeier H (আগস্ট ২০০৪)। "Selective mass treatment with ivermectin to control intestinal helminthiases and parasitic skin diseases in a severely affected population"Bulletin of the World Health Organization82 (8): 563–71। PMID 15375445পিএমসি 2622929অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  46. Koh YP, Tian EA, Oon HH (সেপ্টেম্বর ২০১৯)। "New changes in pregnancy and lactation labelling: Review of dermatologic drugs"Int J Womens Dermatol5 (4): 216–226। doi:10.1016/j.ijwd.2019.05.002PMID 31700976পিএমসি 6831768অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  47. Nicolas P, Maia MF, Bassat Q, Kobylinski KC, Monteiro W, Rabinovich NR, Menéndez C, Bardají A, Chaccour C (জানুয়ারি ২০২০)। "Safety of oral ivermectin during pregnancy: a systematic review and meta-analysis"। Lancet Glob Health8 (1): e92–e100। doi:10.1016/S2214-109X(19)30453-Xঅবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 31839144 
  48. Whalen, Karen; Finkel, Richard; A. Panavelil, Thomas। Lippincott Illustrated Reviews: Pharmacology (6 সংস্করণ)। Wolters Kluwer। পৃষ্ঠা 562। আইএসবিএন 978-1-4511-9177-6 
  49. G. Katzung, Bertran। Basic & Clinical Pharmacology (১৪ সংস্করণ)। Lange Medical Publication। পৃষ্ঠা ৯৪১-৯৪২। আইএসবিএন 978-1-259-64115-5 |আইএসবিএন= এর মান পরীক্ষা করুন: checksum (সাহায্য) 
  50. Tripathi, KD। Essentials of Medical Pharmacology (৭ সংস্করণ)। Jaypee Brothers Medical Publishers। পৃষ্ঠা ৮৫৪। আইএসবিএন 978-93-5025-937-5 
  51. Yates DM, Wolstenholme AJ (আগস্ট ২০০৪)। "An ivermectin-sensitive glutamate-gated chloride channel subunit from Dirofilaria immitis"। International Journal for Parasitology34 (9): 1075–81। doi:10.1016/j.ijpara.2004.04.010PMID 15313134 
  52. Borst P, Schinkel AH (জুন ১৯৯৬)। "What have we learnt thus far from mice with disrupted P-glycoprotein genes?"। European Journal of Cancer32A (6): 985–90। doi:10.1016/0959-8049(96)00063-9PMID 8763339 
  53. Saraiva RG, Dimopoulos G (মার্চ ২০২০)। "Bacterial natural products in the fight against mosquito-transmitted tropical diseases"। Natural Product Reports37 (3): 338–354। doi:10.1039/c9np00042aPMID 31544193 
  54. Fisher MH, Mrozik H (১৯৯২)। "The chemistry and pharmacology of avermectins"। Annual Review of Pharmacology and Toxicology32: 537–53। doi:10.1146/annurev.pa.32.040192.002541অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 1605577 
  55. Campbell WC, Burg RW, Fisher MH, Dybas RA (জুন ২৬, ১৯৮৪)। "Chapter 1: The discovery of ivermectin and other avermectins"। Pesticide Synthesis Through Rational Approaches। ACS Symposium Series। 255। American Chemical Society। পৃষ্ঠা 5–20। doi:10.1021/bk-1984-0255.ch001অবাধে প্রবেশযোগ্যআইএসবিএন 978-0-8412-1083-7 
  56. "The Nobel Prize in Physiology or Medicine 2015" (PDF)। Nobel Foundation। অক্টোবর ৬, ২০১৫ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৭, ২০১৫ 
  57. Papich MG (২০১৬-০১-০১)। "Ivermectin"। Papich MG। Saunders Handbook of Veterinary DrugsSaunders Handbook of Veterinary Drugs (Fourth Edition) (ইংরেজি ভাষায়)। W.B. Saunders। পৃষ্ঠা 420–423। doi:10.1016/B978-0-323-24485-5.00323-5আইএসবিএন 978-0-323-24485-5। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-০৭ 
