সৈয়দ আব্দুল্লাহ বুখারী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সৈয়দ আব্দুল্লাহ বুখারী
সৈয়দ আব্দুল্লাহ বুখারী.jpeg
জন্ম১৯২২
মৃত্যু৮ জুলাই, ২০০৯ ( ৮৭ বছর) 
নয়া দিল্লী, ভারত
জাতীয়তাভারতীয় 
পেশাসাবেক শাহী ইমাম

সৈয়দ আবদুল্লাহ বুখারী (Sayyid ʿAbdu l-Lāh Buxārī; ১৯২২-২০০৯) হলেন দিল্লী জামে মসজিদের ১২তম শাহী ইমাম[১][২] তিনি প্রথম শাহী ইমাম সৈয়দ আব্দুল গফুর শাহ বুখারীর বংশধর এবং বর্তমান শাহী ইমাম সৈয়দ আহমেদ বুখারীর পিতা।

প্রাথমিক জীবন ও কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি ভারতের রাজস্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তার পূর্ব পুরুষ উজবেকিস্তান থেকে ভারতে এসেছিলেন। তিনি ১৯৪৬ সালে দিল্লী জামে মসজিদের ডেপুটি শাহী ইমাম বা নায়েব-এ-ইমাম নিযুক্ত হন। তার পিতা মাওলানা সৈয়দ হামিদ বুখারী ছিলেন দিল্লী জামে মসজিদের ১১তম শাহী ইমাম। পিতার পর ১৯৭৩ সালের ৮ জুলাই তিনি ১২ তম শাহী ইমাম নিযুক্ত হন।

রাজনীতি[সম্পাদনা]

ভারতের তৎকালীন  প্রধানমন্ত্রী মোরারজি দেসাই সৈয়দ আব্দুল্লাহ বুখারীকে ভারতের ভাইস প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য প্রস্তাব দেন।[৩] তিনি অন্যায়ের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার ছিলেন। মুসলিমদের বিরুদ্ধে যেকোন অত্যাচারের প্রতিবাদ করতেন।

মৃত্যু [সম্পাদনা]

সৈয়দ আবদুল্লাহ বুখারী কে ২০০৯ সালের ৯ জুন শ্বাস-প্রশ্বাসে জটিলতার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। তার হৃদপিন্ড ও কিডনীতেও সমস্যা ছিলো। এরপর ১ মাস পর হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে তিনি মারা যান। সেদিনই তাকে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। তার ৪ পুত্র ও ২ কন্যা ছিলো। তার পুত্র সৈয়দ আহমেদ বুখারী পরবর্তীতে শাহী ইমাম নিযুক্ত হন। 

ভারতীয় পত্রিকা "দ্যা হিন্দু" তে বলা হয়, "দেশভাগের সময় তিনি নিজের জীবন বিপন্ন করে মুসলিমদের দাঙ্গা থেকে রক্ষা করার চেষ্টা করেছেন। তাদের খাদ্য ও আবাস দিয়েছেন। তিনি মুসলিমদের উৎসাহ দিতেন তারা যেন পাকিস্তানে না গিয়ে ভারতেই থেকে যায়।"

পূর্বসূরী:
সৈয়দ হামিদ বুখারী
শাহী ইমাম
{{{বছর}}}
উত্তরসূরী:
সৈয়দ আহমেদ বুখারী

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]