শর্মিলা মুখোপাধ্যায়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
শর্মিলা মুখোপাধ্যায়
Sharmila photo 1.jpg
ওয়েবসাইটwww.sharmilamukherjee.com/home.html
গুরু কেলুচরণ মহাপাত্রের সাথে শর্মিলা

শর্মিলা মুখোপাধ্যায় (মুখার্জি) একজন ওড়িশি নৃত্যশিল্পী ও নৃত্য পরিকল্পনাকার (কোরিওগ্রাফার) এবং গুরু কেলুচরণ মহাপাত্রের শিষ্য। তিনি বেঙ্গালুরুর সঞ্জলি সেন্টার ফর ওড়িশি ডান্সের প্রতিষ্ঠাতা ও শৈল্পিক পরিচালিকা, এটি ২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। তিনি মহরী পুরস্কারপ্রাপ্তদের একজন।

প্রাথমিক জীবন এবং শিক্ষা[সম্পাদনা]

১৬ বছর বয়সে শর্মিলা মুখোপাধ্যায় কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মবার্ষিকীতে নৃত্যনাট্য 'চণ্ডালিকা'-তে প্রধান চরিত্র 'প্রকৃতি'র ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন, যেটি তাঁর লাবণ্যের জন্য সমালোচকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছিল। তিনি ১৯৮৪ সালে গুরু কেলুচরণ মহাপাত্রের অধীনে ওড়িশি প্রশিক্ষণ শুরু করেছিলেন।[১] সবশেষে তিনি শ্রীমতি কলানিধি নারায়ণনের কাছ থেকে নৃত্যাভিনয়ের দিকনির্দেশনা পেয়েছিলেন এবং শ্রীমতি সংযুক্তা পাণিগ্রাহী কর্তৃক পরিচালিত কর্মশালায় অংশ নিয়েছিলেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

২০০০ সালে শর্মিলা মুখোপাধ্যায় মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি স্কলারশিপ বা শিক্ষাবৃত্তি অর্জন করেছিলেন এবং সেখানে তিনি নৃত্য বিচলন এবং রচনার প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন।[২]

শর্মিলা মুখোপাধ্যায় দূরদর্শনের একজন এ-গ্রেড তথা প্রথম স্তরের শিল্পী এবং ভারতীয় সংস্কৃতি সম্পর্কিত পরিষদের প্রতিষ্ঠিত শিল্পী।[২] তিনি ভারত[৩][৪][৫] এবং ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশ যেমন ফিজি, মালয়েশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, ইতালি, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ইন্দোনেশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিভিন্ন উৎসবে নৃত্য প্রদর্শন করেছেন ।

২০০৪ সালে তিনি ওড়িশি নৃত্যের জন্য সঞ্জলি সেন্টার প্রতিষ্ঠা করেছেন। সঞ্জলি দলকে ভারত ও অন্যান্য দেশে উৎসবে অংশ নিতে ভারতের সংস্কৃতি মন্ত্রক কর্তৃক 'আউটস্ট্যান্ডিং' বিভাগে নথিভুক্ত করা হয়েছে। তিনি বেঙ্গালুরুতে 'প্রবাহ' শিরোনামে একটি বার্ষিক ওড়িশি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করছেন।[৬] এর সাম্প্রতিক সংস্করণটি মঞ্চস্থ হয়েছে 'সূক্ষ্ম' শিরোনামে।[৭][৮]

বেঙ্গালুরুর সঞ্জলি সেন্টার ফর ওড়িশি ডান্সের প্রতিষ্ঠাতা ও শৈল্পিক পরিচালিকা

পুরস্কার[সম্পাদনা]

  • সুর সিঙ্গার সংসদ (মুম্বই) থেকে সিঙ্গার মণি পুরস্কার
  • কর্ণাটক থেকে কলাগৌরব পুরস্কার
  • কলকাতা থেকে শিরোনাম পুরস্কার
  • গুরু পঙ্কজ চরণ দাস ফাউন্ডেশন থেকে মহরী পুরস্কার[৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "In the memory of her guru"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১১ 
  2. "Sharmila Mukherjee – Odissi dancer | India School News"www.indiaschoolnews.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১১ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "Classical dancers in Bengaluru explore feminism through lesser-known mythological characters"The Economic Times। ২০১৭-০৩-২৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  4. "Sharmila Mukerjee's Oddissi production gives a new dimension to the character Kaikeyi"The New Indian Express। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  5. Paul, G. S. (২০১৪-০৭-২৪)। "Rainbow of artistry"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  6. "Tech city's date with Odissi"The Telegraph। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  7. Chakra, Shyamhari (২০১৬-০৫-০৫)। "Pravaha, the journey continues"The Hindu (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0971-751X। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  8. "Noted Odissi Danseuse Sharmila Mukerjee and her troupe Sanjali present 'Sookshma'"www.pocketnewsalert.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ 
  9. Desk, Odisha Sun Times Editorial। "Sharmila Mukerjee to receive Mahari Award for 2016 | OdishaSunTimes.com"odishasuntimes.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০৯-১২ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]