সুলতান খান (সংগীতশিল্পী)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সুলতান খান
উস্তাদ সুলতান খান ছবিতে হাসি দিচ্ছেন।
২০০৯ সালে সুলতান খান
প্রাথমিক তথ্য
জন্ম ১৫ই এপ্রিল, ১৯৪০
যোধপুর, রাজস্থান, ভারত
মৃত্যু ১৫ এপ্রিল ১৯৪০(১৯৪০-০৪-১৫) (-৭২ বছর)
মুম্বই, ভারত[১]
ধরন হিন্দুস্তানি শাস্ত্রীয় সংগীত
বাদ্যযন্ত্রসমূহ সারেঙ্গি
সহযোগী শিল্পী তবলা বীট বিজ্ঞান, জাকির হুসেইন

উস্তাদ সুলতান খান (ইংরেজি: Ustad Sultan Khan) (১৫ই এপ্রিল, ১৯৪০ - ২৭শে নভেম্বর, ২০১১) একজন ভারতীয় সারেঙ্গি বাদক এবং ইন্দোর ঘরানার অন্তর্গত শাস্ত্রীয় গায়ক। তিনি ছিলেন জাকির হুসেইন এবং বিল লাসওয়েলের সাথে একজন ভারতীয় তবলা বীট বিজ্ঞান একীকরণ গোষ্ঠীর সদস্য। ২০১০ সালে, সুলতান খানকে ভারতের তৃতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক পদ্মভূষণ সম্মানে ভূষিত করা হয়।[২][৩]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

সুলতান খান রাজস্থানের যোধপুরে জন্মগ্রহণ করেন। এটি ব্রিটিশ ভারতের সময়কালে ভারতীয় সাম্রাজ্যের একটি অংশ ছিল।[৪] তিনি তার পিতা উস্তাদ গুলাব খানের কাছ থেকে সারেঙ্গি বাজানো শিখে ছিলেন।[৫]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

তিনি মাত্র ২০ বছর বয়সে গুজরাটের রেডিও স্টেশন "রাজকোটে" তার কর্মজীবন শুরু করেন। অত্যন্ত আনন্দের সাথে "রাজকোটে" আট বছর অতিবাহিত করার পর, লতা মঙ্গেশকরের রাজকোট সফরকালে তিনি তার সাথে বাজানোর একটি সুযোগ পেয়েছিলেন।এটি তার জন্য একটি টার্নিং পয়েন্ট প্রমাণিত হয়। অতঃপর তাকে মুম্বাই রেডিও স্টেশন স্থানান্তর করা হয়।

পরিবার[সম্পাদনা]

তার স্ত্রীর নাম বানু। তার এক ছেলে সাবির খান, যিনি তাঁর শিষ্য এবং একজন সারেঙ্গি বাদক এবং দুই মেয়ে রেশমা এবং শেরা। তাঁর ভাই নিয়াজ আহমেদ খান একজন সেতার বাদক। তাঁর নাতি-নাতনীরা দিলশাদ খান (সারেঙ্গি বাদক), ইমরান খান (সেতার বাদক এবং সঙ্গীত রচয়িতা) এবং সালামত আলী খান এবং ইরফান খান উভয়ই সেতার বাদক।

পরিবারের বাইরে ইকরাম খান বিনোদ পওয়ার ও ডঃ কাশ্যপ ডেভ সহ তার অনেক ছাত্র ছিল।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

সুলতান খান দীর্ঘ দিন অসুস্থ থাকার পর ভারতের মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়ে ২৭শে নভেম্বর, ২০১১ সালের দুপুরে মৃত্যুবরণ করেন।[১]

তার গত চার বছর ধরে ডায়ালিসিস চলছে এবং তার মৃত্যুর কয়েক দিনের আগে তিনি বাকশক্তি হারিয়ে ফেলেছিলেন। হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ২৮শে নভেম্বর, ২০১১ সালে হামিদ মীর দ্বারা তাঁর জানাযার নামাজ রাজস্থানের যোধপুরে তাঁর নিজ গ্রামে অনুষ্ঠিত হয়।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "সারেঙ্গি বাদক উস্তাদ সুলতান খানের ইন্তেকাল" 
  2. "এই বছরের পদ্মা পুরস্কার ঘোষণা" (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। 25 January 2010। সংগ্রহের তারিখ ১১ই মে, ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |access-date= (সাহায্য)
  3. Tsioulcas, Anastasia (27 November 2011)। "ভারতের একজন অগ্রণী সঙ্গীতশিল্পী, সুলতান খান, ৭১ বয়সে ইন্তেকাল"NPR। সংগ্রহের তারিখ ১১ই মে, ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |access-date= (সাহায্য)
  4. Burckhardt কোরেশি, Regula (২০০৭)। ভারতের মাস্টার সঙ্গীতশিল্পী: বংশগত সারেঙ্গি বাদকের কথা। Routledge। পৃষ্ঠা ১৫৩। আইএসবিএন 0-415-97202-7 
  5. গণেশ, দীপা (2005-01-11)। "সারেঙ্গিয়া গান"। চেন্নাই, ভারত: দ্য হিন্দু। সংগ্রহের তারিখ ১১ই মে, ২০১৬  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |access-date= (সাহায্য)
  6. "Ustad Sultan Khan passes away at 68"The Times Of India। ২৮ নভেম্বর ২০১১। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]