  58. Dowling P (ডিসেম্বর ২০০৬)। "Pharmacogenetics: it's not just about ivermectin in collies"Can. Vet. J.47 (12): 1165–8। PMID 17217086পিএমসি 1636591অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  59. "MDR1 FAQs"। Australian Shepherd Health & Genetics Institute, Inc.। ডিসেম্বর ১৩, ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  60. "Multidrug Sensitivity in Dogs"। Washington State University's College of Veterinary Medicine। জুন ২৩, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  61. Frischke H, Hunt L (এপ্রিল ১৯৯১)। "Alberta. Suspected ivermectin toxicity in kittens"The Canadian Veterinary Journal32 (4): 245। PMID 17423775পিএমসি 1481314অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  62. Varghese FS, Kaukinen P, Gläsker S, Bespalov M, Hanski L, Wennerberg K, Kümmerer BM, Ahola T (ফেব্রুয়ারি ২০১৬)। "Discovery of berberine, abamectin and ivermectin as antivirals against chikungunya and other alphaviruses"। Antiviral Research126: 117–24। doi:10.1016/j.antiviral.2015.12.012PMID 26752081 
  63. Carotti A, Marinozzi M, Custodi C, Cerra B, Pellicciari R, Gioiello A, Macchiarulo A (২০১৪)। "Beyond bile acids: targeting Farnesoid X Receptor (FXR) with natural and synthetic ligands"Current Topics in Medicinal Chemistry14 (19): 2129–42। doi:10.2174/1568026614666141112094058PMID 25388537 
  64. Jin L, Feng X, Rong H, Pan Z, Inaba Y, Qiu L, ও অন্যান্য (২০১৩)। "The antiparasitic drug ivermectin is a novel FXR ligand that regulates metabolism"। Nature Communications4: 1937। doi:10.1038/ncomms2924অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 23728580বিবকোড:2013NatCo...4.1937J 
  65. Kim SG, Kim BK, Kim K, Fang S (ডিসেম্বর ২০১৬)। "Bile Acid Nuclear Receptor Farnesoid X Receptor: Therapeutic Target for Nonalcoholic Fatty Liver Disease"Endocrinology and Metabolism31 (4): 500–504। doi:10.3803/EnM.2016.31.4.500PMID 28029021পিএমসি 5195824অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  66. Chaccour C, Hammann F, Rabinovich NR (এপ্রিল ২০১৭)। "Ivermectin to reduce malaria transmission I. Pharmacokinetic and pharmacodynamic considerations regarding efficacy and safety"Malaria Journal16 (1): 161। doi:10.1186/s12936-017-1801-4PMID 28434401পিএমসি 5402169অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  67. Siewe Fodjo JN, Kugler M, Hotterbeekx A, Hendy A, Van Geertruyden JP, Colebunders R (আগস্ট ২০১৯)। "Would ivermectin for malaria control be beneficial in onchocerciasis-endemic regions?"Infectious Diseases of Poverty8 (1): 77। doi:10.1186/s40249-019-0588-7PMID 31439040পিএমসি 6706915অবাধে প্রবেশযোগ্য 
  68. Caly L, Druce JD, Catton MG, Jans DA, Wagstaff KM (এপ্রিল ২০২০)। "The FDA-approved drug ivermectin inhibits the replication of SARS-CoV-2 in vitro"Antiviral Research178: 104787। doi:10.1016/j.antiviral.2020.104787অবাধে প্রবেশযোগ্যPMID 32251768 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)পিএমসি 7129059অবাধে প্রবেশযোগ্য |pmc= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য)  উন্মুক্ত প্রবেশাধিকারযুক্ত প্রকাশনা - বিনামূল্যে পড়া যাবে
  69. Şimşek Yavuz S, Ünal S (এপ্রিল ২০২০)। "Antiviral treatment of COVID-19"। Turkish Journal of Medical Sciences50 (SI-1): 611–619। doi:10.3906/sag-2004-145PMID 32293834 |pmid= এর মান পরীক্ষা করুন (সাহায্য) 
  70. "TWiV 599: Coronavirus update - we need a plan | This Week in Virology"। সংগ্রহের তারিখ ২১ এপ্রিল ২০২০ 
  71. "Do Not Use Ivermectin for Animals as Treatment for COVID-19 in Humans"U.S. Food and Drug Administration (FDA)। ১০ এপ্রিল ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১০ এপ্রিল ২০২০ 
  72. "RM_270-2020-MINSA" (PDF)Republica Del Peru Ministerio De Salud। ৮ মে ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ৮ মে ২০২০ 
  73. "Bolivia"Bolivia Ministerio De Salud। ১২ মে ২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১২ মে ২০২০ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Anthelmintics টেমপ্লেট:Ectoparasiticides