সাঁঝবাতি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সাঁঝবাতি
Sanjhbati.jpg
সাঁঝবাতি চলচ্চিত্রের বাণিজ্যিক পোস্টার
সাঁঝবাতি
পরিচালকশৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়
লীনা গঙ্গোপাধ্যায়
প্রযোজকঅতনু রায়চৌধুরী
রচয়িতালীনা গঙ্গোপাধ্যায়
শ্রেষ্ঠাংশেনিচে দেখুন
সুরকারঅনুপম রায়
সম্পাদকসুজয় দত্ত রায়
পরিবেশকবেঙ্গল টকিজ
মুক্তি
  • ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ (2019-12-20)
দেশভারত
ভাষাবাংলা
আয়₹৭৪.৮৭ লাখ (৬ দিনে)

সাঁঝবাতি শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায় ও লীনা গঙ্গোপাধ্যায় পরিচালিত এবং বেঙ্গল টকিজ দ্বারা প্রযোজিত ও অতনু রায়চৌধুরী নিবেদিত একটি বাংলা নাটকীয় চলচ্চিত্র[১][২] ছবিটির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন দেব, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, পাওলি দামলিলি চক্রবর্তী। বেঙ্গল টকিজের ব্যানারে ছবিটি ২০ শে ডিসেম্বর ২০১৯ সালে ৫৬ টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়।[৩]

গল্প[সম্পাদনা]

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

নির্মাণ[সম্পাদনা]

উন্নয়ন[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রায়ন[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্রটির চিত্রায়ন মূলত কলকাতা শহরের মধ্যেই হয়েছে। ছবির কিছু দৃশ্যের চিত্রায়ন দার্জিলিংয়ে করা হয়েছে। দার্জিলিংয়ে বেড়ানোর নানা দৃশ্য ম্যাল-এ ধারণ করা হয়েছে। দার্জিলিং-এ বেড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে একটি গানের দৃশ্যেরও চিত্রায়ন হয়েছে ম্যালে। টুংলিং-এ ছবির কিছু অংশের দৃশ্য ধারণ করা হয়। ছবির একটি প্রাতরাশের(ব্রেকফাস্ট) দৃশ্যের চিত্রায়ন টুংলিং-এ করা হয় ।[৭]

প্রচারণা ও মুক্তি[সম্পাদনা]

সংগীত[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা করেন অনুপম রায়। গানগুলি গেয়েছেন শান, অন্বেষাঅনুপম রায়। ‘ক্ষমা করো’, ‘কাগজের বাড়ি’ এবং ‘বিসর্জন’ -ছবির এই তিনটি গানই লিখেছেন অনুপম রায়[৮]

সাঁঝবাতি
অনুপম রায় কর্তৃক সাউন্ডট্র্যাক
মুক্তির তারিখ২০১৯
ঘরানাচলচ্চিত্রের গান
প্রযোজকবেঙ্গল টকিজ
অনুপম রায় কালক্রম
বর্ণপরিচয়
(২০১৯)
সাঁঝবাতি
(২০১৯)
বেলা শুরু
(২০২০)
গান
নং.শিরোনামকণ্ঠশিল্পী(রা)দৈর্ঘ্য
১."ক্ষমা করো"অনুপম রায় 
২."কাগজের বাড়ি"অন্বেষা৩:৪৬
৩."বিসর্জন"শান২:২৪

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

সমালোচনা[সম্পাদনা]

আয়[সম্পাদনা]

ছবিটি ৫৬ টি প্রেক্ষাগৃহে প্রায় ৭০ টি পর্দায় (স্ক্রিন) মুক্তি পায়। প্রথমদিনে ছবিটির আয় খুবই ছিল। পরবর্তী দিনগুলিতে ধীরে ধীরে ছবির আয় বৃদ্ধি পায়। ছবিটি প্রেক্ষাগৃহ থেকে প্রথম দিনে ₹৪.৬৪ লাখ, দ্বিতীয় দিনে ₹৯.৯১ লাখ এবং ₹১৯.২৬ লাখ আয় করে। প্রথম সপ্তাহান্তে আয় করে ₹৩৩.৮১ লাখ। ছবিতি ২৫ ডিসেম্বরে ৬তম দিনে ₹২৬.১২ লাখ টাকা আয় করে, যা ছবিটির একদিনের হিসাবে সর্বোচ্চ আয়। ৬ দিনে ছবিটি প্রেক্ষাগৃহ থেকে মোট ₹৭৪.৮৭ লাখ টাকা আয় করে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "What convinced Dev to be a part of 'Sanjhbati'? - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-০২ 
  2. BookMyShow। "Sanjhbati Movie (2019) | Reviews, Cast & Release Date in Kalyani"BookMyShow (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-০২ 
  3. "'Sanjhbati' set to go on floors from mid June - Times of India"The Times of India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-০২ 
  4. অর্পিতা রায়চৌধুরী (২৯ নভেম্বর ২০১৯)। "বার্ধক্যের একাকিত্বে সাঁঝবাতির আলোয় নতুন রূপকথা লিখবে চাঁদু, ফুলি"। আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  5. স্রবন্তী বন্দ্যোপাধ্যায় (১৯ ডিসেম্বর ২০১৯)। "ভক্তেরা আমায় ভৃত্যের চরিত্রে নেবে কি না জানি না আমি: দেব"www.anandabazar.com/। আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  6. সায়নী ঘটক (১৮ ডিসেম্বর ২০১৯)। "দর্শক দেখুক, পাওলিও হাসতে জানে"। আনন্দবাজার পত্রিকা। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  7. "'সাঁঝবাতি'র অ্যালবাম"। এই সময়। ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  8. দেবস্মিতা দাস (১১ ডিসেম্বর ২০১৯)। "'সাঁঝবাতি'র মিউজিক লঞ্চ জমিয়ে দিলেন দেব-লিলি চক্রবর্তী"। bengali.indianexpress.com। সংগ্রহের তারিখ ২০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]