শিখধর্ম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

শিখধর্ম[১] একটি একেশ্বরবাদী ধর্ম।[২] খ্রিষ্টীয় পঞ্চদশ শতাব্দীতে পাঞ্জাব অঞ্চলে এই ধর্ম প্রবর্তিত হয়। এই ধর্মের মূল ভিত্তি গুরু নানক দেব ও তাঁর উত্তরসূরি দশ জন শিখ গুরুর (পবিত্র ধর্মগ্রন্থ গুরু গ্রন্থ সাহিব এঁদের মধ্যে দশম জন বলে বিবেচিত হন) ধর্মোপদেশ। শিখধর্ম বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম ধর্মীয় গোষ্ঠী।[৩] শিখ ধর্মমত ও দর্শন গুরমত (অর্থাৎ, গুরুর উপদেশ) নামেও পরিচিত। শিখধর্ম কথাটির উৎস নিহিত রয়েছে শিখ শব্দটির মধ্যে; যেটি সংস্কৃত মূলশব্দ শিষ্য বা শিক্ষা থেকে আগত।[৪][৫]

শিখধর্মের প্রধান বক্তব্য হল ওয়াহেগুরু অর্থাৎ সর্বব্যাপী ঈশ্বরের প্রতীক এক ওঙ্কার-এর প্রতিভূ ওয়াহেগুরু-তে বিশ্বাস। এই ধর্ম ঈশ্বরের নাম ও বাণীর নিয়মবদ্ধ ও ব্যক্তিগত ধ্যানের মাধ্যমে মোক্ষলাভের কথা বলে। শিখধর্মের একটি বিশিষ্টতা হল এই যে, এই ধর্মে ঈশ্বরের অবতারতত্ত্ব স্বীকৃত নয়। বরং শিখেরা মনে করেন ঈশ্বরই এই ব্রহ্মাণ্ডের স্বরূপ। শিখেরা দশ জন শিখ গুরুর উপদেশ ও গুরু গ্রন্থ সাহিব নামক পবিত্র ধর্মগ্রন্থের অনুশাসন মেনে চলেন। উক্ত ধর্মগ্রন্থে দশ শিখ গুরুর ছয় জনের বাণী এবং নানান আর্থ-সামাজিক ও ধর্মীয় ব্যক্তিত্বদের বক্তব্য লিপিবদ্ধ রয়েছে। গুরু গোবিন্দ সিংহ এই গ্রন্থটিকে দশম গুরু বা খালসা পন্থের সর্বশেষ গুরু বলে ঘোষণা করে যান। পাঞ্জাবের ইতিহাস, সমাজ ও সংস্কৃতির সঙ্গে শিখধর্মের ঐতিহ্য ও শিক্ষা ওতোপ্রতোভাবে জড়িত। শিখধর্মের অনুগামীরা শিখ (অর্থাৎ, শিষ্য) নামে পরিচিত। সারা বিশ্বে শিখেদের সংখ্যা ২ কোটি ৬০ লক্ষের কাছাকাছি। শিখরা মূলত পাঞ্জাবভারতের অন্যান্য রাজ্যে বাস করেন। অধুনা পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশেও ভারত বিভাগের পূর্বে লক্ষাধিক শিখ বসবাস করতেন।[৬]

দর্শন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

শিখ ধর্মের দার্শনিক চিন্তাধারার মূল এসেছে উত্তর ভারতের দর্শন থেকে। সন্ত মত-এর প্রথাসমূহ ইখ ধর্মের প্রবক্তা গুরু নানকের উপর বিশেষ প্রভাব বিস্তার করেছিল। কয়েকজন সাধু সন্তের জীবনাদর্শ এই ধর্মের দর্শনে বিশেষভাবে প্রতিফলিত হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছেন রবিদাস এবং কবির। সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের প্রতি পূর্ণ আত্মসমর্পণের বিষয়ে শিখ ধর্ম প্রধান গুরুত্ব আরোপ করে। ঈশ্বর ভক্তির যে নমুনা এক্ষেত্রে দেখা যায় তা অনেকটা বৈষ্ণববাদের ভক্তি আন্দোলন-এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ।তবে নানকের শিক্ষা বৈষ্ণববাদের সাথে সম্পূর্ণ বিরোধী এই হিসেবে যে শিখ ধর্মে মূর্তিপুজা নিষিদ্ধ। এছাড়া বৈষ্ণববাদ অস্তিত্বশীল স্রষ্টার অন্য রূপে পৃথিবীদে আগমন এবং আত্মসিদ্ধির বিশেষ গুরুত্বের সাথেও শিখ ধর্মের সম্পর্ক নেই। ভক্তি আন্দোলনের চেয়ে শিখ ধর্ম আরও কঠিন আত্ম সাধনায় বিশ্বাসী। নানকের চিন্তাধারার যে বিবর্তন তার মৃত্যুর পর ঘটেছে তাও শিখ ধর্মের অনন্য দর্শন সৃষ্টিতে বিশেষ ভূমিকা রেখেছে। বুদ্ধিজীবীরা শিখবাদকে একটি অনন্য বিশ্বাস হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। শিখরা বিশ্বাস করে, তাদের ধর্ম সরাসরি ঈশ্বর কর্তৃক অনুপ্রাণিত এবং তাদের অনেকেই বিশ্বাস করে শিখ জাতি অনেকের সমন্বয় সাধন করেছে বিধায় কখনই মারমুখী হতে পারেনা।

ঈশ্বর[সম্পাদনা]

শিখ ধর্মমতে ঈশ্বর যাকে ওহেগুরু বলা হয় তার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে তিনি নিরাকার, আকাল ও আলেখ। আকাল মানে হচ্ছে সময়হীন, আলেখ মানে হচ্ছে অদৃশ্য।

পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য সাধনা[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. ইংরেজি উচ্চারণ: /ˈsiːkɨzəm/ (অসমর্থিত টেমপ্লেট) or /ˈsɪkɨzəm/ ( শুনুন); পাঞ্জাবি: ਸਿੱਖੀ, sikkhī, আ-ধ্ব-ব: [ˈsɪkːʰiː]
  2. monism (the doctrine that reality consists of a single basic substance or element - wordnetweb.princeton.edu/perl/webwn) is often confused with monotheism (belief in a single God - wordnetweb.princeton.edu/perl/webwn)
  3. Adherents.com। "Religions by adherents" (PHP)। সংগৃহীত 2007-02-09 
  4. Singh, Khushwant (2006)। The Illustrated History of the Sikhs। India: Oxford University Press। পৃ: 15। আইএসবিএন 0-19-567747-1 
  5. টেমপ্লেট:Pa icon Nabha, Kahan. Then th Sahib Singh (1930)। Gur Shabad Ratnakar Mahan Kosh/ਗੁਰ ਸ਼ਬਦ ਰਤਨਾਕਰ ਮਹਾਨ ਕੋਸ਼[[বিষয়শ্রেণী:বাংলা-নয় ভাষার লেখা রয়েছে এমন নিবন্ধ]] (Punjabi ভাষায়)। পৃ: 720। সংগৃহীত 2006-05-29  ইউআরএল শিরোনামে উইকিলিঙ্ক এমবেড করা (সাহায্য)
  6. Axel, Brian Keith (2001)। The Nation's Tortured Body: Violence, Representation, and the Formation। Duke University Press। পৃ: 88। আইএসবিএন 0822326159 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]