ভক্তি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
99px
শিব, বিষ্ণু, ও মহাশক্তির অন্যতম প্রধান রূপ সপরিবার দুর্গা

ভক্তি (সংস্কৃত: भक्ति) হিন্দুধর্মে উপাসনার একটি বিশেষ রীতি। পূজনীয় দেবতা বা ব্যক্তির প্রতি বিশেষ অনুরাগ বা প্রেমকেই ভক্তি বলা হয়।[১] ঈশ্বরের নিকট সম্পূর্ণ আত্মসমর্পণের নামই ভক্তি।[২] ভক্তির পথে যিনি ঈশ্বরোপাসনা করেন, তাঁকে ভক্ত নামে[৩] এবং ভক্তিবাদী দর্শনকে ভক্তিমার্গ নামে অভিহিত করা হয়।[৪][৫] ভক্তিবাদ হিন্দুধর্মের একাধিক শাখাসম্প্রদায়ের মূলভিত্তি। বিভিন্ন সম্প্রদায় ভিন্ন ভিন্ন ভাবে ভক্তিবাদের ব্যাখ্যা প্রদান করে থাকে।[৬]

ভক্তিবাদ ঈশ্বরপ্রেমকে প্রথা ও আচার-অনুষ্ঠানের ঊর্ধ্বে স্থান দেয়। ঈশ্বর ও মানুষের মধ্যে প্রেমিক-প্রেমিকা, বন্ধু, পিতামাতা-সন্তান, ও প্রভু-ভৃত্য ইত্যাদি মানবিক সম্পর্ক ভক্তিবাদের প্রধান স্তম্ভ।[৭] ঈশ্বরের কোনো নির্দিষ্ট রূপ,[৮] ঈশ্বরের নিরাকার রূপ,[৯] বা গুরুর প্রতি ভক্তি (গুরুভক্তি) ভক্তিবাদের অঙ্গ।[১০][১১] হিন্দুধর্মে সম্প্রদায়ভেদে ভক্তিবাদের নির্দিষ্ট রূপ প্রচলিত: শৈবেরা শিব ও শিব-সম্পর্কিত দেবদেবীগণের ভক্ত; বৈষ্ণবেরা বিষ্ণু ও তাঁর অবতারগণের ভক্ত এবং শাক্তেরা মহাশক্তির বিভিন্ন রূপের ভক্ত। তবে কোনো নির্দিষ্ট দেবতার প্রতি ভক্তি থাকলে অন্য কোনো দেবতাকে পূজা করা যাবে না – এমন কোনো বিধান হিন্দুধর্মে নেই।[১২]

ভগবদ্গীতা প্রথম ধর্মগ্রন্থ যেখানে "ভক্তি" শব্দটিকে প্রথম ধর্মীয় পথ অর্থে উল্লেখ করা হয়।[১৩] এর বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়া হয় ভাগবত পুরাণে[৭] ভক্তি আন্দোলনের কালে দক্ষিণ ভারত থেকে ভক্তিবাদের উত্থান ঘটে। এই ভক্তিবাদের প্রবক্তারা ছিলেন বৈষ্ণব অলবর (খ্রিষ্টীয় ষষ্ঠ থেকে নবম শতাব্দী) ও শৈব নায়নার (খ্রিষ্টীয় পঞ্চম থেকে দশম শতাব্দী) সম্প্রদায়ভুক্ত। ভক্তিবাদ ও ভক্তিবাদী সাহিত্য সমগ্র ভারতে ছড়িয়ে দেওয়ার পিছনে এঁরাই ছিলেন প্রধান অনুপ্রেরণা। খ্রিষ্টীয় দ্বাদশ থেকে অষ্টাদশ শতাব্দীর মধ্যবর্তী সময়ে ভক্তি আন্দোলন সমগ্র ভারতেই বিস্তার লাভ করেছিল।[১৪][১৫] ভারতে ভক্তিবাদের প্রভাব অন্যান্য ধর্মগুলির মধ্যেও ছড়িয়ে পড়ে।[১৬][১৭][১৮][১৯] বর্তমানে ভক্তিবাদ ভারতীয় সমাজের একটি অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ। ধর্মীয় থেকে ধর্মনিরপেক্ষ – অনেক বিষয়েই আজ ভক্তিবাদের ছায়া সুস্পষ্ট।

