হানিফ পাঠান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মুহম্মদ হানিফ পাঠান
জন্ম(১৯০১-০৪-০৬)৬ এপ্রিল ১৯০১
মৃত্যু১৯৮৯
জাতীয়তাবাংলাদেশি
পরিচিতির কারণলোকসাহিত্য সংগ্রাহক ও গবেষক

মুহম্মদ হানিফ পাঠান (৬ এপ্রিল ১৯০১ - ১৯৮৯) ছিলেন একজন লোকসাহিত্য সংগ্রাহক ও গবেষক। তিনি বাংলাদেশের প্রাচীন দুর্গনগরী ও প্রত্নতাত্ত্বিক স্থান উয়ারী-বটেশ্বরকে জনসমক্ষে তুলে ধরার জন্য সর্বাধিক পরিচিত। তিনি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ সংখ্যক প্রবাদ সংগ্রহ ও মূল্যায়ন করেছেন।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

হানিফ পাঠান ১৯০১ সালের ৬ এপ্রিল (২৩ চৈত্র ১৩০৭ বঙ্গাব্দ) ঢাকা জেলার রায়পুরা থানার দেওয়ানচর গ্রামে মাতুলালয়ে জন্মগ্রহণ করেন।[১] তার পৈতৃক নিবাস ছিল বর্তমান নরসিংদী জেলার বেলাবো উপজেলার বটেশ্বর গ্রামে। তার পুত্রের নাম হাবিবুল্লাহ পাঠান, যিনিও একজন লোকসাহিত্য সংগ্রাহক ও গবেষক। হানিফ ১৯২১ সালে ঢাকা নর্মাল স্কুল থেকে নর্মাল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। এরপর তিনি স্কুল শিক্ষক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন এবং মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত শিক্ষকতা পেশায় জড়িত ছিলেন।

কর্মজীবন ও অবদান[সম্পাদনা]

হানিফ লোকসাহিত্যের প্রতি তার ব্যক্তিগত আগ্রহ থেকে এ বিষয়ে জ্ঞান অর্জন ও গবেষণা শুরু করেন। ১৯৩০-এর দশকের শুরুতেই হানিফ উয়ারী-বটেশ্বর অঞ্চলের প্রত্নতাত্ত্বিক গুরুত্ব অনুধাবন করে তা নিয়ে গবেষণা শুরু করেন ও তা প্রচারের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। ১৯৩৩ সালে উয়ারী-বটেশ্বর অঞ্চলে শ্রমিকরা মাটির পাত্রে সঞ্চিত কিছু রূপার মুদ্রা খুঁজে পান। সেখান থেকে তিনি ২০-২৫টি মুদ্রা সংগ্রহ করেন। ১৯৫৫ সালের ৩০ জানুয়ারি তিনি দৈনিক আজাদ পত্রিকায় ‘পূর্বপাকিস্তানের প্রাগৈতিহাসিক সভ্যতা’ শিরোনামে একটি প্রবন্ধ লিখেন।[২] এ সময় তার সঙ্গে তার পুত্র হাবিবুল্লাও গবেষণার কাজ শুরু করেন। তাদের প্রচেষ্টায় ১৯৬৬ সালে প্রথম এ অঞ্চলে প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ করা হয় এবং এরই প্রেক্ষিতে ২০০০ সালে উয়ারী-বটেশ্বর খননেন কাজ শুরু হয়।[২]

হানিফ ‘বটেশ্বর প্রত্ন সংগ্রহশালা ও গ্রন্থাগার’ নামে একটি জাদুঘর প্রতিষ্ঠা করেন। জাদুঘরে তিন হাজার বছরের বিভিন্ন সরঞ্জাম ছাড়াও এ অঞ্চলে প্রাপ্ত বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দেশন রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে দুষ্প্রাপ্য বই, ঐতিহাসিক সাময়িকী ও স্মারক।[২]

গ্রন্থ[সম্পাদনা]

হানিফ পাঠান লোকসাহিত্য নিয়ে বেশ কিছু পুস্তক প্রকাশ করেছেন। তার মধ্যে ‍উল্লেখযোগ্য হল:

  • বাংলা প্রবাদ-পরিচিতি (দুই খন্ডে বিভক্ত)
  • পল্লীসাহিত্যের কুড়ান মানিক (১৯৩৭) - প্রবাদ বিষয়ক সংকলন-গ্রন্থ

চিত্রশালা[সম্পাদনা]

হানিফ পাঠান কর্তৃক ১৯৭৪ সালে প্রতিষ্ঠিত যাদুঘর ‘বটেশ্বর প্রত্ন সংগ্রহশালা ও গ্রন্থাগার’।
‘বটেশ্বর প্রত্ন সংগ্রহশালা ও গ্রন্থাগারে' প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন
'বটেশ্বর প্রত্ন সংগ্রহশালা ও গ্রন্থাগারে' প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "পাঠান, মুহম্মদ হানিফ"বাংলাপিডিয়া। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 
  2. "উপমহাদেশের দ্বিতীয় নগর সভ্যতা উয়ারি-বটেশ্বর"ইত্তেফাক। সংগ্রহের তারিখ ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]