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  1. "Monier-Williams Sanskrit-English Dictionary"। University of Cologne। পৃ: bh। আসল থেকে June 18, 2008-এ আর্কাইভ করা। সংগৃহীত 2009-04-19 
  2. Pechilis Prentiss, Karen (1999)। The Embodiement of Bhakti। US: Oxford University Press। পৃ: 24। আইএসবিএন 9780195128130 
  3. Prentiss, p. 3.
  4. Klostermaier, Klaus (1989)। A survey of Hinduism। SUNY Press। পৃ: 210–212। আইএসবিএন 9780887068072 
  5. Prentiss, p. 23.
  6. Lindsay Jones, সম্পাদক (2005)। Gale Encyclopedia of Religion। Volume 2। Thompson Gale। পৃ: 856–857। আইএসবিএন ISBN 0-02-865735-7 
  7. ৭.০ ৭.১ Cutler, Norman (1987)। Songs of Experience। Indiana University Press। পৃ: 1। আইএসবিএন 9780253353344 
  8. Neusner, Jacob (2003)। World religions in America: an introduction। Westminster John Knox Press। পৃ: 128। আইএসবিএন 0-664-22475-X 
  9. Prentiss, p. 21.
  10. Sivananda, Swami (2004)। Guru Bhakti Yoga। Divine Life Society। আইএসবিএন 8170521688 
  11. Vivekananda, Swami (1970)। The Complete Works of Swami Vivekananda। Advaita Ashrama। পৃ: 62। 
  12. Rinehart, Robin (2004)। Contemporary Hinduism: ritual, culture, and practice। ABC-CLIO। পৃ: 45। আইএসবিএন 9781576079058 
  13. Prentiss, p. 5,
  14. Flood, Gavin (1996)। An Introduction to HinduismCambridge University Press। পৃ: 131। আইএসবিএন 9780521438780 
  15. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Embree নামের ref গুলির জন্য কোন টেক্সট প্রদান করা হয়নি
  16. Flood, Gavin D. (2003)। The Blackwell companion to Hinduism। Wiley-Blackwell। পৃ: 185। আইএসবিএন 9780631215356 
  17. Neusner, p. 135.
  18. Neill, Stephen (2002)। A history of Christianity in India, 1707-1858। Cambridge University Press। পৃ: 412। আইএসবিএন 9780521893329 
  19. Kelting, Mary Whitney (2001)। Singing to the Jinas: Jain laywomen, Maṇḍaḷ singing, and the negotiations of Jain devotion। Oxford University Press। পৃ: 87। আইএসবিএন 9780195140118 

অতিরিক্ত পাঠ[সম্পাদনা]

  • Swami Chinmayananda, Love Divine – Narada Bhakti Sutra, Chinmaya Publications Trust, Madras, 1970
  • স্বামী তপস্যানন্দ, Bhakti Schools of Vedanta, Sri Ramakrishna Math, Madras, 1990
  • A.C. Bhaktivedanta Swami Prabhupada, Srimad Bhagavatam (12 Cantos), The Bhaktivedanta Book Trust,2004
  • Steven J. Rosen, The Yoga of Kirtan: conversations on the Sacred Art of Chanting (New York: FOLK Books, 2008)

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

ভক্তি সম্পর্কে আরও তথ্য পেতে হলে উইকিপিডিয়ার সহপ্রকল্পগুলোতে অনুসন্ধান করে দেখতে পারেন:

Wiktionary-logo-en.svg সংজ্ঞা, উইকিঅভিধান হতে
Wikibooks-logo.svg পাঠ্যবই, উইকিবই হতে
Wikiquote-logo.svg উক্তি, উইকিউক্তি হতে
Wikisource-logo.svg রচনা সংকলন, উইকিউৎস হতে
Commons-logo.svg ছবি ও অন্যান্য মিডিয়া, কমন্স হতে
Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg ভ্রমণ নির্দেশিকা, উইকিভয়েজ হতে
Wikinews-logo.png সংবাদ, উইকিসংবাদ হতে